বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল ২০২০ > SRH vs KKR: লকি ফার্গুসনে ‘লাকি’ KKR, সুপার ওভারে হারা ম্যাচ জিতলেন নাইটরা

লকি ফার্গুসনের দুরন্ত বোলিং ও ফিল্ডিং। তার উপর ভর করে সানরাইজার্স হায়দরাবাদকে সুপার ওভারে হারাল কলকাতা নাইট রাইডার্স। (আইপিএলের যাবতীয় আপডেট, লাইভ স্কোর দেখুন এখানে)

SRH vs KKR আপডেটস:

  • ম্যাচের সেরা কে হতে পারেন, তা নিয়ে দ্বিধা থাকার কোনও কথা ছিল না। প্রত্যাশা মতোই সেরা হলেন লকি ফার্গুসন।
  •  বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেরা বোলার থেকে KKR জার্সিতে জাদু - জানুন ফার্গুসনের বিষয়ে
  • ফার্গুসনের দুরন্ত বোলিং-ফিল্ডিং, মর্গ্যানের মাস্টারস্ট্রোক - কীভাবে জিতল KKR?
  • ৯ ম্যাচে ৩ উইকেট ১৫.৫ কোটির বোলারের, ২৭ বলেই ৫ উইকেট লকি ফার্গুসনের
  • চতুর্থ বলে ২ রান নিয়ে সুপার ওভারে ম্যাচ জিতল কেকেআর।
  • তৃতীয় বল ডট বল।
  • দ্বিতীয় বলে এক রান নিলেন ইয়ন মর্গ্যান।
  • প্রথম বল ডট।
  • ব্যাট হাতে নামলেন ইয়ন মর্গ্যান ও দীনেশ কার্তিক। বল হাতে রশিদ খান।
  • তিনটি বল করলেন। তার মধ্যে দুটি বলেই বোল্ড করলেন লকি ফার্গুসন। তৃতীয় বলেই আবদুল সামাদকে বল করলেন চতিনি। সানরাইজার্স করল ২ রান। জয়ের জন্য কেকেআরের চাই ৩ রান।
  • লকি ফার্গুসনের জন্য কী ম্যাচ! প্রথম বলেই বোল্ড করলেন ডেভিড ওয়ার্নারকে।
  • সুপার ওভারে প্রথমে নামছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদ। প্রত্যাশামতোই নামছেন ডেভিড ওয়ার্নার ও জনি বেয়ারস্টো। বল হাতে লকি ফার্গুসন।
  • ব্যাটের পর দায়িত্ব নিয়ে বোলিংয়ে ডোবালেন রাসেল। প্রথমে নো-বল দিয়ে শুরু করেছিলেন। তারপর টানা তিনটি চার খান। শেষ বলে ২ রান দরকার ছিল। সেখানে এক রান নিতে পারেন ওয়ার্নার। তার জেরে সুপার ওভারে গড়াল ম্যাচ।
  • পরপর তিন বলে তিনটি চার রাসেলের।
  • পাঁচ বলে চাই ১৫ রান।
  • প্রথম বলেই বড়সড় নো বল করলেন আন্দ্রে রাসেল।
  • শেষ ওভারে চাই ১৮ রান। বল হাতে আন্দ্রে রাসেল।
  • খুব একটা খারাপ বল করেননি শিবম মাভি। ১৯ তম ওভারে দিলেন ১২ রান। পেলেন এক উইকেট।
  • তিন উইকেটের পর বাউন্ডারিতে দুরন্ত ফিল্ডিং লকি ফার্গুসনের। ডিপ মিড-উইকেটের বাউন্ডারিতে দুরন্ত ক্যাচ ধরেন। কিন্তু ভারসাম্য হারিয়ে ফেলার কারণে বল বাইরের দিকে ছুড়ে দিয়ে যান। ফিরতি ক্যাচ ধরেন শুভমন গিল। ১৯ তম ওভারের শেষ বলে আউট হলেন আবদুল সামাদ। ১৫ বলে করলেন ২৩ রান।
  • বড় ফাটকা ইয়ন মর্গ্যানের। ১৯ তম ওভারে বল পেলেন শিবম মাভি।
  • ১৮ তম উঠল সাত রান। দুরন্ত বোলিং লকি ফার্গুসনের। চার ওভারে তিন উইকেট নিয়ে ১৫ রান দিলে।
  • পয়েন্টে আবদুল সামাদের ক্যাচ ফেললেন আন্দ্রে রাসেল। এমনিতে চোটের জন্য নড়াচড়া করতে সমস্যায় পড়ছেন তিনি। ফলে ক্যাচ আরও কঠিন হল। চার উিকেট হল না লকি ফার্গুসনের।
  • ১৭ ওভারে উঠল ১০ রান। সানরাইজার্সের স্কোর পাঁচ উইকেটে ১২৭ রান। তিন ওভারে চাই ৩৭ রান। এখনও ম্যাচ ৫০-৫০। ক্রিজে আছেন ওয়ার্নার ও সামাদ।
  • মাঠে ফিরলেন আন্দ্রে রাসেল।
  • অবশেষে উইকেট পেলেন প্যাট কামিন্স। পাঁচ ম্যাচ পর আবারও উইকেট কলামে নাম উঠল অজি তারকার। শর্ট বলে মারতে গিয়ে বিজয় শংকরের শট উপর দিকে উঠে যায়। ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে সহজ ক্যাচ ধরলেন শুভমন গিল। অবশেষে ২৪.২ ওভারে প্রথমবার উইকেট পেলেন কামিন্স। ছোটোভাবে বললে পাঁচ ম্যাচ পরে আবারও উইকেট কলামে কামিন্সের নাম উঠল। ১৫.২ ওভারে সানরাইজার্সের স্কোর পাঁচ উইকেটে ১০৯ রান।
  • আবারও চোটের ভ্রুকূটি আন্দ্রে রাসেলের জন্য। ১৪.১ ওভারে রান রুখতে গিয়ে হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট পেলেন তিনি। উঠে গেলেন তিনি। বড় ধাক্কা কেকেআরের।
  • আইপিএলের ইতিহাসে ৫,০০০ রান পূরণ করলেন ডেভিড ওয়ার্নার। প্রথম বিদেশি খেলোয়াড় হিসেবে সেই মাইলস্টোন পার করলেন।
  • এতদিন রিজার্ভ বেঞ্চে বসেছিলেন। সেটা যে তাঁর জায়গা নয়, তা প্রথম ম্যাচেই প্রমাণ করছেন লকি ফার্গুসন। নিখুঁত ইয়র্কারে ফেরালেন মণীশ পান্ডেকে। তা সামলানোর ক্ষমতা ছিল পান্ডের। ফলস্বরূপ বোল্ড হলেন। তৃতীয় উইকেটের ফার্গুসনের। ১১.৩ ওভারে হায়দরাবাদের স্কোর চার উইকেটে ৮২ রান।
  • ১১ তম ওভারে এলেন কুলদীপ যাদব। দারুণ শুরু। ভাগ্যের জোর বাঁচলেন ডেভিত ওয়ার্নার।
  • বড় ধাক্কা সানরাইজার্সের। ওয়ার্নার আসার কিছুটা পরই প্যাভিলিয়নে ফিরলেন জনি বেয়ারস্টো। খুব বাজে শট নির্বাচন। ঢিমে ফুল বলে মারার আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন বরুণ চক্রবর্তী। তা দু'হাত দিয়ে গ্রহণ করেন বেয়ারস্টো। কিন্তু বাউন্ডারি পার করতে পারেননি। বাউন্ডারির গোড়ায় রাসেলের হাতে জমা পড়লেন। ৯.২ ওভারে সানরাইজার্সের স্কোর তিন উইকেটে ৭০।
  • নবম ম্যাচে প্রথম সুযোগ পেয়েই নিজের জাত চেনাচ্ছেন লকি ফার্গুসন। লুকানো আস্তিনে ঢিমে গতির বলে প্রিয়ম গর্গকে পুরোপুরি বোকা বানালেন। আগের বলটাই ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটারের দোরগোড়ায় ছিল। তারপর একেবারে কম গতির বল করলেন। ৮.৪ ওভারে সানরাইজার্সের স্কোর ২ উইকেটে ৭০ রান।
  • ব্যাটং অর্ডারের খোলচেনলচে পালটে দিল সানরাইজার্স। টপ অর্ডারের ব্যাটসম্যানরা ফিনিশিংয়ের দায়িত্ব নিচ্ছেন। তিনে এলেন প্রিয়ম গর্গ।
  • ত্রয়োদশ আইপিএলের প্রথম বলেই উইকেট নিলেন লকি ফার্গুসন। একদমই ভালো ছিল না। অফস্টাম্পের বাইরে শর্ট বলে আপার কাট মেরে আউট হলেন কেন উইলিয়াসন। চোটের মধ্যেও দুরন্ত ইনিংস কেনের। ৬.১ ওভারে হায়দরাবাদের স্কোর এক উইকেটে ৫৭।
  • প্রথম ৬ ওভারে উঠল ৫৭ রান। ১৮ বলে ২৯ রানে অপরাজিত কেন উইলিয়ামসন। ১৮ বলে ২৮ রান করেছেন জনি বেয়ারস্টো।
  • ব্যাট হাতে তো ফর্মের সঙ্গে ২০১৯ সালেই সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন। এবার বোলিংয়েও একই অবস্থা হচ্ছে আন্দ্রে রাসেলর। প্রথম ওভারেই তিনটে চার খেলেন। ভালো বলে যে মেরেছেন, তা নয়। শুধু প্রথমটি কেন উইলিয়ামসনের কৃতিত্ব। বাকি দুটি জনি বেয়ারস্টোকে উপহার দিলেন রাসেল। চার ওভারে হায়দরাবাদের স্কোর ৩৫ রান।
  • প্রথম চার ওভারে চার বোলারকে ব্যবহার করলেন ইয়ন মর্গ্যান।
  • ম্যাচের শুরু থেকেই খোঁড়াচ্ছেন কেন উইলিয়ামসন। ব্যাট হাতে নেমে আরও সমস্যা হচ্ছে। সম্ভবত হ্যামস্ট্রিংয়ে চোট লেগেছে। খুব ভালো দৌড়াতে পারছেন না। কিন্তু তাঁর দৌড়ানোর দরকার পড়েনি। চোখ জুড়িয়ে যাওয়া শট মারলেন দুটি। ২ ওভারে সানরাইজার্সের স্কোর বিনা উইকেটে ৯ রান।
  • ভালো শুরু করলেন প্যাট কামিন্স। প্রথম ওভারে দিলেন ২ রান।
  • রান তাড়া শুরু কেকেআরের। বল হাতে প্যাট কামিন্স।
  • ওপেনে নামলেন না ডেভিড ওয়ার্নার। জনি বেয়ারস্টোর সঙ্গী হলেন কেন উইলিয়ামসন। লকি ফার্গুসনকে সামলানোর জন্য নিউজিল্যান্ডের অধিনায়ককে নামাল সানরাইজার্স।
  • শেষ চার ওভারে ৫২ রান তুলল কেকেআর।
  • শেষ বলে আউট হলেন ইয়ন মর্গ্যান। শেষ ওভারেই তিনি খেলায় গতি আনেন। তার আগে কার্তিকের সঙ্গ দিচ্ছিলেন। ২৩ বলে ৩৪ রান করেন তিনি। দীনেশ কার্তিক ১৪ বলে ২৯ রানে অপরাজিত থাকলেন।
  • ‘ফিনিশার’ দীনেশ কার্তিক ও ইয়ন মর্গ্যানের সৌজন্যে সানরাইজার্সের বিরুদ্ধে পাঁচ উইকেটে ১৬৩ রান তুলল কেকেআর। শেষ ওভারে উঠল ১৬ রান। কেকেআরের বর্তমান ও প্রাক্তন অধিনায়কের জুটিতে ৩০ বলে উঠল রান ৫৮।
  • ১৯ তম ওভারে উঠল ১৪ রান। কেকেআরের স্কোর চার উইকেটে ১৪৭ রান।
  • গিলের সহজ ক্যাচ ছাড়লেন রশিদ, আফগান তারকার বলে গিলের দুরন্ত ক্যাচ গর্গের, দেখুন ভিডিও
  • ১৫ ওভারে কেকেআরের স্কোর চার উইকেটে ১০৫ রান।
  • রবিবার দারুণ সুযোগ ছিল। কিন্তু তা কাজে লাগাতে পারলেন না আন্দ্রে রাসেল। সময় ছিল। সেইমতো সময় নিয়েও খেলছিলেন। হায়দরবাদের বোলিং আক্রমণও তেমন ছিল না, যে গতিতে সমস্যায় ফেলবে। কিন্তু সাধারণ একটা বলে বাউন্ডারির একেবারে মুখে ক্যাচ ধরলেন বিজয় শংকর। একচুলও নড়তে হয়নি তাঁকে। ১১ বলে ৯ রান করলেন রাসেল। কার্যত উপহার পেল হায়দরাবাদ।
  • পাঁচ নামলেন ইয়ন মর্গ্যান।
  • ভালো খেলছিলেন। আবার সেই ভালো শুরুর ফায়দা নিতে পারলেন না।  কমপক্ষে ১০-১৫ গজ দৌড়ে এসে দারুণ ক্যাচ ধরলেন প্রিয়ম গর্গ। বিজয় শংকরের বলে বড় শট মারতে গিয়ে ব্যাটের নীচের দিকে বল লাগে। তিন বলের ব্যবধানে ড্রেসিংরুমে ফিরলেন দুই সেট ব্যাটসম্যান। ১২.১ ওভারে কেকেআরের স্কোর তিন উইকেটে ৮৮ রান।
  • চারে নামলেন আন্দ্রে রাসেল।
  • ভাগ্য ভালো ছিল রবিবার। কিন্তু তার সুবিধা নিতে পারলেন শুভমন গিল। ঢিমে শুরু করেও রানের গতি বাড়িয়েছিলেন। কিন্তু ত্রিপাঠী আউট হওয়ার পর আবারও রানের গতি কমে যায়। একের পর এক ডট বল খেলছিলেন। ফলস্বরূপ বড় শট মারতে গিয়ে আউট হলেন। লং-অফের কাছে অনেকটা দৌড়ে ডাইভ দিয়ে দুরন্ত ক্যাচ নিলেন প্রিয়ম গর্গ। ৩৭ বলে ৩৬ রান করলেন গিল। কেকেআরের স্কোর ২ উইকেটে ৮৭ রান।
  • ত্রিপাঠী আউট হওয়ার পরই কেকেআরের রানের গতি কমল। ৯ ওভারে কেকেআরের স্কোর এক উিকেটে ৬৪ রান।
  • ফর্মের না থাকার ফলে আত্মবিশ্বাসের অভাবে ভুগছেন নীতিশ রানা। তবে বিজয় শংকরের বলে এগিয়ে এসে চার মারলেন।
  • এখনও পর্যন্ত টুর্নামেন্টে একমাত্র দল কেকেআর, যে দলের ওপেনিং পার্টনারশিপ একবারও ৫০ পেরোয়নি।
  • অবশেষে পাওয়ার প্লে'তে ভালো শুরু কেকেআরের। প্রথম ৬ ওভারে উঠল এক উইকেটে ৪৮ রান। জীবনদান পাওয়ার পর ২০ বলে ২৫ রানে অপরাজিত শুভমন গিল।
  • শুশ্রুষার পরের বলেই আউট হয়ে ফিরলেন রাহুল ত্রিপাঠী। পুরোপুরি ছন্দ হারিয়ে ফেললেন। স্বপ্নের শট মারতে গিয়ে নিজের স্টাম্প উন্মুক্ত করে দিলেন। ফলস্বরূপ টি নটরাজনের বলে বোল্ড হলেন। ১৬ বলে করলেন ২৩ রান। আবারও সেই বিরতির পর মনসংযোগের ফল ভুগলেন ব্যাটসম্যান।
  • ত্রিপাঠীর হাতে চোট লেগেছে। মাঠে এলেন কেকেআরের ফিজিয়ো। বেশ যন্ত্রণায় দেখা যাচ্ছে।
  • পঞ্চম ওভারে উঠল ১৪ রান। ওভারে তিনটে চার মারলেন শুভমন গিল।  ৫ ওভারে কেকেআরের স্কোর বিনা উইকেটে ৪২।
  • দারুণ শট। টি নটরাজনের লেংথ বলে মিড অফের উপর দিয়ে ছক্কা মারলেন রাহুল ত্রিপাঠী।
  • ঢিমে গতিতে শুরু কেকেআরের। প্রথম ২ ওভারে উঠল ১২ রান। বাসিল থাম্পির ওভারে যে ক্যাচ পড়ল, তার সুবিধা কি নিতে পারবেন শুভমন?
  • ম্যাচের শুরুতেই জীবনদান পেলেন শুভমন গিল। খুব ভালো বল ছিল না। কিন্তু রশিদ খানের কাছে সোজা সেই বল গিয়েছিল। কিন্তু বল ধরে রাখতে পারলেন না। তাঁর ইঙ্গিত দেখে মনে হল সম্ভবত বল দেখতে পারেননি।
  • অন্যদিনের তুলনায় কিছুটা হাত খুলে খেলার ইঙ্গিত দিলেন গিল। আর রাহুল ত্রিপাঠী প্রথম বলেই দুরন্ত চার মারলেন। প্রথম ওভারে কেকেআরের স্কোর বিনা উইকেটে ৬ রান।
  • শুরু হল লড়াই। গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচ হতে চলেছে। ওপেনিংয়ে নামলেন রাহুল ত্রিপাঠী ও শুভমন গিল। এতদিন পাওয়ার প্লে'তে মাত্র ৭.১ হারে রান তুলেছে। বল হাতে শুরু করছেন সন্দীপ শর্মা।
  • টস হারলেন মর্গ্যান, ছাড়পত্র পেলেও নারিনকে মাঠে নামাল না কেকেআর
  • রাহুল ত্রিপাঠী ও শুভমন গিল খুব একটা খারাপ ফর্মে না থাকলেও পাওয়ার প্লে'তে একেবারেই রান তুলতে পারছেন না। রবিবার কি কেকেআরের হয়ে ভালো শুরু করতে পারবেন?
  • খলিল আহমেদের পরিবর্তে দলে এলেন বাসিল থাম্পি। সানরাইজার্স হায়দরবাদের প্রথম একাদশ : ডেভিড ওয়ার্নার, জনি বেয়ারস্টো, মণীশ পান্ডে, কেন উইলিয়ামসন, প্রিয়ম গর্গ, বিজয় শংকর, আবদুল সামাদ, রশিদ খান, সন্দীপ শর্মা, টি নটরাজন এবং বাসিল থাম্পি।
  • ইয়ন মর্গ্যান : আমাদের মূল বিষয়গুলির উন্নতি করতে হবে। গত ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বিরুদ্ধে আমরা সেটা করতে পারিনি। জোড়া পরিবর্তন করেছি আমরা। কুলদীপ ও লকি খেলচেন। আমরা সুনীলকে ফিরিয়ে আনা নিয়ে তাড়াহুড়ো করতে চাইনি। আমরা তাঁকে কিছু সময় দিতে চাই।
  • ছাড়পত্র পেয়েছিলেন সুনীল নারিন। কিন্তু তাঁকে দলে নিল না কেকেআর। দলে সুযোগ পেলেন লকি ফার্গুসন এবং কুলদীপ যাদব। অর্থাৎ বাদ পড়লেন ক্রিস গ্রিন এবং প্রসিধ কৃষ্ণা। কলকাতা নাইট রাইডার্সের প্রথম একাদশ : রাহুল ত্রিপাঠী, শুভমন গিল, নীতিশ রানা, ইয়ন মর্গ্যান, দীনেশ কার্তিক, আন্দ্রে রাসেল, প্যাট কামিন্স, লকি ফার্গুসন, কুলদীপ যাদব, শিবম মাভি এবং বরুণ চক্রবর্তী।
  • আবুধাবিতে টসে জিতে প্রথমে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিল সানরাইজার্স হায়দরাবাদ।
  • চতুর্থ বিদেশি কে? নারিন ফিরবেন? ওয়ার্নারদের বিরুদ্ধে KKR-এর সম্ভাব্য প্রথম একাদশ

বন্ধ করুন