বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > IPL 2020: '১৪ দিনের জন্য স্ত্রীকে পাঠাও', স্টোকস নিয়ে স্যামুয়েলসের মন্তব্যে নিন্দার ঝড়
'১৪ দিনের জন্য স্ত্রীকে পাঠিয়ে দাও', স্যামুয়েলসের স্টোকস মন্তব্যে নিন্দার ঝড় (ফাইল ছবি, সৌজন্য রয়টার্স)
'১৪ দিনের জন্য স্ত্রীকে পাঠিয়ে দাও', স্যামুয়েলসের স্টোকস মন্তব্যে নিন্দার ঝড় (ফাইল ছবি, সৌজন্য রয়টার্স)

IPL 2020: '১৪ দিনের জন্য স্ত্রীকে পাঠাও', স্টোকস নিয়ে স্যামুয়েলসের মন্তব্যে নিন্দার ঝড়

  •  চূড়ান্ত ন্যক্কারজনক মন্তব্য ওয়েস্ট ইন্ডিজের। যিনি ক্রিকেট কেরিয়ারে যত না বেশি পারফরম্যান্সের জন্য নজর কেড়েছেন, তার থেকে বেশি বিতর্কে জড়িয়েছেন।

ক্রিকেট কেরিয়ারে যত না বেশি পারফরম্যান্সের জন্য নজর কেড়েছেন, তার থেকে বেশি বিতর্কে জড়িয়েছেন। আর বেন স্টোকসের সঙ্গে ‘প্রতিদ্বন্দ্বিতায়’ যাবতীয় সীমা লঙ্ঘন করলেন মার্লন স্যামুয়েলস। তা নিয়ে রীতিমতো ক্ষোভ ফুটছে ক্রিকেট মহল।

ঘটনাটি ঠিক কী? এবারের আইপিএলে শুরুর দিকে কযেকটি ম্যাচ খেলেননি স্টোকস। পরে বাবার ইচ্ছা মেনে খেলতে আসেন। সংযুক্ত আরব আমিরশাহিতে পৌঁছে নিয়মমাফিক ১৪ দিনের নিভৃতবাসে থাকতে হয়। সেই অভিজ্ঞতা নিয়ে প্রশ্ন করা হলে আইপিএলের একটি পডকাস্টে ইংরেজ অলরাউন্ডার জানান, তিনি একেবারেই সেই সময়টা উপভোগ করেননি। নিজের চরমতম শত্রুকেও যেন সেই অবস্থায় থাকতে না হয়।  

স্টোকসের কথায়, 'আমি ইনস্টাগ্রামে কয়েকটি স্টোরি পোস্ট করেছিলাম। ইংল্যান্ডের কয়েকজন সতীর্থ আমায় মেসেজ করে জানতে চায়, কেমন অবস্থা আছে। আমি বলেছিলাম যে এটা মোটেও আনন্দের জিনিস নয়। আমার চরমতম শত্রুর ক্ষেত্রেও আমি সেটা চাইব না।'  সেই কথার রেশ ধরেই  বিশ্বের সর্বকালের অন্যতম সেরা অলরাউন্ডার বলেন, ‘একই কথা বলে আমার দাদাকে মেসেজ করেছিলাম এবং ও বলে, মার্লন স্যামুয়েলসের ক্ষেত্রেও না? আমি বলি যে না, এটা বাজে। এতটাই শক্ত এটা।’

ইংরেজ অলরাউন্ডারের নিছক হালকা মেজাজের কথা একেবারেই ভালোভাবে নেননি স্যামুয়েলস। চূড়ান্ত আপত্তিকর মন্তব্য করেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের খেলোয়াড়। বলেন, '….১৪ দিনের জন্য তোমার স্ত্রীকে পাঠিয়ে দাও। চোদ্দো সেকেন্ডে জামাইকান করে দেব বন্ধু!' নিজেকে ‘বর্ণবিদ্বেষের শিকার’ হিসেবেও তুলে ধরতে চান স্যামুয়েলস। 

তবে স্যামুয়েলসের সেই চূড়ান্ত ন্যক্কারজনক আক্রমণের বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় বার্তা শানিয়েছেন শেন ওয়ার্ন। তাঁর সঙ্গেও স্যামুলেয়সের ঝামেলা নেহাত কম নয়। বিগ ব্যাশ লিগে একে অপরের জার্সিও টেনে ধরেছিলেন। ওয়ার্ন বলেন, ‘বেন স্টোকসকে নিয়ে স্যামুয়েলস যেটা বলেছে, সেটা আমি সবে দেখলাম। এটা খুব খারাপ অবস্থা। কারণ ওর সত্যি সাহায্য দরকার। কিন্তু ওর তো কোনও বন্ধু নেই। প্রাক্তন সতীর্থরাও ওকে পছন্দ করে না। তুমি সাধারণ মানের খেলোয়াড় হলেই সাধারণ মানের মানুষ হতে হবে, সেটা নয়। সাহায্য পাও তুমি ছেলে।’

ওয়ার্নের আক্রমণেও ‘বর্ণবিদ্বেষের শিকার’ হিসেবে তুলে ধরার চেষ্টা করেন স্যামুয়েলস। জানান, এমন একজন ক্রিকেটার তাঁকে পরামর্শ দিচ্ছেন ‘যিনি তরুণ দেখানোর জন্য সার্জারি করেছিলেন।’ একইসঙ্গে ২০১৭ সালে ব্রিস্টলের পানশালার বাইরে স্টোকস যে বিতর্কে জড়িয়েছিলেন, তা নিয়েও ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করেন স্যামুয়েলস। কটাক্ষ করে লেখেন, ‘কী ভালো ছেলে।’ সেই মামলায় অবশ্য ছাড় পেয়ে গিয়েছেন স্টোকস।

তারইমধ্যে স্যামুয়েলসের তীব্র সমালোচনা করেছেন প্রাক্তন ইংরেজ অধিনায়ক মাইকেল ভন। ওয়েস্ট ইন্ডিজ খেলোয়াড়ের ইনস্টাগ্রাম স্টোরির স্ক্রিনশট নিয়ে ভন বলেন, ‘এটা জঘন্য। আমরা বর্ণবিদ্বেষকে উৎখাত করার চেষ্টা করছি। বেন স্টোকসের সামান্য খোঁচার ফলে এরকম হওয়া উচিত।’

বন্ধ করুন