বাংলা নিউজ > ময়দান > আইপিএল-2022 > IPL 2022: IPL-এ ডাহা ফেল, নম্বরের বিচারে WC থেকে বাদ পড়া উচিত রোহিত, বিরাট, বুমরাহদের
আইপিএলে একেবারে ফর্মে নেই বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মারা। (ফাইল ছবি, সৌজন্যে টুইটার @ICC)

IPL 2022: IPL-এ ডাহা ফেল, নম্বরের বিচারে WC থেকে বাদ পড়া উচিত রোহিত, বিরাট, বুমরাহদের

  • আগামী অক্টোবর-নভেম্বরে অস্ট্রেলিয়ায় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হতে চলেছে। বিশ্বকাপের আগে দল নির্বাচনের আগে ভারতীয় বোর্ডের আগে পর্যাপ্ত সংখ্যক ম্যাচ আছে। তবে দল নির্বাচনের ক্ষেত্রে আইপিএলও একটি গুরুত্বপূর্ণ মাপকাঠি হতে পারে। সেই মাপকাঠিতে বিরাট কোহলি, রোহিত শর্মা, জসপ্রীত বুমরাহ, রবীন্দ্রে জাদেজাদের অবস্থা বেশ শোচনীয়।

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কারা যাবেন? তা নির্ধারণের জন্য ভারতীয় নির্বাচকদের হাতে একাধিক ম্যাচ আছে। তবে বিশ্বের অন্যতম সেরা টি-টোয়েন্টি লিগ আইপিএলের পরিসংখ্যানের নিরিখে বিবেচনা করলে ভারতীয় দলে জায়গা পাওয়ার কথা নয় রোহিত শর্মা, বিরাট কোহলি, ঋষভ পন্ত, জসপ্রীত বুমরাহ এবং ঋষভ পন্তের (তাঁর তবুও সুযোগ আছে, লড়াইটা হাড্ডাহাড্ডি)।

ওপেনার হিসেবে কারা যাবেন?

আইপিএলের পরিসংখ্যান অনুযায়ী, গত বিশ্বকাপে ভারতের ওপেনার কেএল রাহুল ভালো ছন্দে আছেন। দুটি শতরান-সহ ৪৫১ রান করেছেন। গড় ৫৬.৩৭। স্ট্রাইক রেট ১৪৫.০১। আইপিএলের ফর্মের নিরিখে দ্বিতীয় ভারতীয় ওপেনার হিসেবে এগিয়ে থাকবেন শিখর ধাওয়ান। ১০ ম্যাচে ৩৬৯ রান করেছেন। আইপিএলের সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহকের তালিকায় রাহুলের ঠিক পরেই তৃতীয় স্থানে আছেন।

মাসখানেক আগেও তৃতীয় ওপেনার হিসেবে দৌড়ে থাকতেন ইশান কিষান। কিন্তু এবার আইপিএলে ব্যাট হাতে একেবারে ছন্দে নেই। বরং ফর্মের বিচারে তৃতীয় ওপেনারের দৌড়ে এগিয়ে থাকবেন অভিষেক শর্মা। নয় ম্যাচে ৩২৪ রান করেছেন তিনি। গড় ৩৬। স্ট্রাইক রেট ১৩৪.৪৩। শুভমন গিল শুরুটা মন্দ না করলেও এখন ছন্দ হারিয়ে ফেলেছেন।

তিনে কে থাকবেন?

আইপিএল ফর্মের নিরিখে সেই উত্তরটা নিঃসন্দেহে শ্রেয়স আইয়ার হবে। ১০ ম্যাচে ৩২৪ রান করেছেন তিনি। গড় ৩৬। স্ট্রাইক রেট ১৩৪.৩৩। ফর্মের নিরিখে তিনে শ্রেয়স থাকলেও শর্ট বলের বিরুদ্ধে তাঁর দুর্বলতা সর্বজনবিদিত। ভারতীয় পিচেই শর্ট বলে তাঁর ঘাম ছুটে যায়। অস্ট্রেলিয়ার পিচে তো শর্ট বল অস্ত্র তৈরি রাখবেন বিপক্ষের বোলাররা।

চারে কে থাকবেন?

চোটের জন্য শুরুর কয়েকটি ম্যাচ খেলতে পারেননি। তারপরও সাত ম্যাচে ২৯০ রান করে ফেলেছেন। সর্বোচ্চ অপরাজিত ৬৮। গড় ৪৮.৩৩। স্ট্রাইক রেট ১৪৭.২।

পাঁচে ঋষভ সঞ্জু স্যামসন

ঋষভ পন্ত যে খুব খারাপ খেলেছেন, এমন নয়। নয় ম্যাচে ২৩৪ রান করেছেন। গড় ৩৩.৪৩। স্ট্রাইক রেট ৩৩.৪৩। অন্যদিকে, সঞ্জু ১০ ম্যাচে ২৯৮ রান করেছেন। গড় ৩৩.১১। স্ট্রাইক রেট ১৫৩.৬। ফলে লড়াইটা হাড্ডাহাড্ডি হবে। ওপেন করতে পারায় সঞ্জু কিছুটা এগিয়ে থাকবেন। তবে আইপিএলের ফর্মের বিচারে প্রথম এবং দ্বিতীয় উইকেটকিপার হিসেবে তাঁরা অস্ট্রেলিয়ায় যাবেন।

অলরাউন্ডার হিসেবে হার্দিক পান্ডিয়া?

অস্ট্রেলিয়ার পিচে পেস বোলিং করতে পারা অলরাউন্ডার বেশি ভোট পেতে পারেন। সেক্ষেত্রে ফর্মের বিচারে অবশ্যই এগিয়ে থাকবেন হার্দিক পান্ডিয়া। নয় ম্যাচে ৩০৯ রান করেছেন। গড় ৪৪.১৪। সর্বোচ্চ অপরাজিত ৮৭ রান। স্ট্রাইক রেট ১৩২.০৫। যদিও আইপিএলে গুজরাট টাইটানসের হয়ে ফিনিশারের দায়িত্বে ছিলেন না। অন্যদিকে, বল হাতে চার উইকেট নিয়েছেন। সব ম্যাচে বল করেননি। 

আরও পড়ুন: IPL 2022: ছন্দে নেই জাদেজা, ব্যাটিংয়ে তারকা অলরাউন্ডারকে নীচে খেলানোর আভাস কোচ ফ্লেমিংয়ের

তবে হার্দিকের ‘মাইনাস পয়েন্ট’ হতে পারে চোটের বিষয়টি। ভারতীয় দলে যে তাঁকে বিশেষজ্ঞ ব্যাটার হিসেবে খেলানো হবে না, তা স্পষ্ট। তাই দলে ফিরতে চার ওভার বল করতেই হবে। কিন্তু আইপিএলে একাধিকবার চোট আতঙ্কে ভুগেছেন হার্দিক। তাই অস্ট্রেলিয়ায় বিমানে ওঠার ক্ষেত্রে তাঁর ক্ষেত্রে সবথেকে বড় অন্তরায় হতে পারে চোট। কারণ তাঁর পরিবর্ত হিসেবে উঠে আসা বেঙ্কটেশ আইয়ার এত বাজে খেলেছেন যে কলকাতা নাইট রাইডার্স (কেকেআর) বাদ দিতে বাধ্য হয়েছে। শিবম দুবে ব্যাট হাতে তেমন খারাপ খেলেননি। কিন্তু বোলিং নিয়ে প্রশ্ন আছে।

ফিনিশার হিসেবে দীনেশ কার্তিক

এবারের আইপিএল নিয়ে যদি কোনও বই লেখা হয়, তাহলে একটি অধ্যায় তো কার্তিকের প্রত্যাবর্তন নিয়ে থাকবে। রয়্যাল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালোরের যদি কোনও ‘হল অফ ফেম’ থাকত, তাহলে এই মরশুমেই ঠাঁই পেয়ে যেতেন। চলতি মরশুমে একাধিক ম্য়াচে আরসিবিকে জিতিয়েছেন। ১১ ম্যাচে করেছেন ২৪৪ রান। সর্বোচ্চ অপরাজিত ৬৬। অপরাজিত থেকেছেন সাতবার। গড় ১৮৯.১৪। ফলে বিশ্বকাপে উপযুক্ত ফিনিশার হয়ে উঠতে পারেন। তবে লেগ স্পিন খেলার ক্ষেত্রে তাঁর সমস্যা আছে।

পেস বোলার কারা?

এখনও পর্যন্ত আইপিএলের ফর্মের বিচারে অস্ট্রেলিয়ায় ভারতের তিন পেসার হবেন - টি নটরাজন, উমেশ যাদব এবং মহম্মদ শামি। নয় ম্যাচে ১৭ উইকেট নিয়েছেন সানরাইজার্স হায়দরাবাদের পেসার। ইকোনমি রেট ৮.৬৫। 

অন্যদিকে কেকেআরের জার্সিতে নয়া জীবন পেয়েছেন উমেশ। একাধিক ম্যাচে পাওয়ার প্লে'তে উইকেট নিয়েছেন। ১০ ম্যাচে ১৫ উইকেট নিয়েছেন। ইকোনমি রেট ৭.১৫। উমেশের সঙ্গী হতে পারেন শামি। তিনিও ১০ ম্যাচে ১৫ উইকেট নিয়েছেন। ইকোনমি রেট আটের একটু বেশি।

ফর্মের নিরিখে উমরান মালিকও জোরদার টক্কর দিতে পারেন। নয় ম্যাচে ১৫ উইকেট নিয়েছেন। ইকোনমি রেট ৮.৪৪। কিন্তু শুরুতেই বোলিং না করায় উমেশ এবং শামি তাঁর আগে বিমানের টিকিট পেতে পারেন।

স্পিনার কে?

এবারের আইপিএলে দারুণ ফর্মে আছেন ভারতের ফিঙ্গার স্পিনার জুটি। সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহকের তালিকায় আছেন যুজবেন্দ্র চাহাল এবং কুলদীপ যাদব। ১০ ম্যাচে নিয়েছেন ১৯ উইকেট। অন্যদিকে নয় ম্যাচে ১৭ উইকেট নিয়েছেন কুলদীপ। অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে সম্ভবত এক স্পিনার খেলাবে ভারত। সেক্ষেত্রে চাহাল এবং কুলদীপের মধ্যে একজন খেলতে পারেন।

বাদ রোহিত, বিরাট, বুমরাহ ও জাদেজা

১) ভারতীয় দলের অধিনায়ক রোহিত তো চূড়ান্ত দল থেকে বাদ পড়বেন না। কিন্তু আইপিএলের ফর্মের নিরিখে ভারতীয় দলের বিকল্প ওপেনার হিসেবেও সুযোগ পাবেন না। নয় ম্যাচে মাত্র ১৫৫ রান করেছেন। গড় ১৭.২২। স্ট্রাইক রেট ১২৩.০১।

২) ভারতের 'তিন নম্বর' বিরাটের অবস্থাও খারাপ। ১১ ম্য়াচে মাত্র ২১৬ রান করেছেন। সর্বোচ্চ ৫৮ রান করলেও ছিঁটেফোটা ছন্দে ছিলেন। বুধবার তো ৩৩ বলে ৩০ রান করেছেন। সার্বিকভাবে স্ট্রাইক রেট ১১১.৯১।

আরও পড়ুন: কোহলি ঠুকঠুক করে খেলছে! RCB তারকাকে নিয়ে KKR-এর প্রাক্তনীর চিন্তা

৩) এবারের আইপিএলে বোলিং বিভাগে কার্যত 'একা' হয়ে গিয়েছেন বুমরাহ। যা তাঁর বোলিংয়েও প্রভাব ফেলছে। এতটাই খারাপ অবস্থা যে উইকেট সংগ্রাহকদের তালিকায় মুম্বই ইন্ডিয়ান্সের বোলারদের মধ্যে ছয় নম্বরে আছে। নয় ম্যাচে নিয়েছেন মাত্র পাঁচ উইকেট। গড় ৫১.২। ইকোনমি রেট ৭.৪৫।

৪) এবারের আইপিএলে ভারতীয় তারকাদের ব্যর্থতার তালিকা তৈরি করা হলে জাদেজার নাম উপরের দিকেই থাকবে। এবার ১০ ম্যাচে ১১৬ রান করেছেন। সর্বোচ্চ অপরাজিত ২৬। গড় মাত্র ১৯.৩৩। স্ট্রাইক রেট ১১৮.৩৬। বল হাতে মাত্র পাঁচ উইকেট নিয়েছেন। ইকোনমি রেট ৭.৫১। গড় ৪৯.৬।

বন্ধ করুন