বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2021 > IPL 2021: ‘আমাদের কোনও ভুলই ছিল না’, কৃষ্ণ না নিজেকে আড়াল করছেন KKR অধিনায়ক?
ধোনিদের বিরুদ্ধে ম্যাচ হারের পরও দলের কোনও ভুলত্রুটি খুঁজে পাননি মর্গ্যান।
ধোনিদের বিরুদ্ধে ম্যাচ হারের পরও দলের কোনও ভুলত্রুটি খুঁজে পাননি মর্গ্যান।

IPL 2021: ‘আমাদের কোনও ভুলই ছিল না’, কৃষ্ণ না নিজেকে আড়াল করছেন KKR অধিনায়ক?

  • একটা সময়ে ১২ বলে ২৬ রান দরকার ছিল। আর সেখান থেকেই ম্যাচ ঘুরে যায়। ১৯তম ওভারে বল করতে এসে প্রসিধ কৃষ্ণ ২২ রান দিয়ে ফেলেন। আর তখনই ম্যাচ হাতের থেকে বের হয়ে যায় নাইটদের।

রবিবার নাইট বনাম সুপার কিংসের লডা়ইটা পুরো পেন্ডুলামের মতোই সমানে দু'দিকে দুলে গিয়েছে। কখনও মনে হয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস জিতবে, কখনও আবার ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের পাল্লা ভারি হয়েছে। শেষ দু'টি ওভারে চূড়ান্ত নাটক হল। তবে শেষ হাসি হেসেছেন চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিই। আর এই ম্যাচ হারের পর খলনায়ক হয়ে গিয়েছেন নাইটদের প্রসিধ কৃষ্ণ। আর ৮ বলে ২২ রান করে ম্যাচের রং বদলে দিয়ে এ দিনের হিরো রবীন্দ্র জাদেজা।

একটা সময়ে ১২ বলে ২৬ রান দরকার ছিল। আর সেখান থেকেই ম্যাচ ঘুরে যায়। ১৯তম ওভারে বল করতে এসে প্রসিধ কৃষ্ণ ২২ রান দিয়ে ফেলেন। আর তখনই ম্যাচ হাতের থেকে বের হয়ে যায় নাইটদের। শেষ ওভারে অবশ্য সুনীল নারিন ২ উইকেট নেন। তাতে শেষ রক্ষা হয়নি। কারণ শেষ ওভারে মাত্র ৪ রান করলেই জিতে যেত চেন্নাই। তবু চেষ্টা চালিয়েছিলেন সুনীল নারিন। শেষ বলে ১ রান বাকি ছিল। এই অবস্থায় ২ উইকেটে ম্যাচ জিতে যায় সিএসকে।

অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন, ম্যাচের গুরুত্বপূর্ণ সময়ে নারিনকে বল না দিয়ে, কেন ১৯তম ওভারে কৃষ্ণকে বল দিলেন ইয়ন মর্গ্যান। তাঁর এই ভুলের জন্যই রবিবার হারতে হয়েছে কলকাতার দলকে। মর্গ্যান অবশ্য বলেছেন, ‘দু'দলই ব্যাট এবং বল ভালো করেছে। বিশেষত বল দু'দলই খুব ভাল করেছে। আমি আমাদের তরফের কোনও ভুলত্রুটি খুঁজে পাইনি। আইপিএলের দ্বিতীয় পর্বে আমাদের জন্য অনেক পজিটিভ দিক রয়েছে। আমাদের শুধু নিজেদের সেরাটা দিয়ে যেতে হবে।’

এর সঙ্গেই তিনি যোগ করেছেন, ‘ফাইনাল ওভারের দায়িত্ব নিয়েছিল সুনীল। তাই প্রসিধ কৃষ্ণ (১৯তম ওভারে) বল করেছিলেন। আমি আশা করছি দ্রে (আন্দ্রে রাসেল) ঠিক রয়েছে। পুরো টুর্নামেন্টেই বিশ্বমানের ক্রিকেটাররা খেলেন। তবে জাদেজা যখন এ ভাবে খেলেন, অনেকটা ইংল্যান্ডের স্যাম কারানের মতো, তখন আমার মনে হয়ে, আর কিছু করার থাকে না।’

প্রথমে ব্যাট করে নাইট রাইডার্স ৬ উইকেটে ১৭১ রান করেছিল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাইয়ের দুই ওপেনার ফ্যাফ ডু'প্লেসি এবং রুতুরাজ গায়কোয়াড় অসাধারণ শুরু করেছিলেন। প্রথম উইকেটে তারা ৭৪ রান যোগ করেন। ২৮ বলে ৪০ করেন রুতুরাজ এবং ৩০ বলে ৪৩ করেন ফ্যাফ। কিন্তু ওপেনিং জুটি আউট হওয়ার পরেই কলকাতা ধীরে ধীরে ম্য়াচে প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করে। একটা সময়ে ১৭.৩ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৪২ রান ছিল চেন্নাইয়ের। ১৫ বলে ৩০ রান বাকি ছিল। এই পরিস্থিতিতে পাশা বদলে দেন জাড্ডু।

বন্ধ করুন