বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2023 > GT vs MI: টাইটান্সের ডেরায় অপ্রতিরোধ্য নন হার্দিকরা, ঘরের মাঠ হলেও লড়াই হবে সেয়ানে সেয়ানে

GT vs MI: টাইটান্সের ডেরায় অপ্রতিরোধ্য নন হার্দিকরা, ঘরের মাঠ হলেও লড়াই হবে সেয়ানে সেয়ানে

হার্দিক পাণ্ডিয়া এবং রোহিত শর্মা।

আমদাবাদ গুজরাট টাইটান্সের ঘাঁটি হলেও, তারা সেখানে একেবারে অপ্রতিরোধ্য নয়। এই স্টেডিয়ামে এই মরশুমে ৭টি ম্যাচের মধ্যে টাইটান্স চারটিতে জিতলেও, তিনটিতে হেরেছে। যদিও মুম্বই আমদাবাদে এসে তাদের এ বারের লিগ পর্বের ম্যাচে বাজে ভাবে হেরেছিল। সেই বদলাটা নেওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে থাকবে রোহিতের দল।

এলিমিনেটর ম্যাচে লখনউ সুপার জায়ান্টসের বিরুদ্ধে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের আকাশ মাধওয়ালের অসাধারণ বোলিং পারফরম্যান্সের ঘোর এখনও কাটেনি। চেন্নাইয়ের এমএ চিদাম্বরম স্টেডিয়ামে তাঁর পাঁচ রানে পাঁচ উইকেট মুম্বইয়ের ৮১ রানে বড় জয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে। এই রকম অসাধারণ পারফরম্যান্সের পর ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন গুজরাট টাইটান্সের বিপক্ষে কোয়ালিফায়ার-টুয়ের ম্যাচের আগে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স নিশ্চিত ভাবেই উজ্জীবিত থাকবে এবং তাদের আত্মবিশ্বাসও অনেকটাই বেড়ে গিয়েছে।

শুক্রবার আমদাবাদের বিশ্বের বৃহত্তম স্টেডিয়ামে মুম্বই ইন্ডিয়ান্স এবং গুজরাট টাইটান্সের মধ্যে কোয়ালিফায়ার-টু-র ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হতে চলেছে। পাঁচ বার আইপিএল চ্যাম্পিয়ন হওয়া মুম্বই ইন্ডিয়ান্স জিততে মরিয়া হয়ে রয়েছে। এ দিকে ঘরের মাঠে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নরাও সহজে হাল ছাড়বে না।

আইপিএলে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের শক্তিশালী ট্র্যাক রেকর্ড, তাদের সাম্প্রতিক জয় এবং আকাশ মাধওয়ালের দুর্দান্ত পারফরম্যান্স বিবেচনা করে, তারা অবশ্যই তাদের জয়ের গতিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাইবে। তবে, ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন হিসেবে গুজরাট টাইটান্সও শক্ত চ্যালেঞ্জ ছুঁড়ে দেবে।

আরও পড়ুন: বিশেষজ্ঞদের 2023 IPL-এর একাদশে নেই কোহলি-রোহিত-জাদেজারা, নাম নেই KKR-এর এক জনেরও

আইপিএলের ২০২২ সংস্করণে লাস্টবয় হওয়া রোহিত শর্মা ব্রিগেড এই বছর ষষ্ঠ আইপিএল শিরোপা জয়ের বড় দাবীদার হয়ে উঠেছে। ক্যামেরন গ্রিন, সূর্যকুমার যাদব এবং টিম ডেভিডের মতো খেলোয়াড়রা ভালো ছন্দে রয়েছেন। এবং এখন ব্যাটিং বিভাগের মেরুদণ্ড তৈরি করেছেন তরুণ নেহাল ওয়াধেরাও। তিনি প্রতি ম্যাচেই নিজের প্রভাব বিস্তার করছেন। রোহিত এবং ইশান কিষাণের ওপেনিং জুটিও পায়ের তলার জমি ধীরে ধীরে খুঁজে নিচ্ছে।

নিঃসন্দেহে মুম্বইয়ের ব্যাটাররা টাইটান্সের বোলারদের কঠিন পরীক্ষার মুখে ফেলবে। গুজরাটের বোলিংয়ের নেতৃত্বে রয়েছেন মহম্মদ শামি (১৫ ম্যাচে ২৬ উইকেট)। এ ছাড়াও রশিদ খান, নূর আহমেদ, মোহিত শর্মারাও রয়েছেন।

গুজরাট টাইটান্স আবার মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংসের কাছে কোয়ালিফায়ার-ওয়ানে হেরে গিয়েছে। তবে ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়নদের জন্য শুক্রবার অপরিহার্য সুযোগ থাকবে টানা দ্বিতীয় বার ফাইনালে ওঠার। কারণ ম্যাচটা ঘরের মাঠে। পুরো সমর্থন পাবে টাইটান্স।

এই মুহূর্তে গুজরাটের শুভমন গিল এবং বিজয় শঙ্কর গত কয়েকটি ম্যাচে ব্যাট হাতে আক্রমণাত্মক মেজাজে রয়েছেন। শুভমন গিল হয়তো সিএসকে-র বিরুদ্ধে ততটা ভালো খেলতে পারেননি। তবে লিগ রাউন্ডের শেষ পর্যায়ে তাঁর দু'টি সেঞ্চুরিকে ভুললে চলবে না। তিনি মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের কাছে বড় থ্রেট।

আরও পড়ুন: মেজর লিগে নাইট রাইডার্সের বড় অঙ্কের টোপ, ECB-র চুক্তি থেকে বের হতে চলেছেন জেসন রয়

১৫ ম্যাচে ৫৫.৫৩ গড়ে ৭২২ রান করে ফেলেছেন। দু'টি সেঞ্চুরি এবং চারটি অর্ধশতরান রয়েছে তাঁর ঝুলিতে। আইপিএলে এই মুহূর্তে সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক আরসিবি-র ফ্যাফ ডু প্লেসির গাড়ে নিঃশ্বাস ফেলছেন শুভমন। এবং ফ্যাফকে ছাড়িয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা বেশি রয়েছে তাঁর।

তবে টাইটান্সরা তাদের অধিনায়ক হার্দিক পাণ্ডিয়ার থেকে আরও বেশি প্রত্যাশা করছে। তিনি এ বার সে অর্থে ভালো ফর্মে নেই। টাইটান্সের লোয়ার মিডল-অর্ডারে ডেভিড মিলারও এই মরশুমে একটিও হাফসেঞ্চুরি করতে পারেননি। এবং শেষ তিনটি ম্যাচে তিনি দুই অঙ্কের ঘরেও পৌঁছতে পারেননি।

শুক্রবার রাতে আমদাবাদের নরেন্দ্র মোদী স্টেডিয়ামে তৃতীয় বারের জন্য গুজরাট এবং মুম্বই মুখোমুখি হতে চলেছে। দুই দলই আগের ২টি ম্যাচের ম্যাচের মধ্যে একটি করে জিতেছে। যা পরিস্থিতি তাতে দুই দলের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে ঠিকই। তবে আমদাবাদ গুজরাট টাইটান্সের ঘাঁটি হলেও, তারা সেখানে একেবারে অপ্রতিরোধ্য নয়। এই স্টেডিয়ামে এই মরশুমে ৭টি ম্যাচের মধ্যে টাইটান্স চারটিতে জিতলেও, তিনটিতে হেরেছে। যদিও মুম্বই আমদাবাদে এসে তাদের এ বারের লিগ পর্বের ম্যাচে বাজে ভাবে হেরেছিল। সেই বদলাটা নেওয়ার জন্য মরিয়া হয়ে থাকবে রোহিতের দল।

বন্ধ করুন