বাড়ি > ময়দান > এটাই কি ফুটবলের ইতিহাসের সবথেকে লজ্জাজনক গোল মিস? দেখুন ভিডিও
ফাঁকা গোলে বল ঠেলে দিতে ব্যর্থ। ছবি- স্ক্রিনগ্র্যাব।
ফাঁকা গোলে বল ঠেলে দিতে ব্যর্থ। ছবি- স্ক্রিনগ্র্যাব।

এটাই কি ফুটবলের ইতিহাসের সবথেকে লজ্জাজনক গোল মিস? দেখুন ভিডিও

  • গোলের এমন সহজ সুযোগ হাতছাড়া করা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় বিদ্রুপের ঝড়।

লজ্জাজনক গোল মিস বললেও কম বলা হবে। বেলজিয়ামের ১৭ বছর বয়সী মিডফিল্ডার অ্যাস্টার ভ্র্যাঙ্কস যেভাবে ফার্স্ট ডিভিশন ম্যাচে গোলের অতি সহজ সুযোগ হাতছাড়া করলেন, সেটাকে বর্ণনা করার মতো বিশেষণ খুঁজে পাওয়া মুশকিল। স্বাভাবিকভাবেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, এটাই কি ফুটবলের ইতিহাসের সবথেকে খারাপ গোল মিস?

সবথেকে খারাপ যদি নাও হয়, তবে অন্যতম খারাপ সন্দেহ নেই। সোশ্যাল মিডিয়ায় অ্যাস্টারের এমন ফাঁকা গোলে বল জড়াতে না পারা নিয়ে একদিকে যেমন ব্যঙ্গ বিদ্রুপের ঝড় বইছে, ঠিক তেমনই উঠে আসছে অতীতের এমনই সব লজ্জাজনক গোল মিস করার ছবি ও ভিডিও।

বেলজিয়ামের ফার্স্ট ডিভিশন লিগে মেশেলেন বনাম কেভি উস্তেন্দের মধ্যে ম্যাচ চলছিল। ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে গোল করে মেশেলনকে লিড এনে দেওয়ার সুযোগ ছিল অ্যাস্টারের সামনে। যা তিনি করে দেখাতে পারেননি।

৬৭ মিনিটের মাথায় মেশেলেনের এক ফুটবলারের শট ক্রসবারে প্রতিহত হয়। যদিও বল ঠিক অ্যাস্টারের সামনে চলে আসে। তাঁর আশেপাশে তখন কেউ ছিলেন না। এমনকি গোলকিপারও না। মাত্র কয়েক ফুট দূর থেকে ফাঁকা জালে বল ঠেলে দিতে ব্যর্থ হন অ্যাস্টার। বল তাঁর পায়ে জড়িয়ে মাঠের বাইরে চলে যায়।

স্বাভাবিকভাবেই গোল করার এমন অতি সহজ সুযোগ হাতছাড়া করার পর হতাশায় ভেঙে পড়তে দেখা যায় তরুণ ফুটবলারকে। তার উপর মেশেলেন ম্যাচটা ০-১ গোলে হেরে বসে উস্তেন্দের কাছে। ইনজুরি টাইমে (৯০+৫ মিনিট) গোল করে উস্তেন্দে ম্যাচ জিতে যায়। দলকে জিতিয়ে নায়ক হওয়ার হাতছানি ছিল যাঁর সামনে, ম্যাচের শেষে নিজের ভুলেই তিনি ভিলেনে পরিণত হন।

বন্ধ করুন