বাংলা নিউজ > ময়দান > IPL 2021 Auction : কোন কোন ভারতীয় খেলোয়াড়কে নিলামে নিতে পারে KKR? কী কারণেই বা নেবে? দেখে নিন
দুর্বল রিজার্ভ বেঞ্চকে শক্তিশালী করতে হবে কেকেআরকে। (ফাইল ছবি, সৌজন্য আইপিএল)
দুর্বল রিজার্ভ বেঞ্চকে শক্তিশালী করতে হবে কেকেআরকে। (ফাইল ছবি, সৌজন্য আইপিএল)

IPL 2021 Auction : কোন কোন ভারতীয় খেলোয়াড়কে নিলামে নিতে পারে KKR? কী কারণেই বা নেবে? দেখে নিন

  • গতবার রিজার্ভ বেঞ্চের দুর্বলতা বেশ ভুগিয়েছিল কেকেআরকে। বিশেষত হাতে ভালো ভারতীয় ক্রিকেটারদের বিকল্প ছিল না।

ইতিমধ্যে আইপিএলের মিনি নিলামের খেলোয়াড়দের চূড়ান্ত তালিকা প্রকাশ হয়েছে। সবমিলিয়ে ১৬৪ জন ভারতীয় খেলোয়াড় সেই তালিকায় আছেন। একাধিক শূন্যস্থান ভরাট করতে কয়েকজন ভারতীয়কে দলে নেওয়ার চেষ্টা করবে কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর)। 

আপাতত কেকেআরের হাতে ১০.৭৫ কোটি টাকা আছে। দু'জন বিদেশ -সহ মোট আটজন খেলোয়াড় নিতে পারেন নাইটরা। গতবার রিজার্ভ বেঞ্চের দুর্বলতা বেশ ভুগিয়েছিল কেকেআরকে। বিশেষত হাতে ভালো ভারতীয় ক্রিকেটারদের বিকল্প ছিল না। এবার সেই খামতি ঢাকতে চাইবেন তাঁরা। সেক্ষেত্রে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে পারফরম্যান্সের নিরিখে কোন কোন ভারতীয় খেলোয়াড়ের জন্য ঝাঁপাতে পারে কেকেআর ম্যানেজমেন্ট, তা দেখে নিন একনজরে -

১) অভি ব্যারট (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : এবার সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফির শুরু থেকেই ভালো ফর্মে ছিলেন। শেষপর্যন্ত পাঁচ ম্যাচে ২৮৩ রান করে টুর্নামেন্টের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় চতুর্থ স্থানে আছেন। স্ট্রাইক রেটও দারুণ - ১৮৪.৯৬। হাঁকিয়েছেন ৩২ টি বাউন্ডারি এবং ১২ টি ছক্কা। তার মধ্যে গোয়ার বিরুদ্ধে ১২২ রান এবং বিদর্ভের বিরুদ্ধে ৯৩ রানের ইনিংস খেলেছেন। 

কেকেআরকে এমনিতেই এবার ভারতীয় উইকেটকিপার নিতে হবে। সেই হিসেবে ভালো বিকল্প হতে পারেন সৌরাষ্ট্রের ব্যাটসম্যান। সেই সঙ্গে ওপেনও করেছেন। ফলে ওপেনিংয়ে শুভমন গিলের সঙ্গী হতে পারেন। যদিও গতবার গিলের সঙ্গে ওপেন করেছিলেন নীতিশ রানা। কেকেআর সেই কম্বিনেশন না ভাঙতে চাইলেও উইকেটকিপার এবং মারকুটে ব্যাটসম্যান হিসেবে ব্যারটকে নিলাম নিতে পারে কেকেআর।

২) কেদার দেভধর (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : কেকেআরের নজরে থাকতে পারেন বরোদার অধিনায়কও। যিনি বিভিন্ন কারণে সহ-অধিনায়ক দীপক হুডা এবং অধিনায়ক ক্রুনাল পান্ডিয়া দল ছেড়ে যাওয়ার পর বরোদার অধিনায়কত্বের ব্যাটন তুলে নিয়েছিলেন। সেখান থেকে টুর্নামেন্টের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হয়েছেন। আট ম্যাচে করেছেন ৩৪৯ রান। সেমিফাইনালে পঞ্জাবের বিরুদ্ধে  ৪৯ বলে ৬৪ রানের ইনিংস খেলেছিলেন। মহারাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অপরাজিত ৯৯ রান করেছিলেন। ধারাবাহিকতা থাকলেও তাঁর স্ট্রাইক রেট (১১৩.৬৮) নিয়ে প্রশ্ন আছে। 

যদিও কেকেআরের কাছে ভালো বিকল্প হতে পারেন তিনি। বরোদার হয়ে ওপেন করেছেন। ফলে দেভধরের উপস্থিতিতে কেকেআরের ওপেনিংয়ে বিকল্প বাড়বে। সঙ্গে উইকেটকিপারও তিনি।

৩) চেতন সাকারিয়া (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : কেকেআরে একাধিক ভারতীয় পেস বোলার আছেন। কিন্তু তাঁদের মধ্যে ধারাবাহিকতার অভাব স্পষ্ট। সেই অভাব পূরণ করতে পারেন ২৩ বছরের সাকারিয়া। যিনি এবার সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে সৌরাষ্ট্রের হয়ে পাঁচ ম্যাচে ১২ উইকেট নিয়েছেন। ইকোনমি রেট মাত্র ৪.৯। বিদর্ভের বিরুদ্ধে মাত্র ১১ রানে পাঁচ উইকেট নিয়েছিলেন। ফলে বাঁ-হাতি পেসারকে বাড়তি বিকল্প হিসেবে তাঁকে নিলামে কিনতে পারে কেকেআর।

৪) বিবেক সিং (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : অপরাজিত ৫৪ এবং অপরাজিত ১০০ - দুরন্তভাবে এবারের ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টের শুরু করেছিলেন বাংলার ব্যাটসম্যান। তবে শেষ তিন ম্যাচে কিছুটা খেই হারিয়ে ফেলেন। তা সত্ত্বেও পাঁচ ম্যাচে ২০৮ রান করেছেন। স্ট্রাইক রেটও চোখধাঁধানো - ১৫৭.৫৭। ফলে ওপেনিংয়ের বিকল্প ক্রিকেটার হিসেবে দলে নিতে পারে কেকেআর।

৫) রাহুল গহলৌত (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : কেকেআরের ঠাসা মিডল-অর্ডারে জায়গা পাওয়ার সম্ভাবনা অত্যন্ত কম। তবে এবার এবার সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে ধারাবাহিকতার বিষয়টি বিবেচনা করে তিন নম্বর জায়গায় বিকল্প হিসেবে তাঁকে দলে নিতে পারে কেকেআর। এমনিতে সদ্য সমাপ্ত ঘরোয়া টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্টে পাঁচ ম্যাচে ২৪৪ রান করেছেন। তিনি অর্ধশতরানও আছে ঝুলিতে। স্ট্রাইক রেট প্রায় ১৭৭। 

৬) প্রেরক মানকড় (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : কেকেআরে ভারতীয় অলরাউন্ডারের ব্যাপক অভাব আছে। সেই শূন্যস্থান পূরণ করতে পারেন সৌরাষ্ট্রের অলরাউন্ডার। পাঁচ ম্যাচে ২০৫ রান করেছেন। তিনটি অর্ধশতরান হাঁকিয়েছেন। স্ট্রাইক রেট ১৮১.৪১। সেইসঙ্গে পাঁচ ম্যাচে ছ'উইকেট নিয়েছেন। বিদর্ভের বিরুদ্ধে ৪৮ রানে চার উইকেট নেন। 

৭) বিষ্ণু সোলাঙ্কি (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে শুরুটা ভালো হয়নি। শেষপর্যন্ত চারটি ম্যাচে ৪০ রানের গণ্ডি পেরিয়েছেন। সঙ্গে দুটি অর্ধশতরান করেছেন। সবমিলিয়ে আট ম্যাচে ২৬৭ পান করেছেন। ফাইনালে কঠিন পিচে ৪৯ রান করেছেন বরোদার ব্যাটসম্যান। স্ট্রাইক রেট ১৩০-এর কাছাকাছি। কোয়ার্টার-ফাইনালে হরিয়ানার বিরুদ্ধে ছয় মেরে জিতিয়েছিলেন। সেইসব ছাপিয়েও তাঁর হেলিকপ্টার শট জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। 

তিন নম্বরে কেকেআরের বিকল্প হতে পারেন। ম্যাচ যে শেষ করতে পারেন, সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে সেই প্রমাণও দিয়েছেন। ফলে কেকেআরের দুর্বল রিজার্ভ বেঞ্চের শক্তিও বাড়বে।

৮) আকাশ দ্বীপ (বেস প্রাইজ ২০ লাখ) : বাংলার জার্সিতে সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফিতে খুব একটা খারাপ পারফরম্যান্স করেননি। পাঁচ ম্যাচে সাত উইকেট নিয়েছেন। ইকোনমি রেট ৭.৫। বিকল্প বোলার হিসেবে তাঁকে নিলামে টার্গেট করতে পারে কেকেআর।

বন্ধ করুন