বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2023 > '১০ বলে ৫টা ছক্কা মেরেছিলাম, ধোনি ভাই বলেছিল তৈরি থেকো', জানালেন IPL নিলামে ঝড় তোলা CSK তারকা

'১০ বলে ৫টা ছক্কা মেরেছিলাম, ধোনি ভাই বলেছিল তৈরি থেকো', জানালেন IPL নিলামে ঝড় তোলা CSK তারকা

চেন্নাই সুপার কিংস। ছপি- আইপিএল।

কীভাবে ধোনি ও ফ্লেমিংয়ের নজর কেড়েছিলেন, জানালেন মেগা নিলামের অন্যতম দামি ক্রিকেটার।

এবার আইপিএলের মেগা নিলামে ১৪ কোটি টাকার বিশাল অঙ্কে দীপক চাহারকে দলে ফেরায় চেন্নাই সুপার কিংস। এবারের নিলামে সব থেকে দামি ক্রিকেটারদের তালিকায় দ্বিতীয় স্থানে থাকে দীপক চাহারের নাম। নিলামের টেবিলে সিএসকে বুঝেশুনে খরচ করার মানসিকতা দেখালেও চাহারের ক্ষেত্রে তারা কোনও কার্পণ্য করেনি। আসলে ধোনি-চাহারের বোঝাপড়া ভাঙতে চায়নি চেন্নাই।

দীপক চাহার ২০১৮ সাল থেকে মোট ৪টি মরশুমে চেন্নাইয়ের হয়ে মাঠে নেমেছেন। সিএসকের জার্সিতে ৬৩টি ম্যাচে ৫৯টি উইকেট নিয়েছেন চাহার। তবে চেন্নাই যে হঠাৎ করে চাহারকে সেবছর দলে নিয়েছিল, তেমনটা নয় মোটেও। বরং তারও দু'বছর আগে থেকেই ধোনি ও ফ্লেমিংয়ের নজর ছিল দীপকের দিকে। চাহার নিজেই জানালেন সেকথা।

Sports Tak-এ দীপক চাহার জানান, ২০১৬ সালে একটি প্র্যাক্টিস ম্যাচে ১০ বলে ৫টি ছক্কা হাঁকিয়েছিলেন তিনি। তখন থেকেই তাঁর দিকে নজর ছিল ধোনির। এমনকি পুণের স্কোয়াডে থাকার সময়ে চাহারকে ধোনি আগেভাগেই জানিয়ে রেখেছিলেন যে, চেন্নাইয়ের হয়ে নিলামে তাঁকে দলে নেওয়া হবে।

দীপক বলেন, ‘চেন্নাই সুপার কিংসে আমার যাত্রা ২০১৬ সালেই শুরু হয়ে গিয়েছিল। আমি ঘরোয়া ক্রিকেটে ফর্মে ছিলাম না। সৌভাগ্যবশত (পুণের) ট্রায়ালে সুযোগ পেয়ে যাই। কানিতকর যখন পুণে সুপারজায়ান্টসের সহকারী কোচ ছিলেন, তিনি আমাকে ট্রায়ালে ডাকেন। আমি যখন সিলেকশন ম্যাচে মাঠে নামি, ফ্লেমিংয়ের নজর পড়ে আমার উপর। আমি ভালো বল করেছিলাম এবং সাত নম্বরে ব্যাট করতে নেমে বেশ কয়েকটা চার ও বড় ছক্কার সাহায্যে হাফ-সেঞ্চুরি করেছিলাম। দ্বিতীয় দিনে আমি উপররে দিকে ৪ নম্বরে ব্যাট করতে নামি এবং ফের হাফ-সেঞ্চুরি করি। ফ্লেমিং আমাকে ব্যাটিং অল-রাউন্ডার হিসেবে সিলেক্ট করে যে কিনা বল মারতে পারে এবং নতুন বলে ভালো বলও করে।’

চাহার পরক্ষণে বলেন, ‘নির্বাচিত হওয়ার পর একটা ক্যাম্প ছিল। যে ক্যাম্পে মাহি ভাইও যোগ দেয়। আমরা একটা প্র্যাক্টিস ম্যাচ খেলছিলাম। ধোনি ভাইয়ের সঙ্গে প্রথম দেখা হয় যখন আমি ব্যাট করছিলাম। আমি তিন নম্বরে নেমে ১০ বলে ৫টা ছক্কা মেরেছিলাম। ৩০ রানে অপরাজিত ছিলাম। রান নেওয়ার সময় চোট পাওয়ায় মাঠ ছাড়তে হয় আমাকে। ধোনি ভাই লক্ষ্য করে যে, আমি ছক্কা মারতে পারি আবার বল স্যুইং করাতেও পারি।’

শেষে দীপক বলেন, ‘সেই মরশুমে আমার চোট ছিল। তবে পরের মরশুমে ধোনি ভাই আমাকে বলে, তৈরি থেকো, খুব প্র্যাক্টিস করো। পরের মরশুমে তোমাকে সিএসকের দলে নেব। তুমি অনেক ম্যাচ খেলার সুযোগ পাবে।'

বন্ধ করুন