বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > KXIP vs CSK: ঠান্ডা মাথার খুনে মেজাজে চেন্নাইকে জয় এনে দেন ডু'প্লেসি-ওয়াটসন
ফ্যাফ ডু'প্লেসি ও শেন ওয়াটসন। ছবি- আইপিএল।
ফ্যাফ ডু'প্লেসি ও শেন ওয়াটসন। ছবি- আইপিএল।

KXIP vs CSK: ঠান্ডা মাথার খুনে মেজাজে চেন্নাইকে জয় এনে দেন ডু'প্লেসি-ওয়াটসন

  • কোনও উইকেট না হারিয়েই কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের ঝুলিয়ে দেওয়া লক্ষ্যমাত্রা টপকে যায় সুপার কিংস।

চেনা ছন্দে চেন্নাই সুপার কিংস। আইপিএলে পরপর তিন ম্যাচে হারের ধাক্কা সামলে সিএসকে কার্যত বিধ্বস্ত করে কিংস ইলেভেন পঞ্জাবকে। এমনটা নয় যে, ধ্বংসাত্মক ব্যাটিং বা আগুনে বোলিংয়ে প্রতিপক্ষকে উড়িয়ে দেয় চেন্নাই। বরং ঠান্ডা মাথার আগ্রাসনেই পঞ্জাবের বিরুদ্ধে প্রভাবশালী জয় তুলে নেয় চেন্নাই।

দুবাইয়ের পিচে ১৭৯ রানের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে ম্যাচ জেতা খুব সহজ কাজ নয়। চেন্নাই সেই কঠিন কাজটাই অনায়াসে করে দেখায়। তাও কোনও উইকেট না হারিয়ে। ১৪ বল বাকি থাকতে ১০ উইকেটের এমন দাপুটে জয়ে আইপিএলের বাকি দলগুলির কাছে তো বটেই, সমালোচকদেরকেও জোরালো বার্তা দেন ধোনিরা।

(আইপিএলের লাইভ আপডেট ও লাইভ স্কোর জানতে ক্লিক করুন এখানে।)

টস জিতে প্রথমে ব্যাট করে পঞ্জাব নির্ধারিত ২০ ওভারে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ১৭৮ রান তোলে। পালটা ব্যাট করতে নেমে চেন্নাই ১৭.৪ ওভার বিনা উইকেটে ১৮১ রান তুলে ম্যাচ জিতে যায়।

ফ্যাফ ডু'প্লেসি টুর্নামেন্টের শুরু থেকেই ফর্মে ছিলেন। তিনি ধারাবাহিকতা বজায় রাখেন এই ম্যাচেও। প্রোটিয়া তারকা অপরাজিত থাকেন ৮৭ রন করে। শেন ওয়াটসন পুরনো মেজাজে ধরা দেন অবশেষে। তিনি নট-আউট থাকেন ৮৩ রান করে। ম্যাচের সেরা হয়েছেন প্রাক্তন অজি তারকাই।

কোনও উইকেট না হারিয়ে ম্যাচ জেতার নিরিখে এটি আইপিএলের ইতিহাসে দ্বিতীয় বৃহত্তম জয়। ২০১৭ সালে রাজকোটে গুজরাত লায়ন্সের বিরুদ্ধে কলকাতা নাইট রাইডার্স কোনও উইকেট না হারিয়ে ১৮৩ রান তুলে ম্যাচ জিতেছিল।

চেন্নাই সুপার কিং এই নিয়ে দু'বার এমন কৃতিত্ব দেখায়। এর আগে ২০১৩ সালে তারা কিংস ইলেভেন পঞ্জাবের বিরুদ্ধেই ১০ উইকেটে জয় তুলে নিয়েছিল। চলতি আইপিএলে দুবাইয়ে এই প্রথম কোনও দল রান তাড়া করে ম্যাচ জেতে। আইপিএলের ইতিহাসে এটি চতুর্থ সর্বোচ্চ ওপেনিং জুটি।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: পঞ্জাব: ১৭৮/৪ (২০ ওভার), চেন্নাই: ১৮১/০ (১৭.৪ ওভার), (চেন্নাই ১০ উইকেটে জয়ী)।

বন্ধ করুন