বাড়ি > ময়দান > IPL 2020: আইপিএলের নতুন স্পনসর পেল BCCI, যদিও খামতি থেকে যাবে ২১৮ কোটির!
আইপিএলের ও টুর্নামেন্টের সহযোগী স্পনসরের লোগো। ছবি- টুইটার।
আইপিএলের ও টুর্নামেন্টের সহযোগী স্পনসরের লোগো। ছবি- টুইটার।

IPL 2020: আইপিএলের নতুন স্পনসর পেল BCCI, যদিও খামতি থেকে যাবে ২১৮ কোটির!

  • স্পনসরশিপ চুক্তি বাবদ আর্থিক ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালাচ্ছে ভারতীয় বোর্ড।

ভিভোর সঙ্গে আইপিএলের টাইটেল স্পনসরশিপ চুক্তি ছিন্ন করার ফলে যে বিপুল আর্থিক ক্ষতির মুখে পড়তে হবে বিসিসিআইকে, তা কিছুটা হলেও পুষিয়ে নেওয়ার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে ভারতীয় বোর্ড। 

ভিভোর বদলে প্রায় অর্ধেক টাকায় ড্রিম ইলেভেন আইপিএলের টাইটেল স্পনসর হয়েছে। ক'দিন আগেই আনঅ্যাকাডেমিকে ভারতীয় বোর্ড আইপিএলের সহযোগী স্পনসর ঘোষণা করেছে। এবার ক্রেডিট কার্ড সংস্থা ক্রেডের সঙ্গে আইপিএলের স্পনসরশিপ চুক্তি স্বাক্ষর করল বিসিসিআই। ক্রেডকে আগামী তিনটি মরশুমের জন্য আইপিএলের অফিসিয়াল পার্টনার হিসেবে ঘোষণা করে ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড।

যদিও আনঅ্যাকাডেমি ও ক্রেডের সঙ্গে চুক্তি করার পরেও অন্য বছরের তুলনায় স্পনসরশিপ থেকে প্রাপ্ত অর্থে বেশ কিছুটা খামতি থেকে যাবে আইপিএলের। গত বছর আইপিএলের স্পনসরশিপ থেকে ভারতীয় বোর্ডের কোষাগারে ঢুকেছিল ৬১৮ কোটি টাকা। এবছর সব মিলিয়ে ৪০০ কোটি টাকা স্পনসরদের কাছ থেকে পেতে পারে বোর্ড।

গত বছরের চুক্তি অনুযায়ী ভিভোর (টাইটেল স্পনসর) কাছ থেক ৪৪০ কোটি টাকা পায় বোর্ড। টাটা মোটরস, এফবিবি ও ড্রিম ইলেভেন (অফিসিয়াল পার্টনার্স) থেকে মিলিতভাবে ১২০ কোটি, পেটিএমের (আম্পায়ার্স স্পনসর) কাছ থেকে ২৮ কোটি এবং সিয়েটের (স্ট্র্যাটেজিক টাইম-আউট পার্টনার) কাছ থেকে ৩০ কোটি টাকা পেয়েছিল বোর্ড।

এবছর ড্রিম ইলেভেন (টাইটেল স্পনসর) দেবে ২২২ কোটি। টাটা মোটরস, আনঅ্যাকাডেমি ও ক্রেড (অফিসিয়াল পার্টনার্স) দেবে ১২০ কোটি এবং আম্পায়ার্স ও স্ট্র্যাটেজিক টাইম-আউট পার্টনারদের কাছ থেকে যথাক্রমে ২৮ ও ৩০ কোটি টাকা পেতে পারে বোর্ড।

বন্ধ করুন