ইনজামাম-উল-হক (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার @cricketcomau)
ইনজামাম-উল-হক (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার @cricketcomau)

'আমায় খাবার পাঠাতেন সৌরভ', বললেন প্রাক্তন পাকিস্তানি অধিনায়ক

  • ইনজামাম-উল-হকের দাবি, ভারত ও পাকিস্তানের মানুষের মধ্যে অত্যন্ত আন্তরিকতা রয়েছে।

দানেশ কানেরিয়ার অভিযোগে পর থেকেই শোরগোল পড়েছে পাকিস্তানের ক্রিকেট মহলে। কানেরিয়ার দাবি খারিজ করতে এবার আসরে নামলেন ইনজামাম-উল-হক। পাকিস্তানিদের হৃদয় কত বড়, তা বোঝাতে ভারতীয় ক্রিকেটারদের সঙ্গে তাঁদের সম্পর্কও তুলে ধরলেন পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়ক।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে ইনজামাম দাবি করেন, পাকিস্তান দলে কখনও কোনও বিরূপ পরিস্থিতির শিকার হননি কানেরিয়া। বরং সাকলিন মুস্তাকের মতো কিংবদন্তীর স্পিনারের আগে টিম ম্যানেজমেন্ট কানেরিয়াকে সুযোগ দিয়েছিল। ইনজামামের কথায়, 'যে অধিনায়কের নেতৃত্বে কানেরিয়া সবথেকে বেশি খেলেছিলেন, সে আমিই। আমার কখনও মনে হয়নি যে আমাদের দলে ওরকম (ধর্মীয় ভেদাভেদ) আছে।'

ইনজামামের দাবি, পাকিস্তানিদের হৃদয় খুব বড়। তাঁরা সবাইকে সাদর অভ্যর্থনা জানান। ২০০৪ সালে ভারতের পাকিস্তান সফরের প্রসঙ্গ টেনে ইনজি বলেন, '১৫ বছর পর ২০০৪ সালে ফের পাকিস্তানে খেলতে এসেছিল ভারত। ভারতীয়দের দু'হাত বাড়িয়ে স্বাগত জানিয়েছিলেন পাকিস্তানিরা। খাওয়াদাওয়া, কেনাকাটা বা ট্যাক্সিতে করে কোথাও গেলে তাঁদের থেকে কেউ টাকা নেননি।'

তবে শুধু পাকিস্তানিরাই নন, ভারতীয়রা একইরকম আন্তরিকতার সঙ্গে পাকিস্তানকে স্বাগত জানিয়েছিল বলে দাবি ইনজামামের। তাঁর কথায়, 'এক বছর পরে আমরা ভারতে গিয়েছিলাম। আমরাও ভারত থেকে একইরকম ভালোবাসা পেয়েছিলাম। নিজেদের বাড়ির দরজা খুলে আমাদের আমন্ত্রণ করেছিলেন ভারতীয়রা। রান্না করে খাইয়েছিলেন। কেনাকাটার জন্য কোনও টাকা নেননি।'

পাকিস্তানের প্রাক্তন অধিনায়কের বক্তব্য, 'দু'দেশের মানুষের মধ্যে অত্যন্ত আন্তরিকতা রয়েছে। তাই আমার মনে হয় না, এরকম কোনও ঘটনা (কানেরিয়ার অভিযোগ) হতে পারে, আমাদের হৃদয় এত ছোটো হতে পারে। সেই সময় আমি অধিনায়ক ছিলাম। আর এটা (কানেরিয়ার অভিযোগ) সত্যি নয়।'

ইনজি জানান, ২০০৫ সালে ভারত সফরের আগে কলকাতায় ফোটোশ্যুটে এসেছিলেন। তখন সদ্য রেস্তোরাঁ চালু করেছিলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। সচিন তেন্ডুলকরের সঙ্গে তিনি সেই রেস্তোরাঁর উদ্বোধন করেছিলেন। ইনজামাম বলেন, 'নিজের রেস্তোরাঁ থেকে খাবার পাঠাতেন সৌরভ। আমি তা খেতাম।'

বন্ধ করুন