বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2021 > IPL 2021: ‘আমি শুধু নিজের খেলাটাই খেলেছি’, CSK-কে জেতানোর পর নির্লিপ্ত জাড্ডু
রবীন্দ্র জাদেজা।
রবীন্দ্র জাদেজা।

IPL 2021: ‘আমি শুধু নিজের খেলাটাই খেলেছি’, CSK-কে জেতানোর পর নির্লিপ্ত জাড্ডু

  • ১৯তম ওভারে বল করতে এসে প্রসিধ কৃষ্ণ ২২ রান দিয়ে ফেলেন। জাদেজা সেই ওভারে শেষ চারটি বলে পরপর দু'টি ৬ এবং পরপর দু'টি চার মারেন। আর এই ওভারে জাদেজার ঝড়ো ইনিংসের পরই নাইটদের হাত থেকে ম্যাচ বেরিয়ে যায়।

তিনি আসলেন, ঝড়ো ইনিংসে খেললেন, চেন্নাই সুপার কিংসকে জয়ের দিকে এগিয়ে দিলেন। সাত নম্বরে ব্যাট করতে নেমে রবীন্দ্র জাদেজার করা ৮ বলে ২২ রানই রবিবার চেন্নাইকে ম্যাচ জিততে সাহায্য করে। জাদেজার এই রানটা না হলে ধোনিদের পক্ষে কলকাতা নাইট রাইডার্সের ম্য়াচ জেতাটা সহজ হত না।

রবিবার নাইট বনাম সুপার কিংসের লড়াইটা পুরো ঘড়ির পেন্ডুলামের মতোই সমানে দু'দিকে দুলে গিয়েছে। কখনও মনে হয়েছে চেন্নাই সুপার কিংস জিতবে, কখনও আবার ম্যাচে কলকাতা নাইট রাইডার্সের পাল্লা ভারি হয়েছে। শেষ দু'টি ওভারে চূড়ান্ত নাটক হল। তবে শেষ হাসি হেসেছেন চেন্নাই অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনিই। আর সাত নম্বরে ব্যাট করতে নেমে ৮ বলে ২২ রান করে ম্যাচের রং বদলে দিয়ে এ দিনের হিরো রবীন্দ্র জাদেজা।

একটা সময়ে ১২ বলে ২৬ রান দরকার ছিল। আর সেখান থেকেই ম্যাচ ঘুরে যায়। ১৯তম ওভারে বল করতে এসে প্রসিধ কৃষ্ণ ২২ রান দিয়ে ফেলেন। জাদেজা সেই ওভারে শেষ চারটি বলে পরপর দু'টি ৬ এবং পরপর দু'টি চার মারেন। আর এই ওভারে জাদেজার ঝড়ো ইনিংসের পরই নাইটদের হাত থেকে ম্যাচ বেরিয়ে যায়। শেষ ওভারে অবশ্য সুনীল নারিন ২ উইকেট নেন। জাদেজাকেও আউট করেন। তাতে শেষ রক্ষা হয়নি। কারণ শেষ ওভারে মাত্র ৪ রান দরকার ছিল চেন্নাইয়ের। তবু চেষ্টা চালিয়েছিলেন সুনীল নারিন। শেষ বলে ১ রান বাকি ছিল। এই অবস্থায় ২ উইকেটে ম্যাচ জিতে যায় সিএসকে।

জাদেজা বল হাতে ১ উইকেটও নিয়েছিলেন। ৩৩ বলে ৪৫ রান করে রাহুল ত্রিপাঠি যখন বড় রানের লক্ষ্যে এগোচ্ছেন, তখন তাঁকে বোল্ড করেন জাদেজা। ম্যাচের পর জাড্ডু বলছিলেন, ‘দ্বিতীয় শেষ ওভারে যে রানটা হয়েছে, সেটাই আমাদের কাছে ম্যাচ জয়ের ওভার হয়ে গিয়েছে। তবে রুতু এবং ফ্যাফ শুরুটা খুব ভাল করেছিল। ব্যাট বা বল যাই হোক না কেন, সবাই মিলে লড়াই করলে সাফল্য পাওয়া যায়।’

এর সঙ্গেই জাদেজা যোগ করেছেন, ‘আমি নিজের খেলাটা খেলার চেষ্টা করেছি। ও (প্রসিধ) ফাইন লেগ এবং স্কোয়ার লেগে বোলিং করছিল। আমি ভেবেছিলাম, ও ফুল আউটসাইড অফ এবং স্লো শর্ট বল করবে। যাইহোক ভাল ভাবে ব্যাটে বলে হয়েছে। যে কারণে রান হয়েছে।’

প্রথমে ব্যাট করে নাইট রাইডার্স ৬ উইকেটে ১৭১ রান করেছিল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে চেন্নাইয়ের দুই ওপেনার ফ্যাফ ডু'প্লেসি এবং রুতুরাজ গায়কোয়াড় অসাধারণ শুরু করেছিলেন। প্রথম উইকেটে তারা ৭৪ রান যোগ করেন। ২৮ বলে ৪০ করেন রুতুরাজ এবং ৩০ বলে ৪৩ করেন ফ্যাফ। কিন্তু ওপেনিং জুটি আউট হওয়ার পরেই কলকাতা ধীরে ধীরে ম্য়াচে প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করে। একটা সময়ে ১৭.৩ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৪২ রান ছিল চেন্নাইয়ের। ১৫ বলে ৩০ রান বাকি ছিল। এই পরিস্থিতিতে পাশা বদলে দেন জাড্ডু।

বন্ধ করুন