বাড়ি > ময়দান > লিগে প্রথম জয়ে বাগান কোচের নজর কাড়লেন বঙ্গসন্তানরা
ট্রাউয়ের বক্সে মোহনবাগানের আক্রমণ  (ছবি সৌজন্যে  আইলিগ)
ট্রাউয়ের বক্সে মোহনবাগানের আক্রমণ (ছবি সৌজন্যে আইলিগ)

লিগে প্রথম জয়ে বাগান কোচের নজর কাড়লেন বঙ্গসন্তানরা

  • ফ্রান গনজালেসের দুটো গোল, একটি করে গোল করলেন সুহের ও শুভ ঘোষ। আর তাতেই বুধবার প্রতিপক্ষ ট্রাউ এফসিকে ৪ গোলে উড়িয়ে দিয়ে কল্যাণীতে আগের ম্যাচে চার্চিলের কাছে ৪ গোলের হারের জ্বালা মেটাল মোহনবাগান।

চলতি আই লিগের প্রথম দুই ম্যাচে জয় অধরা। স্বাভাবিকভাবে পাহাড়প্রমাণ চাপ সৃষ্টি হতে থাকে ময়দানের নামজাদা ক্লাব মোহনবাগানের ওপর। যদিও বুধবার কল্যাণীতে ট্রাউকে ৪-০ গোলে হারিয়ে আই লিগে প্রথম জয় তুলে নিয়ে কিছুটা চাপমুক্ত হল সবুজ-মেরুণ শিবির।

প্রথম ম্যাচে আইজলের সঙ্গে ড্র। দ্বিতীয় ম্যাচে চার্চিল ব্রাদার্সের কাছে হার স্বীকার। দুই ম্যাচ থেকে মাত্র এক পয়েন্ট, হতাশ বাগান সমর্থকরা। যদিও বুধবারের ম্যাচে ভক্তদের মুখে হাসি ফেরালেন কিবু ভিকুনার শিষ্যরা। ট্রাউকে তারা হারালেন ৪-০ গোলে। মোহনবাগানের হয়ে দুটি গোল করলেন ফ্রান গনজালেস ও একটি করে গোল করলেন সুহের ও শুভ ঘোষ।

প্রথম একাদশে দুটো পরিবর্তন করে মোহনবাগান। স্প্যানিশ স্ট্রাইকার সালভা চামারো গোলে দেবজিত মজুমদারকে দলের বাইরে রাখেন কোচ। আগের ম্যাচের হতশ্রী পারফরম্যান্সের জন্য এমন সিদ্ধান্ত নেন কিবু। এ বিষয়ে মোহন কোচের বক্তব্য, ‘দেবজিতের মধ্যে এখন আত্মবিশ্বাসের অভাব। চামারোকে শুধু আজকের ম্যাচের জন্য দলের বাইরে রেখেছি।’ দেবজিতের জায়গায় গোলে শঙ্কর রায়। ম্যাচে শঙ্কর দুটো দারুণ সেভ করেন। তাঁর খেলায় খুশি বেজায় খুশি বাগান কোচ।

খেলা শুরুর ৫ মিনিটের মধ্যেই গোল করেন মোহনবাগানকে এগিয়ে দেন ফ্রান গনজালেস। বেইতিয়ার কর্নার থেকে ড্যানিয়েল সাইরাস বল পাঠিয়ে দিয়েছিলেন ফ্রান গনজালেসের কাছে। সেই বল ধরে গোল করতে ভোলেননি তিনি। প্রথমার্ধেই ২-০ গোলে এগিয়ে যায় মোহনবাগান। ৩৭ মিনিটে গোল করেন সুহের। দ্বিতীয়ার্ধের শুরুতেই গনজালেস স্কোরবোর্ড ৩-০ করেন। বেইতিয়ার ফ্রি কিক লক্ষ্য করে বলটা রিসিভ করে তা জালে জড়ান তিনি। ম্যাচের একেবারে শেষ দিকে গোল করেন শুভ। সারা ম্যাচে ট্রাউ এফসির খেলায় অবশ্য কোনও ঝাঁঝ পাওয়া যায়নি ।

ম্যাচ শেষে মোহনবাগান ভিকুনা বলেন, ‘খেলার শুরুতে গোল পাওয়াটাই আমাদের কাছে টার্নিং পয়েন্ট। যদি চার্চিল ম্যাচে আমরা এর চেয়েও অনেক ভালও ফুটবল খেলেছিলাম।’ বঙ্গসন্তানই শুভ ঘোষের খেলার খুশি কোচ কিবু বললেন, ‘এই ছেলেটা ভালো গোল চেনে। বক্সে ওর নড়াচড়া দারুণ।’ নিজেদের হার ব্যাখ্যা করতে গিয়ে ট্রাউ-এর সহকারি কোচ সুরমানি সিং বলেন, ‘ম্যাচের শুরুতে গোল খেয়ে আমরা পিছিয়ে পড়লাম। এছাড়াও আমাদের রক্ষণে কিছু সমস্যা রয়েছে। আশা করছি, শীঘ্রই এই সমস্যাগুলি কাটিয়ে উঠব।’

বন্ধ করুন