বাংলা নিউজ > ময়দান > ISL Final: সঠিক পরিকল্পনার অভাবেই ডুবতে হল এটিকে মোহনবাগানকে
হতাশ রয় কৃষ্ণরা। ছবি-এএনআই
হতাশ রয় কৃষ্ণরা। ছবি-এএনআই

ISL Final: সঠিক পরিকল্পনার অভাবেই ডুবতে হল এটিকে মোহনবাগানকে

  • শেষ রক্ষা হল না। পর পর তিন ম্যাচে মুম্বই সিটি এফসি-র কাছে হারল এটিকে মোহনবাগান। শনিবার আইএসএল ফাইনালেও হারতে হল রয় কৃষ্ণদের। পরপর তিন বার একই দলের কাছে হারের কারণ কী? সত্যিই কি এতটাই অপ্রতিরোধ্য মুম্বইয়ের দলটি?

লিগের লড়াইয়েও মুম্বই সিটি এফসি-র কাছে দু’বারই হেরেছে এটিকে মোহনবাগান। শনিবার ফাইনালেও হারতে হল। এই প্রথম এটিকে মোহনবাগান ফাইনালে ওঠার পর চ্যাম্পিয়ন না হয়ে রানার্স হল। এর আগে তিন বারই কলকাতার দলটি ফাইনালে উঠেছিল। তিন বারই চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। শনিবার ফাইনালে জয়ের রেকর্ডটা আর অক্ষত থাকল না। পুরো ম্যাচের যদি বিশ্লেষণ করা যায়, সে ক্ষেত্রে চৌম্বকে কতকগুলি কারণ উঠে আসে—

১) মুম্বই প্রতিটা ম্যাচেই রয় কৃষ্ণকে ব্লক করে দিয়েছে। রয় ছাড়া এটিকে মোহনবাগানের গোল করার লোকের অভাবটা গোটা আইএসএলেই স্পষ্ট টের পাওয়া গিয়েছে। এ দিন ডেভিড উইলিয়ামস প্রথমে গোল পেলেও, গোলের ব্যবধান বাড়ানোর মতো মানসিকতা দেখাতে পারেনি কলকাতার দলের বাকি ফুটবলাররা। ফিজির তারকা স্ট্রাইকারকে ছাড়া সবুজ-মেরুনের ফরোয়ার্ড লাইন বড়ই ম্যারম্যারে।

২) ডিফেন্সের ভুলেও এ দিন ডুবতে হয় বাগানকে। ডিফেন্সের মধ্যেই গোলকিপারকেও ধরা হয়। রক্ষণের শেষ প্রহরী হয় গোলকিপার। গোটা টুর্নামেন্টে ভাল খেললেও এ দিন অরিন্দম ভট্টাচার্য়ের ভুলেই ২-১ করে মুম্বই সিটি এফসি। মুম্বইয়ের দ্বিতীয় গোলটির সময় যদি অরিন্দম বেরিয়ে না আসত, তা হলে হয়তো বিপিন সিংয়ের গোলটি নাও হতে পারত।

৩) তিরির আত্মঘাতী গোলটি এ দিনের ম্যাচের টার্নিং পয়েন্ট। তিরি যদি বলটা ছেড়ে দিত, সে ক্ষেত্রে বলটি সোজা অরিন্দমের কাছেই যেত। তিরির আত্মঘাতী গোলে সমতা ফেরার পরই মুম্বই সিটি এফসি আত্মবিশ্বাস ফিরে পায়।

৪) ম্যাচের দ্বিতীয়ার্ধে রয় কৃষ্ণের একটি গোল অফ সাইড বলে বাতিল করা হয়। তবে রেফারির এই সিদ্ধান্ত নিয়ে বিতর্ক রয়ে গিয়েছে। গোলটি আদৌ রয় কৃষ্ণের ছিল কি না, তা নিয়েই প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। বিশেষজ্ঞদের দাবি, গোলটি আসলে মুম্বইয়ের ফুটবলারের পায়ে লেগে জালে জড়িয়েছিল। সে ক্ষেত্রে গোলটি মুম্বইয়ের আত্মঘাতী গোল ছিল। স্বভাবতই গোলটি অফ সাইড হওয়ার কোনও কারণ নেই। এই গোলটি পেলে মোহনবাগান অনেকটা আগেই ২-১ এগিয়ে যেতে পারত।

৫) লিগের দু’ম্যাচে মুম্বইয়ের কাছে হারের পরও প্ল্যান-বি, সি তৈরি ছিল না আন্তোনিও লোপেজ হাবাসের। মুম্বই প্রায় একই স্ট্র্যাটেজিতে ফাইনালে খেলে বাজিমাত করল। তাদেরকে টেক্কা দেওয়ার মতো আলাদা কোনও পরিকল্পনা নিতে দেখা যায়নি কলকাতা টিমের স্প্যানিশ কোচকে।

বন্ধ করুন