বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > IPL 2022: পরের মরশুমে CSK-এর ফাস্ট বোলিং অনেক বেশি শক্তিশালী হবে, ইঙ্গিত ধোনির

IPL 2022: পরের মরশুমে CSK-এর ফাস্ট বোলিং অনেক বেশি শক্তিশালী হবে, ইঙ্গিত ধোনির

মহেন্দ্র সিং ধোনির চেন্নাই সুপার কিংস।

এই বছর দীপক চাহারের না থাকাটা নিঃসন্দেহে বড় ধাক্কা চেন্নাইয়ের কাছে। তারা চাহারের পরিবর্তও ঠিক করে খুঁজে পাইনি। তবে মুম্বই ম্যাচের পর দুই তরুণ ফাস্ট বোলার মুকেশ চৌধুরি এবং সিমরজিৎ সিং-এর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন ধোনি।

বৃহস্পতিবারের ম্যাচে মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের কাছে হেরে যাওয়ার পর চেন্নাই সুপার কিংসের প্লে-অফে ওঠার ক্ষীণ আশাটুকুও শেষ হয়ে গিয়েছে। মোদ্দা কথা হল, এর পরে চেন্নাই সুপার কিংস আইপিএলের বাকি ম্যাচ নেহাৎ-ই নিয়মরক্ষার জন্য খেলবে। কিন্তু তাদের আইপিএল অভিযান এ বারের মতো শেষ।

সে কারণেই সম্ভবত পরের মরশুম নিয়ে ভাবনাচিন্তা শুরু করে দিয়েছেন সিএসকে-র অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনি। তিনি ইতিমধ্যে ইঙ্গিত দিয়েছেন, পরের বার ফাস্ট বোলিং নিয়ে এখন থেকেই ভাবনাচিন্তা শুরু করে দিয়েছে সিএসকে। এমন কী পরের বার যে চেন্নাইয়ের ফাস্ট বোলিং শক্তিশালী হবে, সেই ইঙ্গিতও দিয়েছেন মাহি।

এই বছর দীপক চাহারের না থাকাটা নিঃসন্দেহে বড় ধাক্কা চেন্নাইয়ের কাছে। তারা চাহারের পরিবর্তও ঠিক করে খুঁজে পাইনি। তবে মুম্বই ম্যাচের পর দুই তরুণ ফাস্ট বোলার মুকেশ চৌধুরি এবং সিমরজিৎ সিং-এর উচ্ছ্বসিত প্রশংসা করেছেন ধোনি।

ধোনি মুম্বই ম্যাচের পর বলেছেন, ‘দুই তরুণ ফাস্ট বোলার সত্যিই ভালো বোলিং করেছে। যা একটি ইতিবাচক বিষয়। ভুলে গেলে চলবে না যে, আমাদের পরের মরসুমে আরও দু'জন ফাস্ট বোলার আসবে এবং আমাদের হাতে আরও কয়েক জন থাকবে।’

আরও পড়ুন: নিজেদের নাক আগেই কেটেছে, এ বার চেন্নাইয়ের যাত্রাভঙ্গ করল মুম্বই, ৫ উইকেটে হেরে প্লে-অফে ওঠার আশা শেষ ধোনিদের

আরও পড়ুন: গত বারের চ্যাম্পিয়নরা প্লে-অফেই উঠল না, জানুন CSK-এর ভরাডুবির ৫ কারণ

ধোনি আরও বলেছেন, ‘সুতরাং আমাদের কিছু ইতিবাচক দিক আছে যা আমরা পরের মরশুমে আরও ভালো ভাবে কাজে লাগাব। তবে গুরুত্বপূর্ণ হল, যে ফাঁকগুলি রয়েছে, সেই ফাঁকগুলি পূরণ করার চেষ্টা করব সবার আগে।’

এখানেই শেষ নয়। ধোনি বলে দিয়েছেন, ‘আমরা এমন একটা সময় পার করেছি, যখন বেঞ্চে সে ভাবে ফাস্ট বোলার ছিল না। সেই শক্তিটাই আমাদের ছিল না। তা ছাড়াও ফাস্ট বোলারদের ক্ষেত্রে যা হয়, তাদের পরিণত হতে সময় লাগে। আপনি যদি ভাগ্যবান হন, তবে আপনি এমন একজনকে পাবেন, যিনি ছয় মাসের মধ্যে টেস্ট ক্রিকেট, ওয়ানডে বা টি-টোয়েন্টি যাই হোক না কেন, সব ফর্ম্যাটে খেলে দেবে। আমি মনে করি, আইপিএল সেই জায়গাটা তৈরি করে দিচ্ছে। এটি ওদের জন্য একটি সুযোগ এবং ওরা একটু বেশি সাহসী হয়ে উঠছে, যা এই ধরনের ফরম্যাটে গুরুত্বপূর্ণ।’

বন্ধ করুন