বাংলা নিউজ > ময়দান > ISL-পেনাল্টি পেতে কি ধর্ষণ করতে হবে বলে চাকরি খোয়ালেন ওড়িশা এফসি'র প্রধান কোচ
স্টুয়ার্ট ব্যাক্সটার
স্টুয়ার্ট ব্যাক্সটার

ISL-পেনাল্টি পেতে কি ধর্ষণ করতে হবে বলে চাকরি খোয়ালেন ওড়িশা এফসি'র প্রধান কোচ

  • অশালীন,রুচিহীন,কদর্য মন্তব্য ঘিরে চাঞ্চল্য তৈরি হল।

ফুটবল মাঠ হোক বা মাঠের বাইরে মেজাজ হারানোর ঘটনার উদাহারণ ভুরিভুরি। ফুটবলার,কোচ বা কোচিং স্টাফ সকলেই কোন না কোন সময়ে এই দলে পড়েছেন। তবে সম্প্রতি আইএসএলে যা ঘটল সেই ঘটনা নজিরবিহীন। অশালীন,রুচিহীন,কদর্য মন্তব্য ঘিরে চাঞ্চল্য তৈরি হল। 

আইএসএলে জামশেদপুর এফসি ম্যাচ শেষ হওয়ার পরেই এই নিয়ে শুরু হয়ে হইচই। এই ঘটনার জেরে ব্রিটিশ কোচ স্টুয়ার্ট ব্যাক্সটারকে ছাঁটাই করে দিতে বাধ্য হল আইএসএল ক্লাব ওড়িশা এফসি।জামশেদপুরের বিরুদ্ধে ম্যাচে ০-১ ফলে হেরে যায় ওড়িশা। হারের পরে আর নিজেকে সামলে রাখতে পারেনি ওড়িশার ব্রিটিশ কোচ। রেফারিং নিয়ে সাংবাদিক সম্মেলনে তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করেন স্টুয়ার্ট। সেই সময়ে ঘটে এই বিপত্তি।

স্টুয়ার্ট জানান ‘ সামনের দিকে যদি এগোতে হয়, আপনাকে নিজের পথ নিজেকেই বাছতে হবে। জানি না কিভাবে আমার টিম কী বা আর কী করলে পেনাল্টি পাবে! মনে হয়, আমার টিমের কাউকে ধর্ষণ করতে হবে। না হলে পেনাল্টি বক্সে তাদের কাউকে ধর্ষিত হতে হবে। তবে যদি পেনাল্টি আমরা পেনাল্টি পাই।'

ব্রিটিশ কোচের এইধরনের মন্তব্যের নজির বিশ্ব ফুটবলে কোথাও নেই। আন্তর্জাতিক ফুটবলেও এমন কুরুচিকর মন্তব্য আগে কখনও হয়েছে কিনা তা সন্দেহ। ওই মন্তব্যের জেরে ব্রিটিশ কোচের ঔদ্ধত্য নিয়েও প্রশ্ন উঠেছে। প্রসঙ্গত স্টুয়ার্ট একা নন ইস্টবেঙ্গলের কোচ রবি ফাওলার,মোহনবাগানের কোচ হাবাস ও এর আগে রেফারি, ম্যাচ কমিশনারের বিরুদ্ধে ক্ষোভ উগড়ে দিয়েছেন। কিন্তু কেউই শালীনতার সীমা ছা়ড়াননি। 

ঘটনায় ওড়িশা এফসি নিঃশর্ত ক্ষমা চেয়ে বিবৃতি পেশ করেছে। তারা বলেছে ‘ ম্যাচের পর স্টুয়ার্ট ব্যাক্সটারের মন্তব্যে হতবাক ক্লাব। উনি যা বলেছেন, তা ক্লাব মেনে নিতে পারছে না। ক্লাবের কর্মপদ্ধতি, ভাবধারার সঙ্গে যা একেবারেই মেলে না। তাই ক্লাব নিঃশর্ত ক্ষমাপ্রার্থী।'এরপরেই ৬৭ বছরের স্টুয়ার্টকে বরখাস্তের সিদ্ধান্ত নেয় ক্লাব।

বন্ধ করুন