বাংলা নিউজ > ময়দান > ভারতীয় ক্যাম্পে নিশ্চিন্তে থাকতে পারছেন না মিতালি
মিতালি রাজের বাবা দোরাই রাজ অর্থ ও খাবার তুলে দিচ্ছেন, মাস্ক তার নাকের নিচে (ছবি: টুইটার)
মিতালি রাজের বাবা দোরাই রাজ অর্থ ও খাবার তুলে দিচ্ছেন, মাস্ক তার নাকের নিচে (ছবি: টুইটার)

ভারতীয় ক্যাম্পে নিশ্চিন্তে থাকতে পারছেন না মিতালি

  • মিতালির চিন্তার কারণ তাঁর বাবা। বলা ভাল বাবার মাস্ক নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন মিতালি। তাঁর বাবা যে ঠিক করে মাস্ক পড়ছেন না। বা বলা ভাল ঠিক মতো মাস্ক পড়েননা। আর সেটাই ভাবাচ্ছে মিতালিকে।

বর্তমানে ইংল্যান্ড সফরের জন্য ভারতীয় দলের সঙ্গে রয়েছেন ভারতীয় মহিলা ক্রিকেটার মিতালি রাজ। দল ইংল্যান্ড যাওয়ার আগে নিভৃতবাসে সময় কাটাচ্ছেন। বিরাট কোহলিদের সঙ্গেই টিম হোটেলে রয়েছেন মিতালি অ্যান্ড কোম্পানি। সেখান থেকে ২রা জুন দলের সঙ্গে ইংল্যান্ডের উদ্দেশ্যে রওনা হবেন মিতালি। তবে তার আগে বেশ চিন্তায় রয়েছেন ভারতীয় মহিলা দলের অধিনায়ক মিতালি রাজ। 

মিতালির চিন্তার কারণ তাঁর বাবা। বলা ভাল বাবার মাস্ক নিয়ে চিন্তায় রয়েছেন মিতালি। তাঁর বাবা যে ঠিক করে মাস্ক পড়ছেন না। বা বলা ভাল ঠিক মতো মাস্ক পড়েননা। আর সেটাই ভাবাচ্ছে মিতালিকে।

আসলে দেশে কোভিড ছড়িয়ে পড়ার পর থেকেই মিতালি নিজের উদ্যোগে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেন। সেই মতো নিজের কাজ শুরু করেছিলেন মিতালি। নানা সময় সাধারণ মানুষের মধ্যে খাবার বিতরণ করতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে।

এরপরে তিনি তেলেঙ্গানা মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিল ও প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে ৫লক্ষ টাকা করে দিয়েছিলেন।

এরপরে কোভিডের দ্বিতীয় ঢেউ থেকেই নিজের উদ্যোগে সাধারণ মানুষের হাতে খাবার ও অল্প অর্থ তুলে দিতে শুরু করেন তিনি। কিন্তু বর্তমানে টিম ইন্ডিয়ার সঙ্গে এখন তিনি দলের ক্যাম্পে নিভৃতবাসে রয়েছেন। তবে এরমাঝেও তার সেই কাজ চালিয়ে যাচ্ছেন মিতালি রাজের বাবা দোরাই রাজ। 

 

তিনি বাড়িতেই এলাকার অটো চালকদের হাতে খাবার ও কিছু অর্থ তুলে দেন। কিন্তু এই কাজ করার সময় দোরাই রাজের মুখের মাস্ক নামানো ছিল। ঠিক মতো মাস্ক না পড়েই এমন কাজ করছিলেন মিতালির বাবা। 

বাবার সেই ছবি পোস্ট করে দেন মিতালি। তারপর লিখলেন, ‘মিতালি রাজের উদ্যোগে অটো চালকদের খাদ্যশস্য বিতরণ করা হচ্ছে এবং সামান্য পরিমাণ অর্থও দেওয়া হচ্ছে। COVID এর পরিস্থিতির জন্য গত বছর থেকে আমরা এই কাজটি শুরু করেছিলাম। বাবা আমার অনুপস্থিতিতে এই কাজটি করছেন। শুধু সমস্যা তার মাস্ক।’

বন্ধ করুন