বাংলা নিউজ > ময়দান > চ্যাম্পিয়ন্স লিগের মরণ-বাঁচন ম্যাচ জিতে নকআউট পর্বে রিয়াল মাদ্রিদ

শুভব্রত মুখার্জি

রিয়ালের কাছে ম্যাচটি মরণ-বাঁচন ম্যাচ ছিল। জিতলে তারা নকআউট পর্বে যেত। আর হারলে সমস্যায় পড়ত তারা। দিনের শেষে গ্রুপ শীর্ষে থেকেই নকআউটে গেল রিয়াল মাদ্রিদ।

একদিন আগেও গ্রুপ পর্ব থেকে বাদ পড়ার আশঙ্কা তৈরি হয়েছিল যাঁদের ঘীরে, সেই রিয়াল মাদ্রিদই শেষ ষোলোতে উঠল গ্রুপ চ্যাম্পিয়ন হয়ে।

রিয়ালের এই নাটকীয় পট পরিবর্তনে বা বলা ভালো প্রত্যাবর্তনের নায়ক করিম বেঞ্জেমা। ফরাসি স্ট্রাইকারের জোড়া গোলেই বরুশিয়া মুনশেনগ্ল্যাডবাখকে হারাল রিয়াল মাদ্রিদ। ম্যাচটি হারলে ইউরোপা লিগে খেলতে হতো রিয়াল মাদ্রিদের মতো ক্লাবকে।

লজ্জা এড়াতে জিততেই হতো জিদানের ছেলেদের। স্প্যানিশ জায়ান্টদের কাছে রীতিমতো পর্যুদস্ত হল বরুশিয়া মুনশেনগ্ল্যাডবাখ।

৯ মিনিটে প্রথম গোল করে দলকে এগিয়ে দেন বেঞ্জেমা। ৩১ মিনিটে আবারও হেড থেকে স্কোর করেন তিনি। লিওনেল মেসি ও ক্রিশ্চিয়ানো রোনাল্ডোর পর তৃতীয় ফুটবলার হিসেবে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের গ্রুপ পর্বে ৫০ গোলের কীর্তি স্পর্শ করলেন বেঞ্জেমা।

দু'বার হ্যাটট্রিকের সুযোগও পেয়েছিলেন। তবে ভাগ্য সঙ্গে না থাকায় তা আর হয়ে ওঠেনি। এই ম্যাচ জিতে যেমন একদিকে নকআউটে গেছে জিদানের ছেলেরা, ঠিক তেমনি ম্যাচ হারলেও শেষ ষোলোয় পৌঁছে গেছে মুনশেনগ্ল্যাডব্যাখ।

বন্ধ করুন