বাংলা নিউজ > ময়দান > ISL 2020-23: ছেলেদের উপর আস্থা আছে-দাবি করেও কেরালা ম্যাচে নিজের দলকে ব্যাকফুটে রাখছেন ফেরান্দো

ISL 2020-23: ছেলেদের উপর আস্থা আছে-দাবি করেও কেরালা ম্যাচে নিজের দলকে ব্যাকফুটে রাখছেন ফেরান্দো

জুয়ান ফেরান্দো।

এটিকে মোহনবাগানের স্প্যানিশ কোচ জুয়ান ফেরান্দোকে ম্যাচের আগের দিন এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানিয়ে দেন, দল নিয়ে তিনি আশাবাদী। কারণ, দলের ছেলেদের ওপর তাঁর যথেষ্ট আস্থা রয়েছে এবং তাঁর বিশ্বাস, টিম ঘুরে দাঁড়াবেই। পাশাপাশি তিনি এ কথাও স্বীকার করে নিচ্ছেন, কেরালা ম্যাচ বেশ কঠিন হতে চলেছে।

প্রথম ম্যাচে বিশ্রি হারের পর আইএসএলের দ্বিতীয় ম্যাচে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া এটিকে মোহনবাগান। তবে রবিবার লড়াইটা মোটেও সহজ হবে না সবুজ-মেরুনের। কারণ নিজেদের দ্বিতীয় ম্যাচে বাগানের প্রতিপক্ষ কেরালা ব্লাস্টার্স। কেরালা আবার তাদের ঘরের মাঠেখেলবে। কোচিতে হাজার ষাটেক ব্লাস্টার্স সমর্থকের গর্জন উপেক্ষা করে, জয়ের রাস্তায় ফেরাটা এটিকে মোহনবাগানের জন্য মোটেও সহজ বিষয় হবে না।

এটিকে মোহনবাগানের স্প্যানিশ কোচ জুয়ান ফেরান্দোকে ম্যাচের আগের দিন এই বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি জানিয়ে দেন, দল নিয়ে তিনি আশাবাদী। কারণ, দলের ছেলেদের ওপর তাঁর যথেষ্ট আস্থা রয়েছে এবং তাঁর বিশ্বাস, টিম ঘুরে দাঁড়াবেই। পাশাপাশি তিনি এ কথাও স্বীকার করে নিচ্ছেন, কেরালা ম্যাচ বেশ কঠিন হতে চলেছে। দলের ফুটবলাররা অসাবধান হলে বা মনসংযোগ হারালে হেরেও যেতে পারেন বলে তাঁর ধারণা।

শনিবারের সাংবাদিক বৈঠকে যা বললেন ফেরান্দো:

প্রশ্ন: কেরালা ব্লাস্টার্স প্রথম ম্যাচে হারিয়েছে ইস্টবেঙ্গলকে। এ বার ওদের বিরুদ্ধে ওদের ঘরের মাঠে জয়ে ফেরার লড়াই কতটা কঠিন?

ফেরান্দো: দুই দলের কাছেই এই ম্যাচটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। ভালো লড়াই হবে। আমাদেরও যেমন তিন পয়েন্ট দরকার, তেমন ওরাও জেতার লক্ষ্য নিয়েই মাঠে নামবে। কোচির আবহ অসাধারণ। সব মিলিয়ে একটা উপভোগ্য ম্যাচ হতে চলেছে।

আরও পড়ুন: ডার্বির আগে জয়ে ফেরা জরুরি-প্রীতমের দাবি সত্ত্বেও কেরালার বিরুদ্ধে চাপে ATK MB

প্রশ্ন: গত ম্যাচে আপনারা বিরতিতে এক গোলে এগিয়ে থাকা সত্ত্বেও শেষে হেরেছেন। তাই এই ম্যাচে আপনাদের পরিকল্পনা কী থাকবে?

ফেরান্দো: দেখুন, সব ম্যাচই আমাদের কাছে কঠিন। সে কথা মাথায় রেখেই নিজেদের প্রস্তুত করি আমরা। এখানেও আমরা তিন পয়েন্ট পাওয়ার লক্ষ্যই এসেছি। নিজেদের সে ভাবেই প্রস্তুত করছি। অতীতে কী হয়েছে, সেটা আমাদের কাছে বড় কথা নয়। বর্তমানকেই আমরা বেশি গুরুত্ব দিই। আমাদের কাছে কাল একটা নতুন চ্যালেঞ্জ এবং নতুন সুযোগ আসতে চলেছে বলেই মনে করি আমি।

প্রশ্ন: রয় কৃষ্ণর অভাব বোধ করছেন এই মরশুমে?

ফেরান্দো: না ঠিক সে রকম না। ফুটবলের মূল কথা হল জায়গা তৈরি করা এবং তাকে কাজে লাগিয়ে সফল হওয়া। সুযোগ তো আমরা তৈরি করছিই। কে স্কোর করল বা না করল, তা নিয়ে মাথা ব্যথা নেই। কত সুযোগ তৈরি করছি, আর কত নষ্ট হচ্ছে, সেটা একটা ব্যাপার। আমার দলের উপর পুরো আস্থা রয়েছে। আমার বিশ্বাস ধাপে ধাপে ওরা আরও উন্নত ফুটবল খেলবে এবং প্রতিপক্ষের গোলকিপারদের আরও ব্যস্ত করে তুলবে। এখন আমাদের নিজেদের দলে ফোকাস করাই ভাল।

আরও পড়ুন: ISL-এর ম্যাচে আলো নিভল যুবভারতীর, আয়োজক ATK MB-কে দায়ী করে শো-কজ রাজ্য সরকারের

প্রশ্ন: চেন্নাইয়িনের বিরুদ্ধে ম্যাচে সব রকম পরিসংখ্যানের দিক থেকেই আপনারা এগিয়ে ছিলেন। সেই হার নিয়ে কী বলবেন?

ফেরান্দো: আমি হতাশ ঠিকই। তবে এটাই ফুটবল এবং এটাই জীবন। যখন আমরা জিতি বা হারি, তখন স্টাফদের কাছে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে হার-জিতের কারণ। আমরা হারি, কারণ, প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে কিছু ছোটখাটো ব্যাপারে আমরা ভুল করি। ফুটবলে কৌশল ও টেকনিক গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হলেও খেলোয়াড়দের আবেগও কম গুরুত্বপূর্ণ নয়। তারা মানসিক চাপে থাকলে বা ভয়ে ভয়ে খেললে দল হেরে যেতে পারে। তবে আবারও বলছি, এই দলের ওপর আমার যথেষ্ট আস্থা আছে। দল ক্রমশ উন্নতি করবে। ফুটবলারদের যথেষ্ট প্রতিভা রয়েছে। প্রত্যেকেই খুব ভালো খেলোয়াড়। আমরা যদি মন দিয়ে নিজেদের কাজ করে যেতে পারি , তা হলে সাফল্য একশো শতাংশ আসবে। আমাদের জীবনও একই নিয়মে চলে।

প্রশ্ন: আপনার দলের অন্যতম অধিনায়ক ফ্লোরেন্তিন পোগবাকে গত ম্যাচে মাঠে দেখা যায়নি। তাঁর কি কোনও চোট সংক্রান্ত সমস্যা হয়েছে?

ফেরান্দো: আমাদের যেমন ছ’জন বিদেশি খেলোয়াড় রয়েছে, কেরালা ব্লাস্টার্সেরও সে রকমই ছ’জন বিদেশি রয়েছে। আমরা বিদেশি বাছাই করে প্রতিপক্ষ কী রকম, ম্যাচের পরিকল্পনা ও পরিস্থিতি, তারা অনুশীলনে কেমন পারফরম্যান্স করছে, এ সব বিচার করে। আমার দলের বিদেশিদের নিয়ে আমি যথেষ্ট খুশি। প্রত্যেকেই মাঠে নামার জন্য সব সময় তৈরি থাকে। ওদের ওপর আস্থা রাখা যায়। তবে যেহেতু চার জনের বেশি বিদেশিকে প্রথম এগারোয় রাখার নিয়ম নেই, তাই দু'জনকে বাইরে রাখতেই হয়। পোগবা শুরুর দিকে কয়েকটা ম্যাচে নাও খেলতে পারে, পরের দিকে হয়তো সব ম্যাচে খেলতে পারে। সেটা নির্ভর করছে পরিকল্পনার ওপর। ছ’জন বিদেশির ওপরই যথেষ্ট আস্থা আছে আমার।

প্রশ্ন: আপনার দলের সবাই সুস্থ? প্রথম এগারোয় থাকার জন্য সবাই তৈরি?

ফেরান্দো: কমবেশি সবাই সুস্থ রয়েছে। তবে কারা প্রথম এগারোয় থাকবে, তা ম্যাচের আগের মুহূর্তে ঠিক করব। এই নিয়ে অযথা তাড়াহুড়ো করার কোনও মানে হয় না। এখনও একটা অনুশীলন বাকি আছে। তার পরে দলের বৈঠক। সেখানেই ঠিক করব প্রথম এগারোয় কারা কারা থাকবে।

বন্ধ করুন