বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > ভ্যাকসিনের দুটো ডোজ না নিলে দুবাইয়ের ছাড়পত্র নয়, IPL এর জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিদের কড়া নির্দেশিকা দিল বিসিসিআই
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও জয় শাহ (ছবি:আইপিএল)
সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও জয় শাহ (ছবি:আইপিএল)

ভ্যাকসিনের দুটো ডোজ না নিলে দুবাইয়ের ছাড়পত্র নয়, IPL এর জন্য ফ্র্যাঞ্চাইজিদের কড়া নির্দেশিকা দিল বিসিসিআই

  • সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় অ্যান্ড কোম্পানি আগেই সকল আটটি ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছে নিজেদের বার্তা পাঠিয়ে দিচ্ছেন। ভ্যাকসিনের ডোজ থেকে নিভৃতবাসের পর্ব সবক্ষেত্রেই কঠিন পদক্ষেপ নিচ্ছে বিসিসিআই।

১৯শে সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হয়ে যাচ্ছে স্থগিত হয়ে যাওয়া ১৪তম আইপিএল। করোনার কারণে বাধ্য হয়েই স্থগিত করতে হয়েছিল এবারের আইপিএল। ভারত থেকে সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে নিয়ে যাওয়া হয়েছে আইপিএল-এর আসরকে। কঠিন চ্যালেঞ্জের মধ্যেই ২৭ দিনে আয়োজন করতে হবে আইপিএল-এর বাকি ৩১টা ম্যাচ। এমন অবস্থায় কোনও ভুল করতে চায়না বিসিসিআই। তাই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় অ্যান্ড কোম্পানি আগেই সকল আটটি ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছে নিজেদের বার্তা পাঠিয়ে দিচ্ছেন। ভ্যাকসিনের ডোজ থেকে নিভৃতবাসের পর্ব সবক্ষেত্রেই কঠিন পদক্ষেপ নিচ্ছে বিসিসিআই। 

সূত্র মারফত জানা গিয়েছে ইতিমধ্যেই আটটি ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছেই বিসিসিআইয়ের তরফে কড়া নির্দেশিকা পৌঁছে গিয়েছে। সেই বর্তায় বলা আছে, আইপিএলের বাকি ম্যাচগুলির জন্য সব দলের প্রত্যেক সদস্যের দুটি করে ভ্যাকসিন নেওয়া বাধ্যতামূলক। তাই দলের যদি কোনও সদস্যের ভ্যাকসিনের দুটো ডোজ না নেওয়া থাকে তাহলে সে আরব আমিরশাহির ছাড়পত্র পাবেননা। বিসিসিআই আসন্ন আইপিএল নিয়ে আর কোনও ঝুঁকি নিতে চাননা। 

শুধু ভ্যাকসিন নিলেই চলবে না, সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে পৌঁছে সাতদিন নিভৃতবাসে থাকার পর তবেই অনুশীলন শুরু করতে পারবে দলগুলি। এমন বার্তাও আইপিএল-এর আট ফ্র্যাঞ্চাইজির কাছে পাঠিয়ে দিয়েছে বিসিসিআই। তবে ইংল্যান্ড থেকে যে সকল ক্রিকেটাররা সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে যোগ দেবেন তাদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম প্রযোজ্য হবেনা। জানা গিয়েছে, ভারত ও ইংল্যান্ডের ক্রিকেটাররা ইংল্যান্ডেই জৈব সুরক্ষা বলয়ের মধ্যেই রয়েছেন। তাই তাঁদের ক্ষেত্রে এই নিয়ম মানা হবে না। কারণ, সেক্ষেত্রে এক বায়ো বাবল থেকে অন্য বাবলে তারা প্রবেশ করবেন। সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে দলগুলি পৌঁছালে বা আইপিএল শুরু হলে যাতে কোনও অসুবিধা না হয় বা করোনা আবার যেন আইপিএলকে প্রভাবিত করতে পারে তার জন্যই এই কড়াকড়ি সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিসিআই। ফের যদি করোনা পরিস্থিতিতে আইপিএল আয়োজন ধাক্কা খায়, তাহলে তার প্রভাব গিয়ে পড়বে টি ২০ বিশ্বকাপে। তাই আইপিএল-এ কোনও ফাঁকফোকড় রাখতে চাইছেনা বিসিসিআই।

বন্ধ করুন