বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2021 > IPL 2021: কয়েক মাস আগে ভাইয়ের আত্মহত্যার খবরে খাওয়াদাওয়া ছেড়ে দিয়েছিলেন চেতন
ময়াঙ্ক আগরওয়ালের উইকেট নেওয়ার পর চেতন শাকারিয়াকে ঘিরে সেলিব্রেশন রাজস্থানের। ছবি: এএনআই
ময়াঙ্ক আগরওয়ালের উইকেট নেওয়ার পর চেতন শাকারিয়াকে ঘিরে সেলিব্রেশন রাজস্থানের। ছবি: এএনআই

IPL 2021: কয়েক মাস আগে ভাইয়ের আত্মহত্যার খবরে খাওয়াদাওয়া ছেড়ে দিয়েছিলেন চেতন

  • চেতন শাকারিয়া আইপিএল সুযোগ পাওয়ার পরে, এখন রাজকোটে নিজেদের একটি বাড়ির স্বপ্ন দেখেন তাঁর মা। আইপিএলে চেতনকে ১.২০ কোটি টাকা দিয়ে দলে নিয়েছে রাজস্থান রয়্যালস।

এক মাস আগে নিজের ছোট ভাইকে হারিয়েছেন। আত্মহত্যা করেছিলেন চেতন শাকারিয়ার ছোট ভাই। তখন সৈয়দ মুস্তাক আলি ট্রফি চলছিল। সেই সময় তাঁর মা এই খবর তাঁকে দেননি। কিন্তু ১০দিন পর যখন ভাইয়ের মৃত্যু সংবাদ জানতে পারেন, তখন খাওয়াদাওয়া বন্ধ করে দিয়েছিলেন। প্রায় এক সপ্তাহ কারও সঙ্গে কোনও কথা বলেননি।

সেই চেতন শাকারিয়াই রাজস্থান রয়্যালসের হয়ে আইপিএলের প্রথম ম্যাচ খেলতে নেমে ৩ উইকেট তুলে নিয়েছে। কেএল রাহুল, ঝাই রিচার্ডনসন এবং ময়াঙ্ক আগরওয়ালকে আউট করেছেন। কিন্তু মনের ভিতর ভাইকে হারানোর যে তীব্র যন্ত্রণা লুকিয়ে রেখেছেন, তাতে কি আদৌ প্রলেপ পড়েছে?

শাকারিয়ার জীবনের অজানা গল্প বীরেন্দ্র সেহওয়াগ টুইটারে শেয়ার করেছেন। সেখানে চেতন শাকারিয়ার মায়ের একটি সাক্ষাৎকার পোস্ট করে সেহওয়াগ লিখেছেন, ‘কয়েক মাস আগে চেতন শাকারিয়ার ভাই আত্মহত্যা করেছিলেন। ওর বাবা-মা ওকে দশ দিন পর্যন্ত কোনও খবর জানায়নি। কারণ সেই সময় শাকারিয়া সৈয়দ মুস্তক আলি ট্রফি খেলছিলেন। ক্রিকেট কতটা গুরুত্বপূর্ণ এই তরুণ এবং তাঁর পরিবারের কাছে। আইপিএল হল ভারতীয়দের স্বপ্নপূরণের মাপকাঠি এবং কিছু কঠিন লড়াইয়ের গল্প। বড় সম্ভাবনা রয়েছে।’

একেবারেই নিম্নবিত্ত পরিবারের ছেলে চেতনের আইপিএলের মঞ্চ পর্যন্ত পৌঁছানোর লড়াইটা খুবই কঠিন ছিল। তাঁর বাবা ছিলেন লরি ড্রাইভার। কিন্তু তিনটি অ্যাক্সিডেন্টের পর এখন সম্পূর্ণ ভাবে শয্যাশায়ী। সংসার চালাতে ক্রিকেট খেলার পাশাপাশি মামার দোকানে কাজ করতেন শাকারিয়া। কিন্তু চেতন ক্রিকেট নিয়ে ব্যস্ত হয়ে যাওয়ার পর তাঁর ভাই সংসারের হাল ধরেছিলেন। সেই ভাইও আত্মহত্যা করেন। শকারিয়ার মা অবশ্য অনেক আগে থেকেই শাড়িতে এমব্রয়ডারির কাজ করতেন। সেটা করেই ছেলেদের পড়াশোনার খরচ জুগিয়েছেন।

চেতনের মা বলেছেন, ‘আমরা যে যন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে গিয়েছি, সে রকম যন্ত্রণা আর কেউ পেয়েছে বলে মনে হয় না। আমার ছোট ছেলে আত্মহত্যা করে। তখন চেতন সৈয়দ মুস্তাক আল ট্রফি খেলছে। ওকে কিছু জানাইনি আমি। ও ফোন করলে বলতাম, বাবার শরীরটা ভাল নয়। ভাইয়ের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে প্রসঙ্গ ঘুরিয়ে দিতাম। কিন্তু দশদিন পরে আমি আর নিজেকে আটকাতে পারিনি। ফোনের মধ্য ভেঙে পড়ি। ভাইয়ের মৃত্যুর খবর পেয়ে ও আমাদের সঙ্গে প্রায় এক সপ্তাহ কথা বলেনি। খাওয়াদাওয়াও ছেড়ে দিয়েছিল।’

চেতন শাকারিয়া আইপিএল খেলার সুযোগ পাওয়ার পরে এখন রাজকোটে নিজেদের একটি বাড়ির স্বপ্ন দেখেন তাঁর মা। আইপিএলে চেতনকে ১.২০ কোটি টাকা দিয়ে দলে নিয়েছে রাজস্থান রয়্যালস। আর তার পর থেকেই বড় ছেলেকে আঁকড়ে একটু ভাল ভাবে বাঁচার স্বপ্ন দেখছে শাকারিয়া পরিবার।

বন্ধ করুন