বাংলা নিউজ > ময়দান > ২৩ বছর আগের 'মরুঝড়ের' নায়ককে উপেক্ষা, নেটাগরিকদের সমালোচনায় বিদ্ধ আজহার
বিখ্যাত ক্রিকেট ম্যাচের দুই নায়ক। ছবি- আইসিসি।
বিখ্যাত ক্রিকেট ম্যাচের দুই নায়ক। ছবি- আইসিসি।

২৩ বছর আগের 'মরুঝড়ের' নায়ককে উপেক্ষা, নেটাগরিকদের সমালোচনায় বিদ্ধ আজহার

  • বর্তমানে হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহম্মদ আজহারউদ্দিন একটি টুইট করেন এই জয়কে তার অন্যতম সেরা জয় আখ্যা দিয়ে। সেই টুইটে বর্তমান বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে ট্যাগ করলেন জয়ের নায়ক সচিনকে ট্যাগ করেননি তিনি।

শুভব্রত মুখার্জি

আজ থেকে ২৩ বছর আগে ১৯৯৮ সালে শারজার বুকে 'মরু ঝড়ের' সাক্ষী থেকেছিল ক্রিকেটবিশ্ব। সৌজন্যে অবশ্যই ডানহাতি তরুণ কিংবদন্তি ক্রিকেটার সচিন তেন্ডুলকর। তৎকালীন অস্ট্রেলিয়া দল ছিল অপ্রতিরোধ্য। স্টিভ ওয়াহের বাহিনী অশ্বমেধের ঘোড়ার মতন দৌড়াচ্ছিল। শারজার বুকে সেবার তাদের কোকাকোলা কাপের ট্রফি জয় নিশ্চিত এমনটাই ধরে নিয়েছিল গোটা ক্রিকেট বিশ্ব। কিন্তু ব্যাট হাতে সচিনের ভাবনা ছিল অন্য।

প্রসঙ্গত, ফাইনালের ঠিক আগের যে ম্যাচে জিতলে ভারত ফাইনালের জন্য কোয়ালিফাই করত সেখানেও এক অনবদ্য শতরান করে ভারতকে পৌছে দিয়েছিলেন সচিন। ফাইনালে রান তাড়া করতে নেমে সচিন ছিলেন অনবদ্য ব্যাটিং ফর্মে। তাবড় তাবড় অস্ট্রেলীয় বোলারদের রাতের ঘুম কেড়ে নিয়ে ১৩১ বলে ১৩৪ রানের এক অনন্য ইনিংস দর্শকদের উপহার দিয়েছিলেন তিনি। বলা বাহুল্য সচিনের অসাধারণ ব্যাটিংয়ে ভর করেই সেবার অজিদের বিরুদ্ধে আজহারউদ্দিনের নেতৃত্বাধীন ভারত কোকাকোলা কাপের ট্রফি জিতেছিল।

সেই ট্রফি জয়ের ২৩ বছর পূর্তিতে তৎকালীন ভারত অধিনায়ক তথা বর্তমানে হায়দরাবাদ ক্রিকেট অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মহম্মদ আজহারউদ্দিন একটি টুইট করেন এই জয়কে তার অন্যতম সেরা জয় আখ্যা দিয়ে। সেই টুইটে বর্তমান বিসিসিআই প্রেসিডেন্ট সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়কে ট্যাগ করলেন জয়ের নায়ক সচিনকে ট্যাগ করেননি তিনি। আর এতেই নেটিজেনদের রোষের শিকার হয়েছেন আজহারউদ্দিন। সচিনকে ট্যাগ না করার কারনে তাদের রোষানলে পড়েছেন আজহার। তিনি টুইটে লেখেন' আজ থেকে ২৩ বছর আগে এই সপ্তাহেই ভারত,অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে এক ঐতিহাসিক জয় পেয়েছিল। আমরা ক্লাসিক ইউনিট হিসেবে খেলেছিলাম। দেশকে অবিস্মরনীয় জয় উপহার দিয়েছিলাম।দল মরুভূমিতে মরুদ্যান খুজে পেয়েছিল। আমার জীবনের অন্যতম সেরা জয় এটি।'

বন্ধ করুন