বাংলা নিউজ > ময়দান > ISL 2020-21: শুধু ভারতীয় নয়, ডার্বিতে জঘন্য হারে সব ফুটবলারদের দুষলেন ফাওলারের ডেপুটি

শুভব্রত মুখার্জি

আইএসএলের শুরু থেকেই নানা ডামাডোলের মধ্যে দিয়ে যাচ্ছে এসসি ইস্টবেঙ্গল। একের পর এক সমস্যায় তাদের প্রথম আইএসএলের যাত্রা জর্জরিত হয়েছে। কিংবদন্তি ফুটবলার রবি ফাওলার তাদের কোচ হওয়া সত্ত্বেও বদলায়নি চিত্র। আর চলতি আইএসএলে পরপর দুটি ডার্বি হারার পরে তাদের শিবিরে এখন আশঙ্কার কালো মেঘ। চলতি আইএসএলের প্রথম ডার্বির পুনরাবৃত্তি দেখল যেন দ্বিতীয় ডার্বি।

গত ২৭ নভেম্বর ২-০ গোলে প্রথম ডার্বি জিতেছিল এটিকে- মোহনবাগান। এবারের স্কোরলাইন ৩-১। রয় কৃষ্ণার অনন্য পারফরম্যান্সে ভর করে ডার্বির রং হল সবুজ-মেরুন। ফলে প্রথমবার জোড়া ডার্বি জিতে অনন্য নজির গড়ে ফেললেন হাবাস।

দলের এমন জঘন্য পারফরম্যান্সে গ্যালারিতে বসে বেশ হতাশ লাগছিল নির্বাসিত কোচ রবি ফাওলারকে। শুক্রবারের ম্যাচে লাল-হলুদের প্রথম একাদশকে দেখে মনে হয়নি তারা ডার্বি খেলতে নেমেছে। ব্যতিক্রম অবশ্যই ব্রাইট এনোবাখারে। আর এই পারফরম্যান্স এরপরে রীতিমতো ক্ষিপ্ত ফাওলারের সহযোগী টনি গ্রান্ট । তিনি মনে করেন, তাঁর দলের ফুটবলারদের জঘন্য পারফরম্যান্সের জন্য বিপক্ষের হাতে ম্যাচ তুলে দিয়ে এসেছেন তারা। তাই ডার্বি হারের পরে নিজেদের ফুটবলারদের দুষলেন গ্রান্ট। তবে শুধু ভারতীয় ফুটবলার নয়, সবাইকে দুষলেন তিনি।

দ্বিতীয়ার্ধে অসহায় আত্মসমর্পণ করে লাল-হলুদ। ম্যাচ শেষে ক্ষুব্ধ গ্রান্ট সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, 'ভালো ম্যাচ হয়েছে। দুটো দলই জিততে পারত। কিন্তু প্রথমার্ধে সমতা ফেরানোর পরেও দ্বিতীয়ার্ধে এই ফুটবল খেলে গোল খাওয়ার কোন যুক্তি খুঁজে পাচ্ছি না‌।এটা একেবারে মেনে নেওয়া যায় না। ওদের দ্বিতীয় গোলটাই খেলা ঘুরিয়ে দিল।' তিনি আরও বলেন ' ডার্বির গুরুত্ব আলাদা কিন্তু আমাদের ফুটবলাররা ম্যাচটা ওদের হাতে তুলে দিল! ফলে দলের বাকিদের ছন্দ নষ্ট হয়।'

বন্ধ করুন