বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > IPL Auction: উত্সাহী হয়ে নাম দেন নিলামে, কেউ দলে নেয়নি শ্রীসন্তকে, দেখুন রায়নার মতো কোন কোন ভারতীয় তারকা অবিক্রিত থাকেন

IPL Auction: উত্সাহী হয়ে নাম দেন নিলামে, কেউ দলে নেয়নি শ্রীসন্তকে, দেখুন রায়নার মতো কোন কোন ভারতীয় তারকা অবিক্রিত থাকেন

সুরেশ রায়না ও এস শ্রীসন্ত। ছবি- টুইটার।

প্রত্যাশা মতোই কয়েকজন ভারতীয় তারকা মেগা নিলামে অবিক্রিত থাকেন, কয়েকজনের দল না পাওয়া অবাক করেছে ক্রিকেটমহলকে।

৬০০ জন ক্রিকেটারের মধ্যে দল পেয়েছেন ২০৪ জন। স্বাভাবিকভাবেই বেশিরভাগ ক্রিকেটার অবিক্রিত থাকবেন এটাই স্বাভাবিক। তবে অবিক্রিত ক্রিকেটারদের দলে এমন কয়েকজন ভারতীয় তারকা রয়েছেন, যাঁদের দল না পাওয়া অবাক করে বইকি। যদিও বেশ কয়েকজন ভারতীয় ক্রিকেটারের দল না পাওয়া কার্যত প্রত্যাশিত ছিল। চোখ রাখা যাক মেগা নিলামে অবিক্রিত থাকা উল্লেখযোগ্য কিছু ভারতীয় তারকাদের তালিকায়।

সুরেশ রায়না: চেন্নাই সুপার কিংসে ধোনির ডেপুটি ছিলেন। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ছেড়েছেন ধোনির সঙ্গেই। ঘরোয়া ক্রিকেটেও মাঠে নামেন না। তবে এখনও বেশ কয়েক বছর আইপিএল খেলার ইচ্ছা প্রকাশ করেছিলেন সুরেশ রায়না। চেন্নাই তাঁকে রিটেন না করলেও মনে করা হচ্ছিল রায়নাকে দলে নিতে পারে নিলাম থেকে। তবে চেন্নাই সেপথে হাঁটেনি। ২ কোটি টাকা বেস প্রাইসের রায়নার জন্য দর হাঁকেনি অন্য কোনও দলও।

অমিত মিশ্র: আইপিএলের কিংবদন্তি বলা যায় অমিত মিশ্রকে। টুর্নামেন্টের ইতিহাসে সর্বোচ্চ উইকেটশিকারিদের মধ্যে অন্যতম। যদিও দিল্লি ক্যাপিটালস ১ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা বেস প্রাইসের অমিতকে দলে নেওয়ার আগ্রহ দেখায়নি। অন্য কোনও দলও দর হাঁকেনি মিশ্রর জন্য। 

ইশান্ত শর্মা: ইশান্ত শর্মার অবিক্রিত থাকা কিছুটা হলেও প্রত্যাশিত। টেস্ট বিশেষজ্ঞর তকমা লেগে যাওয়া ইশান্ত কেরিয়ারের শেষ প্রান্তে রয়েছেন বলেই মনে করা হচ্ছে। তাই তাঁর জন্য ১ কোটি ৫০ লক্ষ টাকা খরচ করতে রাজি হয়নি কোনও দল।

পীযূষ চাওলা: অত্যন্ত অভিজ্ঞ চাওলা ঘরোয়া ক্রিকেট চালিয়ে গেলেও আইপিএলে কার্যকরীতা হারিয়েছেন বলেই মনে করা হচ্ছে। স্বাভাবিকভাবেই ১ কোটি টাকা বেস প্রাইসের চাওলাকে কোনও ফ্র্যাঞ্চাইজি দলে নেওয়ার আগ্রহ দেখায়নি।

কেদার যাদব: শেষ দু'টি মরশুমে কেদার যাবদের খারাপ ফর্ম নিয়ে বিস্তর চর্চা হয়। তাই ১ কোটি টাকা বেস প্রাইসের কেদারের অবিক্রিত থাকা কার্যত প্রত্যাশিত ছিল। 

চেতেশ্বর পূজারা: পূজারাকে গতবার চেন্নাই সুপার কিংস সম্মান জানিয়ে দলে নেয়। যদিও এবার তারা সেপথে হাঁটেনি। পূজারার স্লো ব্যাটিং টি-২০ ক্রিকেটের উপযোগী নয় বলেই তাঁর পিছনে ৫০ লক্ষ টাকা খরত করতে রাজি হয়নি কোনও দল।

সৌরভ তিওয়ারি: সৌরভ তিওয়ারি আইপিএলে বরাবর সফল হন। গত মরশুমেও তিনি ব্যাট হাতে উল্লেখযোগ্য পারফর্ম্যান্স উপহার দেন। মুম্বই ইন্ডিয়ান্স ছাড়া অন্য কোনও দলের সৌরভের জন্য দর হাঁকার সম্ভাবনা কম ছিল। তবে মুম্বইও ৫০ লক্ষ টাকা খরচ করতে রাজি হয়নি সৌরভের জন্য।

হনুমা বিহারী: পূজারার মতোই বিহারীর কপালেও জুটেছে টেস্ট বিশেষজ্ঞর তকমা। তাই আইপিএলে তাঁর দল না পাওয়া কিছুটা প্রত্যাশিতই ছিল। তাঁর বেস প্রাইস ছিল ৫০ লক্ষ।

মনোজ তিওয়ারি: ৫০ লক্ষ টাকা বেস প্রাইসের মনোজ গতবারও আইপিএল নিলামে অবিক্রিত ছিলেন। প্রতিযোগিতামূলক ক্রিকেট থেকে ক্রমশ দূরত্ব বাড়তে থাকায় তাঁর এবারও আইপিএলে দল পাওয়ার সম্ভাবনা নিতান্ত কম ছিল। স্বাভাবিকভাবেই তিনি অবিক্রিত থাকেন। 

মোহিত শর্মা: অতীতে আইপিএল মাতিয়েছেন মোহিত। তবে অভিজ্ঞ পেসারের বোলিংয়ের ধার কমেছে। আধুনিক টি-২০ ক্রিকেটে কার্যত অচল মনে হওয়ায় ৫০ লক্ষ টাকা বেস প্রাইসের মোহিতকে কেউ দলে নিতে রাজি হয়নি।

মুরলি বিজয়: নিজের সেরা সময়ে মুরলি বিজয় যে কোনও দলের সম্পদ হিসেবে বিবেচিত হতেন নিশ্চিত। তবে সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তিনি পিছনের সারিয়ে চলে গিয়েছেন। তাই প্রত্যাশা মতোই এবার দল পাননি ৫০ লক্ষ টাকার বিজয়।

এস শ্রীসন্ত: নির্বাসন থেকে ফিরলেও শ্রীসন্ত কার্যত ফুরিয়ে যাওয়াদের দলে পড়ে গিয়েছেন। স্পট ফিক্সিংয়ের দায় থেকে মুক্তি পেলেও ৫০ লক্ষ টাকা বেস প্রাইসের শ্রীসন্তের কথা কোনও দলই বিবেচনা করেনি।

বন্ধ করুন