বাংলা নিউজ > ময়দান > নেই গোলরক্ষক, নেই বদলি ফুটবলার, ইতিহাসে অবিশ্বাস্য ম্যাচ জিতল মেসির দেশের ক্লাব
ম্যাচ জেতার পরে রিভার প্লেটের সেলিব্রেশন ম্যাচের সেরা সবুজ জার্সি পড়ে এঞ্জো পেরেজ (ছবি: গুগল)
ম্যাচ জেতার পরে রিভার প্লেটের সেলিব্রেশন ম্যাচের সেরা সবুজ জার্সি পড়ে এঞ্জো পেরেজ (ছবি: গুগল)

নেই গোলরক্ষক, নেই বদলি ফুটবলার, ইতিহাসে অবিশ্বাস্য ম্যাচ জিতল মেসির দেশের ক্লাব

দলের ২০জন ফুটবলার করোনায় আক্রান্ত, দলে নেই বদলি ফুটবলার, মিডফিল্ডার নামলেন তিনকাঠি সামলাতে, এমন অবস্থাতে অবিশ্বাস্য জয় পেল মেসির দেশের ক্লাব। করোনার চ্যালেঞ্জকে বুড়ো আঙুল দেখিয়ে ফুটবল ইতিহাসে অবিশ্বাস্য জয় পেল মেসির দেশের ক্লাব রিভার প্লেট। 

অবিশ্বাস্য, অসম্ভব, আপনিও শুনলে বলবেন এটা কখন হতেই পারেনা। কিন্তু হ্যা বিশ্ব ফুটবলে সেটাই হল। ইতিহাস তৈরি হল বিশ্ব ফুটবলে। সেই ইতিহাস তৈরি করল মেসির দেশের ক্লাব। খেলার মাঠে করোনাকে হার মানতে বাধ্য করল আর্জেন্তিনার ফুটবল ক্লাব রিভার প্লেট। এই অসম্ভবকে সম্ভব করলেন রিভার প্লেটের ফুটবলার এঞ্জো পেরেজ।

কয়েকদিন আগেই আর্জেন্তিনার জনপ্রিয় ক্লাব রিভার প্লেটের পাঁচজন ফুটবলার একসঙ্গে করোনা পজিটিভ হয়েছিলেন। যার ফলে বুধবার কোপা লিবারটেডরসের ম্যাচে কলম্বিয়ান ক্লাব সান্তা ফে’র বিপক্ষে নামার আগে রিভার প্লেটের মোট ২০জন ফুটবলার করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন। যার মধ্যে দলের ৪জন গোলরক্ষকও করোনায় আক্রান্ত ছিলেন। এরমধ্যেই চোট আঘাত তো ছিলই। এমন অবস্থায় কোনও গোলরক্ষক ছাড়াই রিভার প্লেটকে নামতে হবে কলম্বিয়ান ক্লাব সান্তা ফে’র বিপক্ষে। 

আর্জেন্তিনার শক্তিশালী এই ফুটবল ক্লাব কোপা লিবারটেডরসে নামার আগে দক্ষিণ আমেরিকার ফুটবলের সর্বোচ্চ সংস্থা কনমেবলকে জানায় যে তাদের গোলকিপার পরিবর্তন করার জন্য যেন নিয়মে ছাড় দেওয়া হয়। তবে তাতে সারা দেয়নি সেখানকার ফুটবল সংস্থা। এমন অবস্থায় মোট ১১জন ফুটবলারকে নিয়েই মাঠে নামতে হল রিভার প্লেটকে। তাদের দলে চোট পাওয়া মিডফিল্ডার এঞ্জো পেরেজকে এক প্রকার জোর করেই তিন কাঠির নিচে নামাতে হয়। এরপর যা হল সেটা ইতিহাস। কোনও সাবসিটিউট ছাড়াই ১১জনের ফুটবলার এই ম্যাচে নামলেন। ম্যাচ জিতলেন ২-১ গোলে। ম্যাচের সেরা নির্বাচিত হলেন রিভার প্লেটের গোলরক্ষক এঞ্জো পেরেজ।

এর আগে চোট আঘাত ও করোনার পরিস্থিতিতে বুধবারের ম্যাচটি বাতিলের জন্য কনমেবলের কাছে অনুরোধ করেছিল রিভার প্লেট। কিন্তু সে প্রস্তাবে কান দেয়নি কনমেবল। ফলে মাত্র ১১ জন ফুটবলারকে নিয়েই মাঠে নামতে হয়েছিল রিভার প্লেটকে। একজন ফুটবলারও ৯০ মিনিট মাঠ ছাড়তে পারেননি। চোট নিয়েই ৯০ মিনিট রিভারের তিনকাঠি সামলেছিলেন পেরেজ। ম্যাচের সেরাও হন এঞ্জো পেরেজ। 

এদিন ম্যাচের ৩ মিনিট ও ৬ মিনিটেই এগিয়ে গিয়েছিল গিয়েছিল রিভার প্লেট। প্রথম গোটলি করেছিলেন ফ্যাব্রিজিও অ্যাঞ্জিলেরি ও দ্বিতীয় গোলটি করেন জুলিয়ান আলভারেজ। সান্তা ফের হয়ে একমাত্র গোলটি করেন কেলভিন ওসোরিও। এদিনের ম্যাচ জিতে গ্রুপের শীর্ষস্থান ধরে রাখল রিভার প্লেট।
 

বন্ধ করুন