বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > ‘CAB-এর আচরণে অপমানিত, তাই বাংলা ছাড়তে চায়’, স্পষ্ট দাবি ঋদ্ধির স্ত্রী-র

‘CAB-এর আচরণে অপমানিত, তাই বাংলা ছাড়তে চায়’, স্পষ্ট দাবি ঋদ্ধির স্ত্রী-র

ঋদ্ধিমান সাহা এবং রোমি সাহা।

ঋদ্ধিমান সাহার বাংলা ছাড়ার কথা এ বার স্পষ্ট করে জানিয়ে দিলেন তাঁর স্ত্রী রোমি সাহা। রঞ্জির প্রথম পর্বে না খেলায় সিএবি-র যুগ্মসচিব ঋদ্ধির দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। এই ঘটনার পর আবার ঋদ্ধির সঙ্গে কোনও রকম আলোচনা ছাড়াই রঞ্জির নক আউট পর্বের দলে নাম রাখা হয় তাঁর। সেটাই হজম করতে পারেননি তিনি।

বাংলার তারকা উইকেটকিপার ব্যাটার ঋদ্ধিমান সাহা এখন আইপিএল নিয়ে ব্যস্ত। ইতিমধ্যে গুজরাট টাইটানসের জার্সিতে তিনি নজর কেড়েছেন। তাঁর পারফরম্যান্স নিয়ে উচ্ছ্বসিত ক্রিকেট মহল। এর মধ্যেই আবার তাঁকে ঘিরে বাংলা ক্রিকেটে আলোড়ন ছড়িয়ে পড়েছে। হঠাৎ করেই জানা গিয়েছে, ঋদ্ধিমান সাহা নাকি আর বাংলা ক্রিকেটের সঙ্গে যুক্ত থাকতে রাজি নন। বাংলার হয়ে আর তিনি খেলবেন না। তিনি নাকি অন্য রাজ্যের হয়ে খেলার জন্য সিএবি-র থেকে ছাড়পত্রও চেয়েছেন।

তবে বিষয়টি নিয়ে সিএবি-র তরফে এখনও কিছু বলা হয়নি। ঋদ্ধি নিজেও এই নিয়ে কিছু খোলসা করেননি। তবে মঙ্গলবারই সূত্র মারফৎ জানা গিয়েছিল, ঋদ্ধি নাকি সিএবি কর্তাদের ব্যবহার এবং টিম নির্বাচনকে কেন্দ্র করে চূড়ান্ত অপমানিতবোধ করেছেন। তাই তিনি বাংলা ছেড়ে অন্য রাজ্যের হয়ে খেলবেন বলে চিন্তাভাবনা শুরু করে দিয়েছেন। 

এই বিষয় নিয়ে এ বার মুখ খুললেন ঋদ্ধিমান সাহার স্ত্রী রোমি সাহা। রোমি স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন, ‘ঋদ্ধিমানের সঙ্গে পরের পর যা ঘটেছে, সিএবি যা আচরণ করেছে, তাতে ও অপমানিত। সেই কারণেই বাংলার হয়ে আর খেলতে চায় না।’

এ দিকে সিএবি প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়া এই প্রসঙ্গে বলেছেন, ‘প্লেয়ার আর সংস্থার মধ্যে যে কথাবার্তা হয়, তা কঠোর ভাবে দু’পক্ষের মধ্যেই থাকা উচিত। এই সময় আমি কোনও মন্তব্য করব না।’

আরও পড়ুন: না জানিয়ে দলে নাম, রেগে গিয়ে বাংলা ছা়ড়তে চাইছেন অপমানিত ঋদ্ধিমান- রিপোর্ট

আসলে এই বছররে শুরু থেকে নানা বিষয় নিয়ে মানসিক ভাবে বিধ্বস্ত ছিলেন ঋদ্ধিমান সাহা। তার উপর আবার ভারতীয় দল থেকেও তাঁকে বিনা কারণেই বাদ দেওয়া হয়। এই সব নিয়ে এমনিতেই মুষড়ে পড়েছিলেন তিনি। যে কারণে রঞ্জির প্রথম পর্বে খেলেননি ঋদ্ধি। প্রথমে তাঁর খেলার কথা থাকলেও পরে তিনি সরে দাঁড়ান। ক্রিকেট মহলের খবর, সেই সময়ে সিএবি-র যুগ্মসচিব দেবব্রত দাস তাঁর দায়িত্ববোধ এবং দায়বদ্ধতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন। তখন বিষয়টি নিয়ে মুখ না খুললেও, সেই ক্ষোভেরউ বহিঃপ্রকাশ এ বার হল বলে অনেকের ধারণা।

এই ঘটনার পর আবার ঋদ্ধির সঙ্গে কোনও রকম আলোচনা না করেই, রঞ্জির নক আউট পর্বের জন্য দলে নামও রাখা হয়েছে তাঁর। সেটাই হজম করতে পারেননি তারকা কিপার। তিনি নাকি সিএবি প্রেসিডেন্ট অভিষেক ডালমিয়ার কাছে আগেই, দেবব্রত দাসের করা এই মন্তব্য নিয়ে বিহিত চেয়েছিলেন। তিনি নাকি দাবি করেছিলেন, এর জন্য সিএবি-র যুগ্মসচিবকে প্রকাশ্যে ঋদ্ধির থেকে ক্ষমা চাইতে হবে। সেই ক্ষমা তো দেবব্রতবাবু এখনও চাননি, সেই সঙ্গে আবার তাঁর সঙ্গে আলোচনা ছাড়াই রঞ্জির নক আউটের জন্য বাংলা দলে নাম রাখা হয়েছে তাঁর। আর এতেই সবচেয়ে বেশি অপমানিত হয়েছেন ঋদ্ধি। আর তাই বাংলা ছাড়ার ভাবনা।

বন্ধ করুন