বাংলা নিউজ > ময়দান > সৌরভ গাঙ্গুলি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগ, শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে দেওয়া হচ্ছে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর
বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (ছবি: গুগল)
বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় (ছবি: গুগল)

সৌরভ গাঙ্গুলি ফাউন্ডেশনের উদ্যোগ, শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে দেওয়া হচ্ছে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর

  • মানবিক মহারাজ। বেহালার বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে তিনি ২টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেছেন। কোভিডে আক্রান্ত গুরুতর রোগীদের চিকিৎসার কাজে তা ব্যবহার করা হবে। শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে সৌরভ গাঙ্গুলি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে দেওয়া হবে আরও ৫০টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর।

করোনা পরিস্থিতিতে অক্সিজেনের চাহিদা কিছুটা মেটাতে এগিয়ে এলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই বেহালার বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে তিনি ২টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেছেন। 

বেহালার বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ২টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেছেন সৌরভ
বেহালার বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে ২টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেছেন সৌরভ

কোভিডে আক্রান্ত গুরুতর রোগীদের চিকিৎসার কাজে তা ব্যবহার করা হবে। শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে সৌরভ গাঙ্গুলি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে দেওয়া হবে আরও ৫০টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর। 

কোভিড আর্তদের সাহায্যে এবার এগিয়ে এলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। শনিবার সৌরভকে চিঠি লিখে অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের প্রাপ্তিস্বীকার করেন বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালের সুপারিন্টেন্ডেন্ট। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, তানিয়া ভট্টাচার্য নামে এক মহিলা মারফত তিনি দুটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর পেয়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি থাকা কোভিড রোগীদের চিকিৎসার কাজে তা ব্যবহার করা হবে। বেহালার সাধারণ মানুষের পাশে থাকার জন্য সৌরভের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়েছে।

অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মানবিক উদ্যোগেও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। পাটুটিতে পরমব্রত যে পার্লারের বন্দোবস্ত করেছেন সেখানে দুটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেছেন মহারাজ। রাজারহাটে একটি অক্সিজেন পার্লারেও অক্সিজেন কনসেনট্রেটর দিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

গোটা দেশে ইতিমধ্যেই বহু মানুষ অক্সিজেনের অভাবে মারা গিয়েছেন। রাজধানী দিল্লির পাশাপাশি অক্সিজেনের চাহিদা দিনের পর দিন বেড়ে চলেছে কলকাতাতেও। অক্সিজেনের কালোবাজারিও মাত্রা দিয়ে বেড়ে চলেছে। এ অবস্থায় বসে না থেকে এগিয়ে এলেন বোর্ড সভাপতিও।

ইতিমধ্যেই সাধারণ মানুষের সেবায় বহু প্রাক্তন এবং বর্তমান ক্রিকেটারকে এগিয়ে আসতে দেখা গিয়েছে। সৌরভের দীর্ঘদিনের ওপেনিং জুটি সচিন তেন্ডুলকর অক্সিজেন কনসেনট্রেটর কেনার জন্য ‘মিশন অক্সিজেন’ প্রকল্পে ১ কোটি টাকা দান করেছেন। 

এই প্রথম নয়, এর আগেও অর্থাৎ দেশে করোনার দাপট শুরু হতেই সাধারণ মানুষের সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছিলেন সৌরভ। দুস্থদের খাবারের বন্দোবস্ত থেকে প্রাক্তন কোচের চিকিৎসার খরচ, সব দায়িত্বই তুলে নিয়েছিলেন নিজের কাঁধে। আর করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশজুড়ে অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে। তাই সংকটের সময় ফের ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেন প্রিন্স অফ ক্যালকাটা।

করোনা পরিস্থিতিতে অক্সিজেনের চাহিদা কিছুটা মেটাতে এগিয়ে এলেন বিসিসিআই সভাপতি সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই বেহালার বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালে তিনি ২টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেছেন। কোভিডে আক্রান্ত গুরুতর রোগীদের চিকিৎসার কাজে তা ব্যবহার করা হবে। শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে সৌরভ গাঙ্গুলি ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে দেওয়া হবে আরও ৫০টি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর। 

কোভিড আর্তদের সাহায্যে এবার এগিয়ে এলেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। শনিবার সৌরভকে চিঠি লিখে অক্সিজেন কনসেনট্রেটরের প্রাপ্তিস্বীকার করেন বিদ্যাসাগর স্টেট জেনারেল হাসপাতালের সুপারিন্টেন্ডেন্ট। চিঠিতে তিনি লিখেছেন, তানিয়া ভট্টাচার্য নামে এক মহিলা মারফত তিনি দুটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর পেয়েছেন। হাসপাতালে ভর্তি থাকা কোভিড রোগীদের চিকিৎসার কাজে তা ব্যবহার করা হবে। বেহালার সাধারণ মানুষের পাশে থাকার জন্য সৌরভের কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা হয়েছে।

অভিনেতা পরমব্রত চট্টোপাধ্যায়ের মানবিক উদ্যোগেও সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়। পাটুটিতে পরমব্রত যে পার্লারের বন্দোবস্ত করেছেন সেখানে দুটি অক্সিজেন কনসেনট্রেটর প্রদান করেছেন মহারাজ। রাজারহাটে একটি অক্সিজেন পার্লারেও অক্সিজেন কনসেনট্রেটর দিয়েছেন সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়।

গোটা দেশে ইতিমধ্যেই বহু মানুষ অক্সিজেনের অভাবে মারা গিয়েছেন। রাজধানী দিল্লির পাশাপাশি অক্সিজেনের চাহিদা দিনের পর দিন বেড়ে চলেছে কলকাতাতেও। অক্সিজেনের কালোবাজারিও মাত্রা দিয়ে বেড়ে চলেছে। এ অবস্থায় বসে না থেকে এগিয়ে এলেন বোর্ড সভাপতিও।

ইতিমধ্যেই সাধারণ মানুষের সেবায় বহু প্রাক্তন এবং বর্তমান ক্রিকেটারকে এগিয়ে আসতে দেখা গিয়েছে। সৌরভের দীর্ঘদিনের ওপেনিং জুটি সচিন তেন্ডুলকর অক্সিজেন কনসেনট্রেটর কেনার জন্য ‘মিশন অক্সিজেন’ প্রকল্পে ১ কোটি টাকা দান করেছেন। 

এই প্রথম নয়, এর আগেও অর্থাৎ দেশে করোনার দাপট শুরু হতেই সাধারণ মানুষের সাহায্যার্থে এগিয়ে এসেছিলেন সৌরভ। দুস্থদের খাবারের বন্দোবস্ত থেকে প্রাক্তন কোচের চিকিৎসার খরচ, সব দায়িত্বই তুলে নিয়েছিলেন নিজের কাঁধে। আর করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে দেশজুড়ে অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে। তাই সংকটের সময় ফের ত্রাতার ভূমিকায় অবতীর্ণ হলেন প্রিন্স অফ ক্যালকাটা।|#+|

 

বন্ধ করুন