বাড়ি > ময়দান > KKR: মানকাডিংকে স্পিরিট বিরোধী বলে কিংবদন্তি বিনু মানকড়কে অপমান করা উচিত নয়, দাবি কার্তিকের
বাটলারকে আউট করছেন অশ্বিন। ছবি- টুইটার।
বাটলারকে আউট করছেন অশ্বিন। ছবি- টুইটার।

KKR: মানকাডিংকে স্পিরিট বিরোধী বলে কিংবদন্তি বিনু মানকড়কে অপমান করা উচিত নয়, দাবি কার্তিকের

  • ICC ও MCC ছাড়াও ব্র্যাডম্যান-গাভাসকররা যেটাকে বৈধ বলে স্বীকৃতি দিয়েছেন, তা স্পিরিট বিরোধী হয় কীভাবে, প্রশ্ন তুললেন নাইট অধিনায়ক। 

আইপিএল শুরু হয়নি এখনও। তার আগেই গত বছরের একটি বিতর্ক নিয়ে বিস্তর আলোচনা চলছে ভারতীয় ক্রিকেটমহলে। শুধু ভারতীয় ক্রিকেটমহলে বললে ভুল বলা হবে। বরং আইপিএলের অন্দরমহলেও চলছে চর্চা, যেখানে ভারতীয় ছাড়াও আন্তর্জাতিক তারকারাও রয়েছেন।

গতবছর রাজস্থান রয়্যালস বনাম কিংস ইলেভেন পঞ্জাব ম্যাচে জোস বাটলার মানকাডিংয়ের শিকার হয়েছিলেন। বোলার ছিলেন রবিচন্দ্রন অশ্বিন। আইসিসির নিয়মে এই রান-আউট বৈধ হলেও ক্রিকেটের স্পিরিট নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন অনেকেই।

অশ্বিন এবার পঞ্জাব থেকে যোগ দিয়েছেন দিল্লি ক্যাপিটালসে। ক'দিন আগে দিল্লি কোচ রিকি পন্টিং জানান যে, তিনি দিল্লির কোচ থাকাকালীন অশ্বিনকে মানকাডিংয়ের অনুমতি দেবেন না। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই প্রতিক্রিয়া দিতে শুরু করেছে ক্রিকেটমহল।

মানকাডিংয়ের প্রসঙ্গে নাইট অধিনায়ক দীনেশ কার্তিক রবিচন্দ্রন অশ্বিনকে সমর্থন করলেন। তিনি স্পষ্ট জানালেন, আইসিসি-এমসিসির মতো সংস্থা যেটাকে বৈধ বলে স্বীকৃতি দিয়েছে, সেটাকে স্পিরিট বিরোধী বলা যথার্থ নয়। বিশেষ করে যিনি প্রথম এই নিয়ম ব্যবহার করেছিলেন বলে তাঁর নাম জড়িয়ে গিয়েছে এই রান-আউটের সঙ্গে, তিনি ভারতের একজন কিংবদন্তি ক্রিকেটার। মানকাডিংকে স্পিরিট বিরোধী বললে স্বীকার করে নিতে হয় বিনু মানকড় অবৈধ কাজ করেছলেন। একজন লেজেন্ডকে এভাবে অপমান করা উচিত নয় বলেই মনে করেন কার্তিক।

ক্রিকেট নেক্সটের সঙ্গে আলোচনায় নাইট অধিনায়ক মানকডিং নিয়ে দু'টি দিকের কথা কথা উল্লেখ করেন। প্রথমত, এর প্রয়োগ এবং দ্বিতীয়ত, এর নাম। 

কার্তিক বলেন, ‘ডন ব্র্যাডম্যান থেকে সুনীল গাভাসকর পর্যন্ত কিংবদন্তিরা বলে আসছেন যে, এটা সম্পূর্ণ বৈধ। আইসিসি ও এমসিসি এটাকে একটা রান-আউট বলে স্বীকৃতি দিয়েছে। তাই এর মধ্যে নেতিবাচক কিছু রয়েছে বলে মনে করি না। তাছাড়া যিনি প্রথমবার এই রান-আউট করেছিলেন, তিনি হলেন বিনু মানকড়। এই আউট করার আগে তিনি যথেষ্ট সচেতন ছিলেন। অবাক করার বিষয় হচ্ছে, যিনি আউট হয়েছিলেন, সেই বিল ব্রাউনের নাম কেউ মনে রাখেননি। মানকড় নিয়ম মেনেই এই আউট করেছিলেন বলেই আইসিসি তাঁকে স্বীকৃতি দিয়েছে। তাই মানকড়ের নাম কোনওভাবেই নেতিবাচক মানসিকতায় ব্যবহার করা উচিত নয়।’

বন্ধ করুন