বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > IPL 2020: পরপর দু'ম্যাচে হেরে ব্যাটসম্যানদের কাঠগড়ায় তুললেন ধোনি
মহেন্দ্র সিং ধোনি। ছবি- আইপিএল।
মহেন্দ্র সিং ধোনি। ছবি- আইপিএল।

IPL 2020: পরপর দু'ম্যাচে হেরে ব্যাটসম্যানদের কাঠগড়ায় তুললেন ধোনি

  • হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে রায়াডুকে দলে পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী চেন্নাই অধিনায়াক।

শুভব্রত মুখার্জি

আইপিএলের ইতিহাসে তিনি অন্যতম শ্রেষ্ঠ অধিনায়ক তথা সফলতম ব্যাটসম্যান। চেন্নাই ফ্র্যাঞ্চাইজি দলের দায়িত্ব নিয়ে তাদেরকে মহেন্দ্র সিং ধোনি এনে দিয়েছেন তিনি তিনটি ট্রফি। সেই তিনি ২০১৯ সালের বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সেমিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ম্যাচ খেলার পরে প্রায় একবছর বাদে আইপিএলের মাধ্যমে ২২ গজে ফিরেছেন। ইতিমধ্যে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে আলবিদা জানানো পর্যন্ত হয়ে গিয়েছে তাঁর।

আরব দেশে আইপিএলের শুরুটা ভাল হয়েছিল ক্যাপ্টেন কুলের। গতবারের চ্যাম্পিয়ন মুম্বইকে ডু'প্লেসি এবং রায়াডুর ব্যাটিংয়ে ভর করে হারিয়ে প্রতিযোগিতা শুরু করেছিলেন তাঁরা। তার পরেই কাটে ছন্দ। পরপর দু'টি ম্যাচে হেরে বসেন তাঁরা। হারা শুধু নয়, একেবারে লজ্জাজনক আত্মসমর্পণ করেন তাঁরা।

(আইপিএলের যাবতীয় আপডেট ও লাইভ স্কোর জানতে ক্লিক করুন এখানে।)

স্বাভাবিকভাবেই টানা ২টি ম্যাচ হেরে ক্যাপ্টেন কুল আর তাঁর মেজাজ ধরে রাখতে পারেননি। একাধিক বিতর্ক, সমালোচনার মুখে পড়তে হয়েছে তাঁকে। তাই দিল্লির বিরুদ্ধে ম্যাচ হেরে কার্যত ব্যাটসম্যানদের কাঠগড়ায় তুলে দিলেন ধোনি। দিল্লি ক্যাপিটালসের বিরুদ্ধে ১৭৬ রান তাড়া করতে নেমে মাত্র ১৩১ রান নির্ধারিত ২০ ওভারে করতে সক্ষম হয় চেন্নাই সুপার কিংস। টানা দু'টি ম্যাচ হেরে দলের ব্যর্থতার জন্য সরাসরি ব্যাটিং বিভাগকেই দায়ী করেছেন সিএসকে অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি।

ধোনি জানান '১৬০-এর উপর রান তাড়া করতে হলে শুরু থেকেই রান রেটকে সচল রাখতে হয়। সেটা নাহলে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের উপরে অতিরিক্ত চাপ পড়ে যায়। একজন অতিরিক্ত বোলার নিয়ে মাঠে নামলে ব্যাটসম্যানদের আরও দায়িত্ব নিয়ে খেলা উচিত।'

ব্যাটসম্যানদের কাঠগড়ায় তুলেই থামেননি ধোনি। বোলারদের ধারাবাহিকতার অভাবকেও কাঠগড়ায় তুলেছেন ধোনি। মুরলি বিজয়-শেন ওয়াটসন ওপেনিং জুটি এখন পর্যন্ত সবকটা ম্যাচে ব্যর্থ হয়েছে। তার প্রভাব পড়েছে মিডল অর্ডার ব্যাটসম্যানদের উপরে। আস্কিং রেটও অনেকটা বেড়ে গিয়েছে, যা পরের দিকের ব্যাটসম্যানরা সামলাতে পারেননি‌।

মিডল অর্ডারে রায়াডুর অভাবও স্বীকার করেছেন ধোনি। হায়দরাবাদের বিরুদ্ধে রায়াডুকে পাওয়ার বিষয়ে আশাবাদী তিনি। হ্যামস্ট্রিংয়ের চোটের জন্য পরপর দু'টো ম্যাচ মাঠের বাইরে থাকতে হয়েছে রায়াডুকে। তাঁর পরিবর্তে ঋতুরাজ গায়কোয়াড় দু"টো ম্যাচে মাঠে নামলেও ব্যাট হাতে ব্যর্থ হন তিনি। এখনও ৬দিন হাতে সময় পাচ্ছে সিএসকে। ফলে সময়কে কাজে লাগিয়ে আইপিএলে একটা কামব্যাকের আশাতেই থাকবেন ধোনি বাহিনী।

বন্ধ করুন