ক্যাপ্টেন বিরাটের পরামর্শ পৃথ্বীকে। ছবি- এএনআই।
ক্যাপ্টেন বিরাটের পরামর্শ পৃথ্বীকে। ছবি- এএনআই।

ভুল থেকে শিক্ষা নিয়েছি, স্বীকারোক্তি টিম ইন্ডিয়ার তরুণ ওপেনার পৃথ্বীর

  • ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা কতটা যন্ত্রণাদায়ক, তা অনুভব করেছেন তরুণ মু্ম্বইকর। সঙ্গত কারণেই ভবিষ্যতে সতর্ক থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জাতীয় দলের নবাগত তারকা।

নিজের অজান্তেই যে ভুল একবার করেছেন, আর কখনও তার পুনরাবৃত্তি হবে না। এমনই দৃঢ় সংকল্প শোনাল টিম ইন্ডিয়ার তরুণ ওপেনার পৃথ্বী শ'কে।

নিষিদ্ধ ড্রাগ নেওয়ার দায়ে ইতিমধ্যেই সব রকমের ক্রিকেট থেকে সাময়িক নির্বাসিত হতে হয়েছিল পৃথ্বীকে। ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা কতটা যন্ত্রণাদায়ক, তা অনুভব করেছেন তরুণ মু্ম্বইকর। সঙ্গত কারণেই ভবিষ্যতে সতর্ক থাকার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন জাতীয় দলের নবাগত ওপেনার।

ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়াই কাশির সিরাপ নিয়েছিলেন পৃথ্বী। জানতেন না যে, তাতে নিষিদ্ধ ড্রাগ রয়েছে। ডোপ টেস্টে ধরা পড়ায় পৃথ্বীকে ৮ মাসের জন্য নির্বাসিত করা হয় ভারতীয় বোর্ডের তরফে। নভেম্বরে নির্বাসন উঠে যাওয়ার পর মাঠে নামেন মুম্বই ও ভারতীয়-এ দলের হয়ে। ধারাবাহিকতা দেখানোয় তাঁকে পুনরায় ফিরিয়ে নেওয়া হয় টিম ইন্ডিয়ার অন্দরমহলে।

এমন তিক্ত অভিজ্ঞতা নিয়ে পৃথ্বী বলেন, 'আপনি কী গ্রহণ করবেন সে সম্পর্কে সবসময় সচেতন থাকতে হবে। প্যারাসিটামলের মতো একটা সাধারণ ড্রাগও ডাক্তারের পরামর্শ ছাড়া নেওয়া উচিত নয়। যেসব উঠতি ক্রিকেটার এই সম্পর্কে অবগত নয়, তাদের বিশেষ সতর্ক থাকা উচিত।'

পৃথ্বী আরও বলেন, 'একটা ছোট্ট ওষুধও আপনার ডাক্তার বা BCCI-এর ডাক্তারের অনুমতি নিয়ে খাওয়া উচিত। ডাক্তারের থেকে নিষিদ্ধ ড্রাগ সম্পর্কে জেনে নেওয়া দরকার এবং পরবর্তী সময়ে সমস্যা এড়াতে সেগুলি সম্পর্কে সচেতন হওয়াই ভালো।'

শেষে বছর কুড়ির ডান হাতি ব্যাটসম্যান বলেন যে, তিনি ভুল থেকে শিক্ষা নিয়েছেন। তাঁর কথায়, 'আমার ক্ষেত্রেই দেখুন। একটা কাশির সিরাপ খেয়েছিলাম। তাতে যে নিষিদ্ধ ড্রাগ থাকতে পারে কে জানত! সেই ভুল থেকে আমি শিক্ষা নিয়েছি। আর কখনও এমন ভুলের পুনরাবৃত্তি হবে না। ক্রিকেট থেকে দূরে থাকা অত্যন্ত যন্ত্রণার। এটা আর হতে দেওয়া যায় না।'

বন্ধ করুন