বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > IPL 2020: নিজের শহরের বিরুদ্ধে জিতলে প্রথম দুইয়ে জায়গা, আবেগতাড়িত কিনা জানালেন কোহলি
হারের পর হতাশ (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
হারের পর হতাশ (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

IPL 2020: নিজের শহরের বিরুদ্ধে জিতলে প্রথম দুইয়ে জায়গা, আবেগতাড়িত কিনা জানালেন কোহলি

  • ঋদ্ধিমান আবারও দলকে বার্তা দিলেন যে প্রথম একাদশের অপরিহার্য অংশ তিনি।

মনেপ্রাণে দিল্লির ছেলে তিনি। কিন্তু কার্যত আইপিএলের কোয়ার্টার ফাইনালে সেই দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে নামবেন বিরাট কোহলি। সেই ম্যাচে জিতলেই দ্বিতীয় স্থানে শেষ করবে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোর। 

শনিবার শারজায় সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে জিতলেই প্লে-অফে উঠে যেতেন বিরাটরা। কিন্তু শুরু থেকেই ব্যাঙ্গালোরকে কোনও সুযোগ দেননি ডেভিড ওয়ার্নাররা। দুরন্ত বোলিং করেন সন্দীপ শর্মা। মন্থর পিচ এবং দুর্দান্ত বোলিংয়ের সৌজন্যে ২০ ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে ১২০ রানের বেশি তুলতে পারেনি ব্যাঙ্গালোর। তাও জোস ফিলিপের ৩১ রান, এবি ডি'ভিলিয়ার্সের ২৪ রান এবং ওয়াশিংটন সুন্দরের ২১ রানের সৌজন্যে কিছুটা ভদ্রস্থ স্কোর খাড়া করেন বিরাটরা।

সেই রানের পুঁজি রক্ষার জন্যই শুরুতেই উইকেট দরকার ছিল ব্যাঙ্গালোরের। সেইমতো দ্বিতীয় ওভারেই সানরাইজার্সকে ধাক্কা দেন সুন্দর। ওয়ার্নারকে আউট করেন তিনি। সেখান থেকে সানরাইজার্স ইনিংসের হাল ধরেন ঋদ্ধিমান সাহা এবং মণীশ পান্ডে। আগের ম্যাচে মেরে খেলছিলেন ঋদ্ধি। শনিবার পরিস্থিতি বুঝে দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন। একইসঙ্গে দলকে আবারও বার্তা দিলেন যে প্রথম একাদশের অপরিহার্য অংশ তিনি। ৩২ বলে ৩৯ রানের সাবলীল ইনিংস খেলেন। তবে ঋদ্ধি আউট হওয়ার কিছুটা চাপে পড়ে যায় সানরাইজার্স। একটা সময় ৮৬ রানে চার উইকেটে পড়ে যায়। তবে ১০ বলে অপরাজিত ২৬ রানের ইনিংস খেলে দলকে ফিনিশিং লাইন পার করিয়ে দেন জেসন হোল্ডার। 

একটি জয়ের উপর ভর করে একলাফে সপ্তম স্থান থেকে লিগ টেবিলে চতুর্থ স্থানে উঠে এসেছে সানরাইজার্স। সমসংখ্যক ম্যাচে ডেভিড ওয়ার্নারদের পয়েন্ট ১২। আরও তিন দলের সমান পয়েন্ট থাকলে সানরাইজার্সের নেট রানরেট (+০.৫৫৫) অত্যন্ত ভালো। অন্যদিকে, সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে হারলেও লিগ তালিকার দ্বিতীয় স্থানে থাকলেন বিরাট কোহলিরা। ১৩ ম্যাচে ১৪ পয়েন্ট হলেও নেট রানরেট +০.৪৮ থেকে -০.১৪৫-এ নেমে গেল। সেক্ষেত্রে দিল্লির বিরুদ্ধে ব্যাঙ্গালোরের ম্যাচে কার্যত কোয়ার্টার ফাইনাল হয়ে গিয়েছে। সেই ম্যাচে যে দল জিতবে, তারা দ্বিতীয় স্থানে শেষ করবে। তবে হেরে গেলেও প্লে-অফে ওঠার সুযোগ থাকবে। তাতে অবশ্য নেট রানরেটের মারপ্যাঁচ রয়েছে। 

আর নিজের শহরের বিরুদ্ধে ম্যাচের আগে বিরাট জানান, মনেপ্রাণে দিল্লির ছেলে হলেও আইপিএলের ঢাকে কাঠি পড়লেই ব্যাঙ্গালোরের ছেলে হয়ে ওঠেন। তাঁর কথায়, ‘আইপিএলে আমি সর্বদা ব্যাঙ্গালোরের ছেলে। কখনও দিল্লির দিকে ঝুঁকিনি।’

বন্ধ করুন