বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > IPL 2020: টানা ৫ ম্যাচে উইকেট নেই ১৫.৫ কোটির বোলারের!

শুভব্রত মুখার্জি

গত বছর কলকাতার বুকে যখন আইপিএলের নিলামের আসর বসেছিল, তখন বেশ ঢাকঢোল পিটিয়ে সবচেয়ে বেশি টাকা খরচ করে প্যাট কামিন্সকে দলে নিয়েছিল কলকাতা নাইট রাইডার্স। যুক্তি ছিল, ইডেনের উইকেট যেহেতু পেস সহায়ক, তাই কামিন্সের গতিই হতে চলেছে কেকেআরের হাতিয়ার। তারপর অবশ্য গঙ্গা দিয়ে অনেক জল বয়ে গিয়েছে। এবার আইপিএল হচ্ছে আরবভূমে। ফলে কেকেআর ম্যানেজমেন্টের পরিকল্পনা যে বড়সড় ধাক্কা খেয়েছে, তা বলাই বাহুল্য।

মরুভূমের স্লো লো উইকেটে এখন কেকেআরের কাছে কার্যত 'বোঝা' হয়ে দাঁড়িয়েছেন ১৫.৫ কোটি টাকার বোলার। শুক্রবার মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে ইয়ন মর্গ্যানের সঙ্গে দলকে সম্মানজনক স্কোরে নিয়ে গিয়েছিলেন। কিন্তু বল হাতে কোনও সাফল্য মেলেনি। শুধু উইকেট মেলেনি বলে নয়, লাইন-লেংথ ঠিক করতে পারছিলেন না। যখন লাইন ঠিক হচ্ছিল, তখন লেংথে গোলমাল হচ্ছিল। আবার উলটোটাও হচ্ছিল। তার জেরে দলের প্রধান পেস বোলার কোনও উইকেট পাচ্ছেন তো না, উলটে রান খরচ করে আসছেন। 

এবারের আইপিএলে মাত্র দুটি উইকেট পেয়েছেন কামিন্স। সানরাইজার্স হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে চার ওভারে ১৯ রান দিয়ে এক উইকেটে নিয়েছিলেন। পরের ম্যাচে রাজস্থানের বিরুদ্ধে এক উইকেট নিয়েছিলেন। তিন ওভারে দিয়েছিলেন ১৩ রান। কিন্তু তারপর থেকে টানা পাঁচ ম্যাচে কামিন্সের উইকেট কলাম ফাঁকাই থেকে গিয়েছে। সবমিলিয়ে আট ম্যাচের মধ্যে ছ'টি ম্যাচে কামিন্স খালি হাতে ফিরেছেন। তার প্রভাবও পড়েছে কেকেআরের পারফরম্যান্সে। প্রথম ছ'ওভারে কার্যত কোনও উইকেট পড়ছে না বিপক্ষের। উলটে কামিন্সের গতিকে কাজে লাগিয়ে দ্রুত রান তুলছেন তাঁরা। ফলে শুরুতেই ম্যাচ থেকে হারিয়ে যাচ্ছেন নাইটরা।

একনজরে কামিন্সের শেষ পাঁচ ম্যাচের বোলিং পরিসংখ্যান -

১) মুম্বই ইন্ডিয়ান্স : তিন ওভারে বিনা উইকেটে ২৮ রান।

২) রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স চ্যালেঞ্জার্স : চার ওভারে বিনা উইকেটে ৩৮ রান।

৩) কিংস ইলেভেন পঞ্জাব : চার ওভারে বিনা উইকেটে ২৮ রান।

৪) চেন্নাই সুপার কিংস : চার ওভারে বিনা উইকেটে ২৫ রান।

৫) দিল্লি ক্যাপিটালস : চার ওভারে বিনা উইকেটে ৪৯ রান।

বন্ধ করুন