বাংলা নিউজ > ময়দান > সচিনের পরামর্শেই খারাপ সময় কাটিয়ে উঠেছেন, পৃথ্বী জানালেন, অস্ট্রেলিয়া থেকে ফেরার পর তাঁকে কী বলেছিলেন তেন্ডুলকর
সচিন তেন্ডুলকর ও পৃথ্বী শ। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।
সচিন তেন্ডুলকর ও পৃথ্বী শ। ছবি- ইনস্টাগ্রাম।

সচিনের পরামর্শেই খারাপ সময় কাটিয়ে উঠেছেন, পৃথ্বী জানালেন, অস্ট্রেলিয়া থেকে ফেরার পর তাঁকে কী বলেছিলেন তেন্ডুলকর

  • চলতি বিজয় হাজারে ট্রফিতে ইতিমধ্যেই চারটি সেঞ্চুরি করেছেন তরুণ ওপেনার।

প্রত্যাশা ছিল বিস্তর, যদিও আমিরশাহিতে আইপিএল ২০২০ অভিযান মনে রাখার মতো হয়নি পৃথ্বী শ'র। পরে অস্ট্রেলিয়া সফরে একটি মাত্র টেস্ট খেলে জাতীয় দল থেকে বাদ পড়তে হয় তরুণ ওপেনারকে। পৃথ্বীর টেকিনকে সমস্য রয়েছে বলে দাবি করেন বিশেষজ্ঞরা।

অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশে ফিরে দিল্লি ক্যাপিটালসের সহকারী কোচ প্রবীণ আমরের তত্ত্ববধানে দিন পাঁচেক অনুশীলন করেন পৃথ্বী। দেখা করেন কিংবদন্তি সচিন তেন্ডুলকরের সঙ্গে। সচিনের মূল্যবান পরামর্শই যে, তাঁকে খারাপ সময় কাটিয়ে উঠতে সাহায্য করেছে, জানাতে কুণ্ঠা বোধ করলেন না পৃথ্বী।

চলতি বিজয় হাজারে ট্রফির ৭ ম্যাচে ১৮৮.৫ গড়ে ইতিমধ্যেই ৭৫৪ রান সংগ্রহ করেছেন পৃথ্বী, যা টুর্নামেন্টের ইতিহাসে সর্বকালীন রেকর্ড। অপরাজিত ২২৭ রানের রেকর্ড ইনিংস ছাড়াও তিনি ১০৫, অপরাজিত ১৮৫ ও ১৬৫ রানের আরও তিনটি মূল্যবান ইনিংস খেলেন।

ছন্দে ফেরার পর ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেসকে পৃথ্বী বলেন, ‘আমি ফিরে এসে সচিন স্যারের সঙ্গে দেখা করি। উনি বলেন, নিজের খেলায় খুব বেশি পরিবর্তন কোরো না এবং শরীরের যতটা সম্ভব কাছে খেলার চেষ্টা করো, যেমনটা আমি করি। বলের কাছে আসতে আমার দেরি হচ্ছিল। সুতরাং, গোটা অস্ট্রেলিয়া সফরে আমি এই দিকটাতেই নজর দিই। হয়ত দুবাইয়ে খেলার পর অস্ট্রেলিয়ায় যাওয়ায় এই সমস্যা হচ্ছিল।'

পৃথ্বী আরও বলেন, ‘আমার মন বিক্ষিপ্ত হয়ে গিয়েছিল। আমার ব্যাট গালি অঞ্চল থেকে নীচে নামছিল। তবে এভাবেই আমি সারা জীবন রান করেছি। সমস্যা হয়ে দেখা দেয় যেভাবে আমি আউট হই তা নিয়ে। এটা যত তাড়াতাড়ি সম্ভব আমাকে শোধরাতেই হতো। আমার ব্যাক লিফট একই ছিল। তবে ব্যাট নীচে নামছিল শরীর থেকে কিছুটা দূরে। রীতিমতো সমস্যায় ছিলাম। ব্যাট শরীরের কাছে রাখা দরকার ছিল, অথচ সেটা কিছুতেই হচ্ছিল না।’

বন্ধ করুন