বাংলা নিউজ > ময়দান > IPL 2021: মিনি নিলামে সবথেকে কম টাকা, অথচ ফাঁকা জায়গা ৮, KKR-র কৌশলে উঠছে প্রশ্ন
এখনও আটজন খেলোয়াড়ের জায়গা ফাঁকা পড়ে আছে কেকেআরের। (ফাইল ছবি, সৌজন্য আইপিএল)
এখনও আটজন খেলোয়াড়ের জায়গা ফাঁকা পড়ে আছে কেকেআরের। (ফাইল ছবি, সৌজন্য আইপিএল)

IPL 2021: মিনি নিলামে সবথেকে কম টাকা, অথচ ফাঁকা জায়গা ৮, KKR-র কৌশলে উঠছে প্রশ্ন

  • কেকেআরের মতো সমান অর্থ আছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। কিন্তু ওয়ার্নারদের মাত্র তিনটি জায়গা ভরাট করতে হবে।

এখনও আটজন খেলোয়াড়ের জায়গা ফাঁকা পড়ে আছে। কিন্তু আইপিএলের মিনি নিলামের জন্য হাতে আছে মাত্র ১০.৭৫ কোটি টাকা। ফলে দলে একগুচ্ছ শূন্যতা থাকা সত্ত্বেও কোন রণনীতি নিয়ে কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর) মিনি নিলামে নামতে চলেছে, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে।

ত্রয়োদশ আইপিএলের শেষপর্যন্ত প্লে-অফের লড়াই থাকলেও কেকেআরের দৈন্যদশা প্রকট হয়ে উঠেছিল। দলের রিজার্ভ বেঞ্চের অবস্থা রীতিমতো খারাপ ছিল। ফলে কখনওই প্রথম একাদশের কম্বিনেশন ঠিক হয়নি। প্রথম একাদশের কেউ চোট পেলে পরিবর্ত খুঁজেও বের করা যায়নি। সেই পরিস্থিতি থেকে এবার রিজার্ভ বেঞ্চ শক্তিশালী করার প্রয়োজন ছিল কেকেআরের। ভারতীয় পেস বোলার, উইকেটরক্ষক-সহ কয়েকজনকে নিলামে কিনতে হবে। কিন্তু আদৌও সেই কাজটা সম্ভব হবে কিনা, তা নিয়ে ধোঁয়াশা আছে।

মিনি নিলামের আগে কেকেআরের ঝুলিতে আছে ১০.৭৫ কোটি টাকা। যা আইপিএলের আট দলের মধ্যে যুগ্মভাবে সর্বনিম্ন। কেকেআরের মতো সমান অর্থ আছে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের। কিন্তু সেই টাকা দিয়ে ডেভিড ওয়ার্নাররা অনেক সুবিধাজনক জায়গায় আছেন। কারণ দলে আর মাত্র তিনজনের জায়গা পড়ে আছে। তার ফলে অঙ্কের হিসাবে কম অর্থ থাকলেও বেশি ভালো খেলোয়াড় কেনার সুযোগ আছে সানরাইজার্সের সামনে। 

অন্যদিকে যে দলগুলির আট বা তার বেশি জায়গা ফাঁকা আছে, তাদের হাতে ঢের বেশি টাকা আছে। ১৩ জন খেলোয়াড়ের জন্য ৩৫.৯ কোটি টাকা আছে রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের হাতে। আটজনের জন্য ৩৪.৮৫ টাকা আছে রাজস্থান রয়্যালসের ঝুলতে। ফলে কোনও খেলোয়াড় কেনার জন্য নিলামের শুরু থেকেই পিছিয়ে শুরু করবে কেকেআর। 

স্বভাবতই একাংশের বক্তব্য, কয়েকজন খেলোয়াড়ের পিছনে বেশি টাকা ঢেলে দলের ভারসাম্য তৈরি হচ্ছে না। আর ওই ১০.৭৫ কোটি টাকায় আদৌও কি দলের ফাঁক ভরাট করা যাবে? কারণ ভালো খেলোয়াড় কেনার জন্য সেই অঙ্কটা মোটেও যথেষ্ট নয়। আর যদিও বা কয়েকজন খেলোয়াড়ের জায়গা ফাঁকা রাখা হয়, তাহলে আদৌও কি দলের গভীরতা বাড়বে? সেক্ষেত্রে গত মরশুমের মতো দুর্বল রিজার্ভ বেঞ্চের কারণে ভুগতে হবে নাইটদের। 

যদিও কেকেআরের সিইও বেঙ্কি মাইসোরের দাবি, ‘দীর্ঘদিন ধরেই ছোটো দল করে এসেছে কেকেআর। মিনি নিলামে টুকটাক ফাঁক ভরাট করা হয়। আমরা বেশি বড়সড় পরিবর্তন করতে চাই না। কেকেআরের দলে যথেষ্ট ভারাসাম্য আছে।’

বন্ধ করুন