বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2021 > টুর্নামেন্ট স্থগিত হতেই বিসিসিআইয়ের অন্দর থেকে চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস
২০২১ আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যরা (ছবি: গুগল)
২০২১ আইপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্যরা (ছবি: গুগল)

টুর্নামেন্ট স্থগিত হতেই বিসিসিআইয়ের অন্দর থেকে চাঞ্চল্যকর তথ্য ফাঁস

  • বর্তমানে বিসিসিআই-এর সচিবের কথাতেই নাকি আইপিএল স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। কার্যত ১০ মিনিটেই টুর্নামেন্ট স্থগিতের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। 

ভারতে করোনা পরিস্থিতি এতোটা বেগতিক হবে কে জানত! ভারতের বদলে যদি সংযুক্ত আরব আমির শাহিতে এই টুর্নামেন্ট আয়োজন করা যেত তাহলে সুষ্ট ভাবে সম্পন্ন করা যেতে পারত ১৪তম আইপিএল। তবে কেউ সেই সিদ্ধান্তে রাজি হয়নি। মাত্র ১০ মিনিটেই ঠিক হয়েগিয়েছিল ২০২১ আইপিএল-এর ভাগ্য। করোনার কারণে ১৪তম আইপিএল স্থগিত হতেই এমনই সব চাঞ্চল্যকর তথ্য বেড়িয়ে আসছে বিসিসিআইয়ের অন্দর থেকে। 

বর্তমানে দেশের কোভিড পরিস্থিতি খুবই খারাপ। করোনায় মৃতের সংখ্যা দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। করোনা রোগীর সংখ্যা দেশে প্রতি নিয়ত রেকর্ড ছুঁচছে। এমন অবস্থায় করোনা তাবা বসিয়েছিল আইপিএল-এ। ফলে এখনকার মতো স্থগিত করা হয় আইপিএলকে। কিন্তু কারা এই টুর্নামেন্ট বন্ধ করার আদেশ দিলেন। এই প্রশ্ন উঠতেই দেশের স্বরাষ্ট্র মন্ত্রী অমিত শাহারে পুত্র জয় শাহের কথা উঠে আসছে।

বর্তমানে বিসিসিআই-এর সচিবের কথাতেই নাকি আইপিএল স্থগিত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল।   
একের পর এক ক্রিকেটার করোনা আক্রান্ত হওয়ায় আইপিএল-এর ভবিষ্যৎ নির্ধারণ করতে বৈঠকে বসেছিল গভর্নিং কাউন্সিল। সেই বৈঠক কার্যত ১০ মিনিট স্থায়ী হয়েছিল। তার মধ্যেই সিদ্ধান্ত হয়ে যায়, প্রতিযোগিতা আপাতত বন্ধ রাখা হবে। সচিব জয় শাহ বৈঠকে উপস্থিত বাকিদের জানিয়ে দেন, জৈব সুরক্ষা বলয় থাকলেও এই মুহূর্তে আইপিএল চালিয়ে যাওয়া কার্যত অসম্ভব। ক্রিকেটারদের নিরাপত্তার কথা মাথায় রেখে প্রতিযোগিতা পিছিয়ে দেওয়াই সব থেকে ভাল। বৈঠকে থাকা এক সদস্য প্রতিযোগিতা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে ছিলেন। কিন্তু বাকিরা সবাই এর বিরোধিতা করেন। বোর্ডের শীর্ষস্থানীয় কর্তাদের কাছেও আর বিকল্প ছিল না।       

এরমধ্যেই বোর্ডের এক কর্তা অরুণ ধুমল জানিয়েছেন, পরিস্থিতি এরকম হবে জানলে আইপিএল তাঁরা দেশে আয়োজন করতেনই না। তাঁর কথায়,  এর আগে আমদাবাদ, চেন্নাই এবং পুনেতে সফল ভাবে ইংল্যান্ড সিরিজ আয়োজন করেছিল বিসিসিআই। তখন পরিস্থিতি এরকম ছিল না। কিন্তু এখন যা হচ্ছে, সেটা আগে থেকে জানলে বিদেশেই আইপিএল করা যেত। 

জানা গিয়েছে, আইপিএল শুরুর এক সপ্তাহ আগে আইপিএল-এর গভর্নিং কাউন্সিলের বৈঠকে সংযুক্ত আরব আমির শাহির কথা তোলা হয়েছিল। বৈঠকে উপস্থিত অনেকেই বলেছিলেন টুর্নামেন্ট আমির শাহিতেই করান হোক। আমির শাহির তরফ থেকেও টুর্নামেন্ট আয়োজনের জন্য সবুজ সংকেত চলে এসেছিল। কিন্তু অনেকে এর বিরোধিতা করায় শেষ পর্যন্ত দেশেই এই টুর্নামেন্টের আোয়জন করা হয়।

টুর্নামেন্ট স্থগিত হয়ে যাওয়ার পরে এই রকম নানা বিষয় থেকে পর্দা উঠতে শুরু করেছে। ফলে বেশ চাপের মুখে পড়েগেছে সৌরভ অ্যান্ড কোম্পানি।

বন্ধ করুন