বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > IPL 2022: রশিদের শট নাকি সাপের ছোবল, নিজেই বললেন GT তারকা
হার্দিকের তৎপরতায় রশিদের স্নেক শটের রহস্য উন্মোচন হল।
হার্দিকের তৎপরতায় রশিদের স্নেক শটের রহস্য উন্মোচন হল।

IPL 2022: রশিদের শট নাকি সাপের ছোবল, নিজেই বললেন GT তারকা

  • রশিদের শটটি অনেকটা মহেন্দ্র সিং ধোনির হেলিকপ্টার শটের মতো। কিন্তু ব্যাটারের মাথার উপর দিয়ে ব্যাট ঘুরে যাওয়ার পরিবর্তে, এটি খানিকটা স্প্রিং-এর মতো গতিতে বলটিকে মারে। যেমন মাথা নীচু করে সাপ ছোবল মেরে, খানিকটা স্প্রিং-এর মতো মাথাটি সরিয়ে নেয়, বিষয়টি সে রকম।

গুজরাট টাইটানসের (জিটি) অলরাউন্ডার রশিদ খান তাঁর অসাধারণ ট্রেডমার্ক শটটির একটি বিশেষ নামকরণ করেছেন। নাম দিয়েছেন ‘স্নেক শট’। যা বিশ্ব জুড়ে ক্রমশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে। এই নামটি দেওয়ার অনুপ্রেরণা হিসাবে সাপের ছোবল মারার গল্পই বলেছেন রশিদ।

দেখা গিয়েছে, স্নেক শট মারতে রশিদ কিছুটা এগিয়ে যান। শট মেরে আবার পিছিয়ে আসেন। এই ভঙ্গির কারণেই তিনি নাম দিয়েছেন স্নেক শট। সাপ যেমন ছোবল মারতে এগিয়ে যায় এবং তারপরে পিছিয়ে আসে, সেই থেকেই এমন নাম দিয়েছেন শটের।

বুধবার ওয়াংখাডে স্টেডিয়ামে সানরাইজার্স হায়দরাবাদের (এসআরএইচ) বিপক্ষে ১১ বলে অপরাজিত ৩১ করে গুজরাট টাইটানসকে ম্যাচ জেতান রশিদ। তাঁর ইনিংসে চারটি ছক্কা ছিল। যার মধ্যে প্রথমটি ছিল ‘স্নেক শট।’

আরও পড়ুন: শেষ পাতে রাহুল-রশিদ বিস্ফোরণ, উমরানের লড়াই ব্যর্থ করে জিতল গুজরাট

এটি অনেকটা মহেন্দ্র সিং ধোনির হেলিকপ্টার শটের মতো। কিন্তু ব্যাটারের মাথার উপর দিয়ে ব্যাট ঘুরে যাওয়ার পরিবর্তে, এটি খানিকটা স্প্রিং-এর মতো গতিতে বলটিকে মারে। যেমন মাথা নীচু করে সাপ ছোবল মেরে, খানিকটা স্প্রিং-এর মতো মাথাটি সরিয়ে নেয়, বিষয়টি সে রকম।

বুধবার ম্যাচ শেষে দলের অধিনায়ক হার্দিক পান্ডিয়া সাক্ষাৎকার নিচ্ছিলেন জয়ের দুই নায়ক রশিদ খান এবং রাহুল তেওয়াটিয়ার। সেখানেই ব্যাটার রশিদের প্রশংসা করে জানতে চান, এই নতুন ধরনের শট কোথা থেকে শিখলেন রশিদ? তখনই এই শটের রহস্য ফাঁস করেন আফগান তারকা। তিনি জানিয়েছেন, ‘আমি এই শটকে স্নেক শট (Snake Shot) বলি। যখন সাপ কাউকে কামড়ায় তখন সে ফিরে আসে (হাসি)। আসলে কিছু ফুল লেন্থ বলে মারার সময়ে আমি শট ফিনিশ করতে পারি না। আমার শরীরের ব্যালান্স এমন থাকে যাতে শট ফিনিশ করতে গেলে অসুবিধা হয়। সম্পূর্ণ শক্তি দিয়ে বল মারতে পারি না। তাই আমি এই নিয়ে অনেক কাজ করেছি এবং এর জন্য আমার কব্জিকে শক্তিশালী করেছি।’

হায়দরাবাদের ১৯৫ রানের জবাবে গুজরাট টাইটানসকে জিততে হলে শেষ ওভারে করতে হত ২২ রান। শেষ ওভারে বল করতে এসেছিলেন মার্কো জানসেন। সানরাইজার্স হায়দরাবাদ হয়তো স্বপ্নেও ভাবেনি ২০তম ওভারটি তাদের কাছে বিভীষিকা হয়ে উঠবে।

জানসেনের এই ওভারে প্রথম বলে ছক্কা হাঁকান রাহুল তেওয়াটিয়া। দ্বিতীয় বলে হয় ১ রান। তৃতীয় বলে আবার ছক্কা হাঁকান রশিদ খান। চার নম্বর বলে কোনও রান হয়নি। ২ বলে বাকি ছিল ৯ রান। এর পর বাকি ২ বলে পরপর দু'টি ছক্কা হাঁকিয়ে ৫ উইকেটে দলকে ম্যাচ জিতিয়ে মাঠ ছাড়েন রশিদ খান।

বন্ধ করুন