বাড়ি > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > শাহরুখ খান এমন ভাব করতেন, যেন ভগবানের দূত, বিস্ফোরক দাবি প্রাক্তন সিএবি সভাপতির
শাহরুখ, বুকানন, প্রসূন ও সৌরভ। ছবি- সোশ্যাল মিডিয়া।
শাহরুখ, বুকানন, প্রসূন ও সৌরভ। ছবি- সোশ্যাল মিডিয়া।

শাহরুখ খান এমন ভাব করতেন, যেন ভগবানের দূত, বিস্ফোরক দাবি প্রাক্তন সিএবি সভাপতির

  • উদ্বোধনী আইপিএলে KKR মালিককে নিয়ে বাংলার ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের তিক্ত অভিজ্ঞতার কথা জানা গেল।

মাঠের লড়াইয়ে দল পরিচালনায় পূর্ণ স্বাধীনতা পাননি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। মাঠের বাইরে ম্যাচ আয়োজনের ক্ষেত্রে নূন্যতম সহযোগিতাও পাননি প্রসূন মুখোপাধ্যায়। কলকাতা নাইট রাইডার্সের সুপার স্টার মালিক শাহরুখ খান সম্পর্কে ক্রমশ তিক্ত মনোভাব সামনে আসছে বাংলার ক্রিকেটমহলের।

কিছুদিন আগে সৌরভ জানিয়েছিলেন যে, তিনি কেকেআর দলকে নিজের মতো করে চালাতে চেয়েছিলেন। কিন্তু তাঁকে স্বাধীনতা দেওয়া হয়নি। অর্থাৎ, শাহরুখ যে দল নিয়ে নিজের পছন্দ-অপছন্দ চাপিয়ে দিতেন এবং দল পরিচালনায় নাক গলাতেন, এটা বোঝা যায় সৌরভের কথায়।

এবার প্রাক্তন সিএবি সভাপতি তথা কলকাতার প্রাক্তন পুলিশ কমিশনার প্রসূন মুখোপাধ্যায় শাহরুখ তথা নাইট রাইডার্স কর্তৃপক্ষকে নিয়ে নিজের অপ্রীতিকর অভিজ্ঞতার কথা জানালেন। আনন্দবাজারকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি স্পষ্ট জানালেন, কেকেআর মালিক শাহরুখ খান সম্পর্ক তাঁর কোনও ভালো স্মৃতি নেই।

২০০৮ সালে যখন প্রথমবার ইন্ডিয়ান প্রিমিয়র লিগ অনুষ্ঠিত হয়, তখন সিএবি সভাপতি ছিলেন প্রসূন মুখোপাধ্যায়। যেহেতু প্রথমবার আয়োজিত হচ্ছে টুর্নামেন্ট, তাই আয়োজক হিসেবে আইপিএল সম্পর্কে কোনও ধারণা ছিল না সিএবি কর্তাদের। পরিস্থিতি না বুঝেই নাইট কর্তৃপক্ষ পান থেকে চুন খসলে সিএবির সঙ্গে খটাখটিতে জড়িয়ে পড়ত বলে অভিযোগ তোলেন প্রাক্তন সিএবি সভাপতি।

তিনি বলেন, 'আইপিএল আসলে মাঠ ভাড়া দিয়ে টুর্নামেন্ট আয়োজন করার মতো। ঠিক বিয়েবাড়িতে হল ভাড়া দেওয়া হয় যেমন। আপনাকেই সব কাজ করতে হবে। অথচ আয়োজনের দায়িত্বে থাকবেন যাঁরা ভাড়া নিয়েছেন। আমরা সেই প্রথমবার এধরণের টুর্নামেন্ট আয়োজন করি। তাই আইপিএল সম্পর্কে আমাদের কোনও ধারণা ছিল না। তাই কিছু সমস্যা হয়েছিল। তবে নাইট রাইডার্সের সঙ্গে সবসময় কিছু না কিছু সমস্যা লেগেই থাকত।'

প্রসূন মুখোপাধ্যায় আরও বলেন, ‘টিকিট বণ্টন থেকে শুরু করে বিভিন্ন বিষয়ে ঝামেলা দেখা দেয়। আসল সমস্যা ছিল শাহরুখ খানের ইগোর। শাহরুখ সম্পর্কে আমার কোনও ভালো স্মৃতি নেই। এসআরকে এমন ভাব করতেন, যেন তাঁকে ভগবান পাঠিয়েছেন। উনি যা চাইছেন, সেটাই হতে হবে। আমাদের কোনও কাজই ওঁকে খুশি করতে পারত না। সবসময় সেরাটা চাই। খামতি হলে চলবে না। আমরা সব করে দিয়েছি। কাজ হয়ে গেলে আর পাত্তা দিতেন না। নাইট রাইডার্স কর্তৃপক্ষ তো আইপিএল শেষ হওয়ার পর আমাদের সঙ্গে হাত মিলিয়েও যায়নি।’

বন্ধ করুন