বাংলা নিউজ > ময়দান > ধোনিকে খেলাতে সৌরভ এবং নির্বাচকদের প্রায় ১০ দিন বোঝাতে হয়: কিরণ মোরে
ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার কিরণ মোরে (ছবি: গুগল)
ভারতের প্রাক্তন ক্রিকেটার কিরণ মোরে (ছবি: গুগল)

ধোনিকে খেলাতে সৌরভ এবং নির্বাচকদের প্রায় ১০ দিন বোঝাতে হয়: কিরণ মোরে

  • কিরণ মোরে নির্বাচক থাকাকালীনই জাতীয় দলে সুযোগ পান ধোনি।

ভারতীয় ক্রিকেটে সর্বকালের সেরা উইকেটকিপার বললে মহেন্দ্র সিং ধোনির নাম নেবে না এমন লোকের সংখ্যা নেহাতই হাতে গোনা। ব্যাটসম্যান ধোনি তো বটেই উইকেটকিপার হিসাবেও ধোনির চতুরতা ও দক্ষতার জুড়ি মেলা ভার। তবে এই উইকেটকিপার-ব্যাটসম্যানকেই একসময় সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় নিজের দলে খেলাতে চাননি।

রাহুল দ্রাবিড়ের পরে সময়ের সঙ্গে তাল মেলাতে এমন একজন উইকেটকিপারের খোঁজে ছিল ভারতীয় দল, যে ব্যাট হাতে নীচের দিকে নেমে দ্রুত গতিতে রান করতে পারে। সেই খোঁজেই ধোনির সন্ধান পান তৎকালীন প্রধান নির্বাচক কিরণ মোরে।

তবে ধোনিকে ইস্ট জোনের দলে উইকেটকিপার হিসাবে জায়গা পাইয়ে দিতে নাজেহাল হতে হয় কিরণ মোরেকে। সেই সময়ে ভারত তথা ইস্ট জোনের অধিনায়ক সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে প্রায় ১০ দিন মানানোর পরেই ম্যাচে তখনকার ভারতীয় উইকেটকিপার দীপ দাশগুপ্তর বদলে উইকেটকিপিংয়ের সুযোগ পান ধোনি।

সেই ঘটনার কথা মনে করে এক সাম্প্রতিক সাক্ষাৎকারে মোরে বলেন, ‘ও (ধোনি) সর্বপ্রথম আমার এক সহকর্মীর নজরে পড়ে। আমি যে ম্যাচে ওর খেলা দেখতে যাই, সেই ম্যাচে দলের ১৭০ রানের মধ্যে ও একাই ১৩০ করে। তাই ওকে আমরা ম্যাচে উইকেটকিপার হিসাব খেলাতে চাই। এই সময়ই সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় ও দীপ দাশগুপ্তর সঙ্গে আমাদের দীর্ঘ আলাপ আলোচনা করতে হয়। দীপের বদলে ধোনিকে কিপার হিসাবে খেলাতে সৌরভ এবং নির্বাচক প্রায় ১০ দিন মানাতে হয়। ’

তবে সুযোগ পেয়ে মোরের মান রাখেন ধোনি। ‘সেই ম্যাচে ধোনি আশিস নেহরাসহ নর্থ জোনের সকল বোলারদের বিরুদ্ধে বিধ্বংসী মেজাজে ব্যাট করে। ফলস্বরূপ ওকে কেনিয়াতে পাকিস্তান ও কেনিয়ার বিরুদ্ধে ত্রিদেশীয় সিরিজে ভারতীয় এ দলের হয়ে পাঠানো হয়। ওই সিরিজে ও ৬০০ মতো রান করে এবং পরবর্তীকালে কী হয় তা সকলেই জানে।’ স্মৃতিচারণা করে বলেন মোরে।

বন্ধ করুন