বাড়ি > ময়দান > IPL 2020: ভিভোর না থাকা আইপিএলে আর্থিক দিক দিয়ে প্রভাব ফেলবে না, ইঙ্গিত সৌরভের
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি- পিটিআই।
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ছবি- পিটিআই।

IPL 2020: ভিভোর না থাকা আইপিএলে আর্থিক দিক দিয়ে প্রভাব ফেলবে না, ইঙ্গিত সৌরভের

  • BCCI-এর মতো শক্তিশালী সংস্থা সাময়িক ধাক্কা সামলে ওঠার ক্ষমতা রাখে বলে দাবি মহারাজের।

আইপিএল মরশুম শুরুর ঠিক আগেই টাইটেল স্পনসর ভিভোর সঙ্গে চুক্তি ছিন্ন করতে কার্যত বাধ্য হয়েছে বিসিসিআই। চিনা মোবাইল প্রস্তুতকারক সংস্থা ভিভোর সঙ্গে বিপুল অঙ্কের স্পনসরশিপ চুক্তি ছিল ভারতীয় বোর্ডের। চুক্তি চিরতরে ভেঙে ফেলা না হলেও চলতি মরশুমে ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগকে আর্থিকভাবে সমর্থন করবে না চিনা সংস্থাটি। যার ফলে বড় অঙ্কের ক্ষতির মুখে পড়তে হবে বোর্ডকে।

ভিভোর সঙ্গে প্রতি বছরে ৪৪০ কোটি টাকার চুক্তি ছিল আইপিএলের। ভিভোর বদলে নতুন সংস্থা ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগের টাইটেল স্পনসর হলে, ক্ষতি কিছুটা পুষিয়ে নিতে পারবে বিসিসিআই। আপাতত ভিভোর না থাকা ভারতীয় বোর্ডের কাছে ধাক্কা সন্দেহ নেই।

বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় অবশ্য স্পষ্ট জানালেন যে, এটা কোনও আর্থিক সংকট নয়। বরং নেহাৎই একটা ঝটকা মাত্র। বিসিসিআইয়ের মতো শক্তিশালী সংস্থার এই সাময়িক ধাক্কা সামলে ওঠার ক্ষমতা রয়েছে।

সৌরভ বলেন, 'আমি এটাকে আর্থিক সংকট বলতে রাজি নই। এটা ছোটখাটো একটা ঝটকা মাত্র। বিসিসিআই অত্যন্ত শক্তিশালী সংস্থা। খেলা, খেলোয়াড়, অতীতের প্রশাসকরা ভারতীয় ক্রিকেটকে এতটাই মজবুত বানিয়ে দিয়েছে যে, বিসিসিআই এই ধাক্কা সামলে উঠতে পারে।'

সৌরভ আরও জানান, এমন পরিস্থিতির জন্য বিসিসিআই সবসময় প্ল্যান-বি তৈরি রাখে। সৌরভের কথায়,'সবসময় বিকল্প রাস্তা তৈরি রাখা দরকার। এটা প্ল্যান-এ, প্ল্যান-বি'র মতো। বুদ্ধিমান ব্যক্তিরা তাই করেন। বিচক্ষণ সংস্থাও তাই করে। পেশাদার হিসেবে দীর্ঘদিন ধরে নিজেদের শক্তিশালী করে তুললে এটা সামলে নেওয়া সম্ভব। বড় কিছু রাতারাতি অর্জন করা যায় না। দীর্ঘদিনের প্রস্তুতিই আপনাকে ব্যর্থতার সময় কাটিয়ে সাফল্যের দিকে টেনে নিয়ে যেতে পারে।'

বন্ধ করুন