বাংলা নিউজ > ময়দান > শেষ পর্যন্ত সাইনা-শ্রীকান্তরা কি টোকিও অলিম্পিক্সে অংশ নিতে পারবেন!
সাইনা নেহওয়াল ও কিদম্বি শ্রীকান্ত (ছবি: গুগল)
সাইনা নেহওয়াল ও কিদম্বি শ্রীকান্ত (ছবি: গুগল)

শেষ পর্যন্ত সাইনা-শ্রীকান্তরা কি টোকিও অলিম্পিক্সে অংশ নিতে পারবেন!

  • ২৫শে মে থেকে মালেশিয়াতে শুরু হচ্ছে মালেশিয়া ওপেন। ১লা জুন থেকে কুয়ালা লামপুরে বসত সিঙ্গাপুর ওপেন। এই দুই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়ার কথা ছিল সাইনা-শ্রীকান্তদের। কিন্তু বর্তমানে ভারতে করোনার যা পরিস্থিতি তাতে মালেশিয়া যাওয়ার রাস্তা বন্ধ হয়েগেছে সাইনাদের সামনে।

এখন ভাগ্যের সরু সুতোর উপর ছুলছে সাইনা নেহওয়াল ও কিদম্বি শ্রীকান্তদের টোকিও অলিম্পিক্সের ভবিষ্যৎ। আদৌ কি সাইনা-শ্রীকান্তরা টোকিও অলিম্পিক্সে অংশ নিতে পারবেন? এখন এই প্রশ্নটাই ঘুরে বেড়াচ্ছে ভারতীয় ক্রীড়ামহলে। সমস্তটা নির্ভর করছে মালেশিয়ান সরকারের উপর। ভারত সরকারের তরফ থেকে আর্জি গেছে মালেশিয়ান সরকারের কাছে। যেন ভারতীয় শাটলারদের জন্য নিজেদের নিয়ম বদলায় মালেশিয়া সরকার। এখন দেখার সেই দেশের সরকার ভারতের আর্জিতে সারা দেয় নাকি সাইনা-শ্রীকান্তদের টোকিও অলিম্পিক্সের স্বপ্ন শেষ হয়।  

২৫শে মে থেকে মালেশিয়াতে শুরু হচ্ছে মালেশিয়া ওপেন। সেখানেই অংশ নেওয়ার কথা ভারতীয় শাটলারদের। টুর্নামেন্ট শেষ হত ৩০শে মে। এরপর ১লা জুন থেকে কুয়ালা লামপুরে বসত সিঙ্গাপুর ওপেন। এই দুই টুর্নামেন্টে অংশ নেওয়ার কথা ছিল সাইনা-শ্রীকান্তদের। সেই টুর্নামেন্ট থেকেই অলিম্পিক্স খেলার যোগ্যতা অর্জন করতে পারতেন তাঁরা। কিন্তু বর্তমানে ভারতে করোনার যা পরিস্থিতি তাতে মালেশিয়া যাওয়ার রাস্তা বন্ধ হয়েগেছে সাইনাদের কাছে। 

বর্তমানে ভারতে করোনার বাড়বাড়ন্তের জন্য সব কিছুতেই ধাক্কা খাচ্ছে ভারত। কোভিডে ভারত দিন দিন রেকর্ড অঙ্ক স্পর্শ করছে। দেশের মৃত্যুর হার বাড়ছে। ফলে ভারতকে নিয়ে আতঙ্কে রয়েছে বিশ্ব। বিশ্বের বহু দেশ ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা বিচ্ছিন্ন করেছে। বহু দেশ বলে দিয়েছে ভারতের বিমান তারা তাদের দেশের মাটিতে এমুহূর্তে নামতে দেবেননা। সেই তালিকায় রয়েছে মালেশিয়াও। 

মালেশিয়ার সরকার চলতি বছরের ২৮শে এপ্রিল থেকে ভারতীয়দের ভ্রমণ উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ফলে কোনও ভারতীয় এমুহূর্তে মালেশিয়াতে যেতে পারবেননা। এমন অবস্থায় সাইনা-শ্রীকান্তদের জন্য আর্জি করে ভারত সরকার। বলা হয় যেন ভারতীয় শাটলারদের ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে মালেশিয়া সরকার যেন তাদের নিয়মে কিছুটা ছাড় দেয়। কিন্তু মালেশিয়া সরকার প্রাথমিকভাবে জানিয়ে দিয়েছে এমন কঠিন পরিস্থিতে তারা নিজেদের দেশের নিয়ম ভাঙতে পারবেননা। এরপরেও ভারত সরকারের তরফ থেকে মালেশিয়া সরকারের সঙ্গে কথা বার্তা চালান হচ্ছে। সবুজ সংকেত পাওয়ার আশায় রয়েছেন সকলে।  

বন্ধ করুন