বাংলা নিউজ > ময়দান > ক্যারিবিয়ানদের হোয়াইটওয়াশ করে মিকি আর্থারকে শেষবেলার 'উপহার' ধনঞ্জয়াদের
দারুণ উপহার পেলেন মিকি আর্থার (ছবি:গেটি ইমেজ)
দারুণ উপহার পেলেন মিকি আর্থার (ছবি:গেটি ইমেজ)

ক্যারিবিয়ানদের হোয়াইটওয়াশ করে মিকি আর্থারকে শেষবেলার 'উপহার' ধনঞ্জয়াদের

  • সিরিজ জয় শেষে আলাদা করে সম্মান প্রদান করা হল আর্থারকে। ক্রিকেটার থেকে সদস্য সমর্থক সকলেই অভিবাদন জানিয়েছেন মিকি আর্থারকে।

শুভব্রত মুখার্জি: ক্যারিবিয়ানদের বিরুদ্ধে দেশের মাটিতে লঙ্কানদের টেস্ট সিরিজ ছিল তাদের প্রধান কোচ মিকি আর্থারের শেষ ম্যাচ। দুই ম্যাচের টেস্ট সিরিজের দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচে ওয়েস্ট ইন্ডিজকে ১৬৪ রানে হারিয়ে মিকি আর্থারকে এক 'পারফেক্ট ফেয়ারওয়েল' উপহার দিল শ্রীলঙ্কা দল । এই টেস্ট জয়ের ফলে ২-০ ব্যবধানে ক্যারিবিয়ানদের হোয়াইটওয়াশ করতে সমর্থ হল স্বাগতিক দল। ক্যারিবিয়ানদের হোয়াইটওয়াশ করে আর্থারকে বিদায় জানাতে সক্ষম হল শ্রীলঙ্কা দল। ৮ উইকেটে ৩২৮ রান করে চতুর্থ দিনের খেলা শেষ করার পরে লঙ্কানরা ৯ উইকেটে ৩৪৫ রান নিয়ে ইনিংসের সমাপ্তি ঘোষণা করে দেয় । ২৬২ বল খেলে ১৫৫ রান করে অপরাজিত থাকেন ধনঞ্জয়া ডি'সিলভা। ফলে ক্রেইগ ব্রাথওয়েটদের সামনে জয়ের জন্য লক্ষ্য দাঁড়ায় ২৯৭ রান।

এরপরেই লাসিথ এম্বুলদেনিয়া ও রমেশ মেন্ডিসের স্পিনের কবলে পড়ে ১৩২ রানে অলআউট হয়ে যায় ওয়েস্ট ইন্ডিজ ইনিংস। দুজনেই পাঁচটি করে উইকেট নেন। শ্রীলঙ্কার প্রধান কোচ হিসেবে এটিই ছিল মিকি আর্থারের শেষ ম্যাচ। সিরিজ জয় শেষে আলাদা করে সম্মান প্রদান করা হল আর্থারকে। ক্রিকেটার থেকে সদস্য সমর্থক সকলেই অভিবাদন জানিয়েছেন মিকি আর্থারকে।

ধনঞ্জয়া ডি'সিলভা এবং লাসিথ এম্বুলদেনিয়ার 'ব্রায়ান লারা' সুলভ ইনিংসকে বিদায়বেলায় কুর্নিশ জানাতে ভুললেন না মিকি আর্থার। তিনি বলেন ‘আমি এবার ইমোশনাল হয়ে পড়ছি। বিদায় বেলায় আপনাদের সবার জন্য আমার মন কাঁদছে। ড্রেসিংরুমে যে চরিত্রদের সাথে আমি কাজ করেছি তারা এককথায় অনবদ্য। ধনঞ্জয়ার ইনিংসটা অনবদ্য ছিল। এই ধরনের পিচে যে সহজভাবে ও ইনিংসটা খেলেছে তা এককথায় অবিশ্বাস্য। ওর ট্যালেন্ট এই ইনিংসের মধ্যে দিয়ে বোঝা যায়। আমি জানতাম ২৫০ রানের লিড পাওয়ার পরপরেই আমাদের স্পিনাররা বাকি কাজটা করে দেবে। তবে লাসিথ 'ব্রায়ান লারা' এম্বুলদেনিয়া ওকে যোগ্য সঙ্গত না দিলে এই ইনিংসটা খেলা সম্ভব ছিল না। মেন্ডিস তার বলে অনেকটা স্পিন করাতে সম্ভব।ওর লাইন, লেন্থের উপর কাজ করতে পারলে ওর আরও উন্নতি হবে। আমি এবং গ্রান্ট ফ্লাওয়ার দুজনেই রমেশ মেন্ডিসের ট্যালেন্ট নিয়ে খুব উচ্ছ্বসিত। এইসব অসাধারণ, ট্যালেন্টেড ক্রিকেটারদের ছেড়ে যেতে আমি খুব ইমোশনাল হয়ে পড়ছি।’

∆ শ্রীলঙ্কা ১ম ইনিংস : ২০৪/১০ (নিসাঙ্ক ৭৩, পেরুমল ৩৫/৫)

∆ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ১ম ইনিংস : ২৫৩/১০ (ব্রাথওয়েট ৭২, রমেশ ৭০/৬)

∆ শ্রীলঙ্কা ২য় ইনিংস : ৩৪৫/৯ ডিক্লে (ধনঞ্জয়া ১৫৫*, পেরুমল১০৬/৩)

∆ ওয়েস্ট ইন্ডিজ ২য় ইনিংস : ১৩২/১০ (বোনার ৪৪, এম্বুলদেনিয়া ৩৫/৫)

বন্ধ করুন