বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > IPL 2020- এবারও কি অপ্রতিরোধ্য থাকবে রোহিতের মুম্বই ইন্ডিয়ানস?
থাকবে কি এই হাসি (PTI)
থাকবে কি এই হাসি (PTI)

IPL 2020- এবারও কি অপ্রতিরোধ্য থাকবে রোহিতের মুম্বই ইন্ডিয়ানস?

  • কতটা ভাইাটাল হবে মালিঙ্গার অনুপস্থিতি

শুভব্রত মুখার্জি

 

আইপিএল প্রতিযোগিতার ইতিহাসে সফলতম দল মুম্বই ইন্ডিয়ান্স। রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স এখন পর্যন্ত মোট চার বার আইপিএল ট্রফি জিতেছে। আইপিএলের বিগত বছরের প্রতিযোগিতার দিকে ফিরে তাকালে দেখা যায় ২০১৩, ২০১৫, ২০১৭ ও ২০১৯-এই চার বছর রোহিত শর্মার দল ট্রফি জিতেছে। অর্থাৎ কাকাতলীয় হলেও সত্যি, বিজোড় বর্ষে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স আইপিএলে সফলতা লাভ করেছে। তাই অনেকের মতে ২০২০ সালটা হয়তো রোহিত শর্মা দের কাছে ততটা সফল বর্ষ নাও হতে পারে।

একটা দলের সফলতা নির্ভর করে তার স্কোয়াডের শক্তির উপর। পিচ ,আবহাওয়া এবং পারিপার্শ্বিক পরিস্থিতি অনুযায়ী যত অপশন একজন অধিনায়কের হাতে থাকবে ততই সে স্কোয়াড আইপিএলের ট্রফি জয়ের জন্য অন্যতম শক্তিশালী দাবিদার হবে একথা বলাই বাহুল্য। 

রোহিত শর্মার নেতৃত্বাধীন মুম্বই ইন্ডিয়ান্স মূলত বুমরাহ,মালিঙ্গার বোলিং এবং রোহিতের ব্যাটিংও পান্ডিয়া ভ্রাতৃদ্বয়ের অলরাউন্ড পারফরমেন্সের উপর নির্ভর করে ২০১৯ সালের আইপিএল ট্রফি জয় লাভ করেছিল। সেই দলে এ বছর বেশ কিছু পরিবর্তন ঘটে গেছে।আইপিএল শুরুর আগেই মুম্বই ইন্ডিয়ান্স বোলিংয়ের অন্যতম স্তম্ভ লাসিথ মালিঙ্গা পারিবারিক কারণে এই মৌসুমে আইপিএল খেলতে পারবেন না বলে ইতিমধ্যেই জানিয়ে দিয়েছেন। এই অবস্থায় দাড়িয়ে আমরা এক নজরে দেখে নেওয়ার চেষ্টা করব কোন কোন ক্রিকেটারের পারফরমেন্সের উপর ভিত্তি করে এই বছর আইপিএল জয়ের অন্যতম দাবিদার হতে পারে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলটি।

∆ শক্তি :-

ব্যাটিং মুম্বই ইন্ডিয়ান্স দলের অন্যতম শক্তি।রোহিত শর্মা ভালো ব্যাটিং ফর্মে না থাকলেও অধিনায়ক হিসেবে তার পারফরমেন্সে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সকে বহু কঠিন ম্যাচ জিতিয়েছেন। এ বছর তাদের ব্যাটিংয়ের অন্যতম স্তম্ভ হতে পারেন দলে নেওয়া নতুন অজি হার্ড হিটিং ব্যাটসম্যান ক্রিস লিন। কলকাতা নাইট রাইডার্সের হয়ে ওপেনিং ব্যাটসম্যান হিসেবে অত্যন্ত ভালো পারফরমেন্স করার দরুন এই ব্যাটসম্যানকে দলে নিয়ে নিজেদের ওপেনিংকে আর ও মজবুত করেছে মুম্বাইয়ের দল। 

অপরদিকে দলে আগে থেকেই উপস্থিত হয়েছেন দক্ষিণ আফ্রিকার উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যান কুইন্টন ডি কক। এখন দেখার ওপেনিংয়ে রোহিত শর্মার পার্টনার কে হন ক্রিস লিন না কুইন্টন ডি কক ! মিডল অর্ডারে রানের গতি অব্যাহত রাখার দায়িত্ব থাকবে অবশ্যই সূর্যকুমার যাদব এবং ক্রুনাল পান্ডিয়ার মতন ব্যাটসম্যানদের উপর। ইনিংস ভালোভাবে শেষ করার দায়িত্ব অবশ্যই থাকবে হার্দিক পান্ডিয়ার উপর।

বোর্ডে রানসংখ্যা বড় হোক বা ছোট, তাকে রক্ষা করার দায়িত্ব থাকবে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের অত্যন্ত শক্তিশালী পেস বোলিং লাইন আপের উপর । যে লাইন আপকে এবছর অবশ্যই নেতৃত্ব দেবেন জসপ্রীত বুমরাহ।  শ্রীলঙ্কার পেসার লাসিথ মালিঙ্গা এবছর পারিবারিক কারণে আইপিএল থেকে নাম প্রত্যাহার করেছেন।বুমরাহ ছাড়াও মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের পেস বোলিং লাইন আপে রয়েছেন নাথান কুল্টার-নাইল, ট্রেন্ট বোল্ট এবং ধাওয়াল কুলকার্নি।অর্থাৎ এই শক্তিশালী মুম্বাই ইন্ডিয়ান্স পেস বোলিংয়ের বিরুদ্ধে প্রতিপক্ষ ব্যাটসম্যানদের কিন্তু যথেষ্ট কঠিন সময়ের মধ্যে পড়তে হতে পারে।

∆ দুর্বলতা :-

আরব আমিরশাহিতে যে প্রকারের পিচে আইপিএল ম্যাচগুলি হতে চলেছে সেগুলি সাধারণত অত্যন্ত ধীরগতির এবং লো-বাউন্সের পিচ। ফলে এই রকমের পিচে স্পিন বোলিং একটা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ পার্ট প্লে করবে। আর ঠিক এই জায়গাটি হল মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের সবচেয়ে বড় দুর্বলতার জায়গা‌। 

এবছর মুম্বইয়ের স্পিন বোলিংয়ের বিভাগটি সামলাবেন রাহুল চাহার,ক্রুনাল পান্ডিয়া এবং ভারতের অনুর্ধ্ব-১৯ দলের অন্যতম তারকা অনুকুল রায়। এবছর নিলামে চেন্নাইয়ের কাছে বিডে হেরে পীযূষ চাওলাকে হারানো মুম্বইয়ের ফ্র্যান্ঞ্চাইজি দলের জন্য বেশ বড় ক্ষতি।

দলের মিডল অর্ডার ব্যাটিং ও তাদের অন্যতম দুর্বলতার জায়গা হতে পারে কারণ সূর্যকুমার যাদবকে অপরদিক থেকে সহায়তা করার জন্য সেরকম অভিজ্ঞ বিদেশি বা স্বদেশী ক্রিকেটারের অভাব রয়েছে।

∆ সুযোগ :-

বছরের পর বছর মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের দল থেকে উঠে এসেছেন প্রতিভাবান তরুণ তারকা ক্রিকেটাররা। যারা পরবর্তী কালে ভারত বা তাদের দেশের হয়ে মহীরুহ ক্রিকেটারে পরিণত হয়েছেন। এবছর ইষান কিশান, আনমোলপ্রীত সিং এর মতন দুই তরুণ তুর্কিকে সুযোগ করে দিয়েছে দল যাদের ভবিষ্যৎ তারকা হওয়ার সমস্ত সম্ভাবনা রয়েছে। এবছর ঘরোয়া ক্রিকেটে যথেষ্ট ভাল পারফরমেন্স করেছেন আনমোলপ্রীত। এই মরসুমে যদি আইপিএলে ইষান কিশান ভাল পারফরমেন্স করতে পারেন তা হলে অফ ফর্মে থাকা ঋষভ পন্থকে টপকে একদিনের ক্রিকেটে তিনি ভারতীয় দলে ঢোকার অন্যতম দাবিদার হতে পারেন।

∆ বিপদ :-

কাইরন পোলার্ড ২০১০ সাল থেকে মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সের অন্যতম ভরসার ক্রিকেটার। যদিও শেষ মরসুমে খুব একটা ভাল পারফরমেন্স করতে পারেননি তিনি। তাই এবছর ও তিনি শুরুটা খারাপ করলে স্কোয়াডে থাকা শেরফাইন রাদারফোর্ডের সামনে সুযোগ চলে আসতে পারে।

মুম্বই দলে এবছর রয়েছেন দুজন ভারতীয় পেসার- বুমরাহ ও ধাওয়াল কুলকার্নি। কোনও কারণে বুমরাহ চোট পেলে তা অবশ্যই মুম্বইয়ের মাথা ব্যথার কারন হবে।

যদি কিছু নবীন তারকা ভাল পারফরমেন্স করতে পারেন এবং বুমরাহর মতন অভিজ্ঞ তারকারা নিজেদের চোটমুক্ত রাখতে পারেন তাহলে রোহিতের নেতৃত্বাধীন মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের এবছর তাদের পঞ্চম ট্রফি না জেতার কোন কারণ নেই।

∆ একনজরে এবছরের আইপিএলে মুম্বাই ইন্ডিয়ান স্কোয়াড :-

আনমোলপ্রীত সিং

ট্রেন্ট বোল্ট

জসপ্রীত বুমরাহ

রাহুল চাহার

নাথান কুল্টার-নাইল

কুইন্টন ডি কক

দিগ্বিজয় দেশমুখ

ঈশান কিশান

ক্রিস লিন

ধাওয়াল কুলকার্নি

হার্দিক পান্ডিয়া

ক্রুনাল পান্ডিয়া

মিচেল ম্যাকক্লেনাগান

মহসিন খান

জেমস প্যাটিনসন

কায়রন পোলার্ড

প্রিন্স বলবন্ত রাই

অনুকুল রায়

আদিত্য তারে

রোহিত শর্মা

সৌরভ তিওয়ারি

শেরফান রাদারফোর্ড

জয়ন্ত যাদব

সূর্য কুমার যাদব

 

বন্ধ করুন