বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > IPL Rights E-Auction: আগামী ৫ বছরের ‘রাজা’ কে? ৪ বিভাগে IPL-র সম্প্রচার স্বত্বের ই-নিলাম শুরু হচ্ছে আজ
দু'দিন আইপিএলের ই-নিলাম (IPL Rights E-Auction) হবে। (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্যে আইপিএল)

IPL Rights E-Auction: আগামী ৫ বছরের ‘রাজা’ কে? ৪ বিভাগে IPL-র সম্প্রচার স্বত্বের ই-নিলাম শুরু হচ্ছে আজ

  • দু'দিন আইপিএলের ই-নিলাম (IPL Rights E-Auction) হবে। এবার মোট চারটি বিভাগে সম্প্রচার স্বত্ব নিয়ে লড়াই হবে। সেই নিলামে অংশগ্রহণের যে বেস প্রাইজ ধার্য করা হয়েছে, তা চমকপ্রদ।ফলে দু'দিনের নিলামে টাকার ফোয়ারা উঠবে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

আগামী পাঁচ বছর (২০২৩ থেকে ২০২৭ সাল) কোন সংস্থার হাতে থাকবে আইপিএলের সম্প্রচার স্বত্ব? আজ শুরু হতে চলেছে সেই লড়াই। দু'দিনের ই-নিলাম (IPL Rights E-Auction) শেষে মিলবে যাবতীয় উত্তর। 

এবার মোট চারটি বিভাগে সম্প্রচার স্বত্ব (টিভির সম্প্রচার স্বত্ব, ডিজিটাল সম্প্রচার স্বত্ব, বিশেষ ম্যাচের সম্প্রচার স্বত্ব এবং বাকি বিশ্বের সম্প্রচার স্বত্ব) নিয়ে লড়াই হবে। সেই নিলামে অংশগ্রহণের যে বেস প্রাইজ ধার্য করা হয়েছে, তা চমকপ্রদ। ফলে দু'দিনের নিলামে টাকার ফোয়ারা উঠবে বলে মনে করছে সংশ্লিষ্ট মহল।

টিভির সম্প্রচার স্বত্ব 

টিভির সম্প্রচার স্বত্বের দিয়েই আইপিএলের মাঠের বাইরের লড়াইয়ের সূচনা হবে। রবিবার সকাল ১১ টা থেকে দর হাঁকা শুরু হতে চলেছে। প্রতিবারই টিভির সম্প্রচার স্বত্ব পেতে মরিয়া হয়ে থাকে বিভিন্ন সংস্থা। এবার লড়াইটা আরও তুঙ্গে উঠতে চলেছে।

আরও পড়ুন: IPL Media Rights: সরে দাঁড়াল অ্যামাজন, আইপিএলের মিডিয়া স্বত্বের নিলামে দেখা যাবে চতুর্মুখী লড়াই

এবার টিভি সম্প্রচার স্বত্বের বিভাগে বেস প্রাইজ রাখা হয়েছে ৪৯ কোটি টাকায় (ম্যাচপিছু)। অর্থাৎ পাঁচ বছরের সম্প্রচার স্বত্বের জন্য বেস প্রাইজ হচ্ছে ১৮,১৩০ কোটি টাকা। নিয়ম অনুযায়ী, বেস প্রাইজের ৫০ লাখ টাকা দর হেঁকে বিডিং শুরু করা যাবে। পালটা দর হাঁকার জন্য ৩০ মিনিট বরাদ্দ করা হয়েছে। এমনিতে ৫০ লাখ টাকা কম মনে হলেও সার্বিকভাবে অর্থ মোটেও কম হবে না।কারণ একধাক্কায় পাঁচ বছরের স্বত্ব পেতে একবারের বিডিংয়েই বাড়তি ১৮৫ কোটি টাকার মতো খরচ হবে (মোটামুটি ৩৭০ ম্যাচ হবে)।

ডিজিটাল স্বত্ব

আইপিএলের ডিজিটাল স্বত্বের ক্ষেত্রে ম্যাচপিছু বেস প্রাইজ রাখা হয়েছে ৩৩ লাখ টাকা। টিভির সম্প্রচার স্বত্বের মতোই বেস প্রাইজের ৫০ লাখ টাকা দর হেঁকে বিডিং শুরু করা যাবে। নিয়ম অনুযায়ী, সব স্বত্ব পাওয়ার জন্য একইসঙ্গে দর হাঁকা না গেলেও যে সংস্থা টিভি সম্প্রচার স্বত্ব জিতবে, সেই সংস্থা ডিজিটাল স্বত্বও জিততে পারে। ডিজিটাল স্বত্ব জয়ী সংস্থাকে চ্যালেঞ্জ ছুড়তে পারে। সেক্ষেত্রে জয়ের অর্থের উপর (ডিজিটাল স্বত্বের) দর হাঁকা যাবে। ম্যাচপিছু এক কোটি টাকা বিড করতে হবে।

বিশেষ ম্যাচের ডিজিটাল সম্প্রচার স্বত্ব (পোশাকি ভাষায় নন-এক্সক্লুসিভ ডিজিটাল)

সেই ‘নন-এক্সক্লুসিভ ডিজিটাল’ বিভাগের আওতায় মোট ১৮ টি ম্যাচ (উদ্বোধনী ম্যাচ, প্লে-অফের ম্যাচ এবং ডবল হেডারের সন্ধ্যার ম্যাচ) থাকবে। আগামিকাল (সোমবার) সেই বিভাগে বিডিং হবে। প্রতি ম্যাচের বেস প্রাইজ ধার্য করা হয়েছে ১৬ কোটি টাকা। সংশ্লিষ্ট মহলের মতে, ওই বিডিংয়ের যুদ্ধ অত্যন্ত আকর্ষণীয় হতে চলেছে। কারণ যে সংস্থা ডিজিটাল স্বত্ব জিতবে, তারা ‘নন-এক্সক্লুসিভ ডিজিটাল’ বিভাগের স্বত্ব হাতে রাখতে চাইবে। ফলে লড়াইটা জোরদার হবে।

আরও পড়ুন: IPL Rights: ৫ বছরের মিডিয়া স্বত্বের জন্য খরচ হতে পারে ৬০ হাজার কোটি, লড়াই থেকে সরে দাঁড়ানোর ইঙ্গিত অ্যামাজনের

বিশ্বের বাকি দেশের সম্প্রচার স্বত্ব

বিভিন্ন এলাকার টিভি সম্প্রচারের স্বত্বের জন্য ম্যাচপিছু তিন কোটি টাকা ধার্য করা হয়েছে।

বন্ধ করুন