আই লিগে রিয়েল কাশ্মীরকে অ্যাওয়ে ম্যাচে ২-০ হারাল মোহনবাগান।রবিবার।
আই লিগে রিয়েল কাশ্মীরকে অ্যাওয়ে ম্যাচে ২-০ হারাল মোহনবাগান।রবিবার।

কাশ্মীরকে জোড়া গোলে হারিয়ে আই লিগে শীর্ষে মোহনবাগান

  • হিমেল হাওয়ার তোয়াক্কা না করে আই লিগের অ্যাওয়ে ম্যাচে কাশ্মীরকে দুই গোলে পরাজিত করল মোহনবাগান। মাঠে সবুজ-মেরুণ বাহিনীর একছত্র আধিপত্যের সামনে রিয়েল কাশ্মীর অসহায় আত্মসমর্পণ করতে বাধ্য হয়।

হাড় কাঁপানো হিমেল হাওয়ার তোয়াক্কা না করে আই লিগের অ্যাওয়ে ম্যাচে কাশ্মীরকে দুই গোলে পরাজিত করল মোহনবাগান। আগাগোড়া আধিপত্য রেখে ম্যাচ থেকে প্রয়োজনীয় ৩ পয়েন্ট তুলে নিতে সক্ষম হল বাংলার দল।

জানুয়ারির বাঘা শীতে উপত্যকার বুকে স্থানীয় দলের কঠিন চ্যালেঞ্জের মোকাবিলা করার আগে দুশ্চিন্তায় ছিলেন বাগান কোচ কিবু ভিকুনা। এর উপর মাত্র কয়েক দিন আগেই ঘরের মাঠে চেন্নাইয়ের বিরুদ্ধে দুর্ধর্ষ জয় কাশ্মীরের মনোবল যে তুঙ্গে পৌঁছে দিয়েছে, সে সম্পর্কেও বিলক্ষণ উদ্বেগ ছিল কোচের। তবে টেনশনকে পাত্তা না দিয়ে রবিবার দলকে গোটা ম্যাচে যে ভাবে তিনি চাগিয়ে গিয়েছেন, তাতে নিঃসন্দেহে কুর্নিশ দাবি করেন ভিকুনা।

কোচের লাগাতার মোটিভেশন যে গোটা দলের অ্যাড্রিনালিন কোন মাত্রায় সঞ্চারিত হয়েছে, এ দিন মাঠে সবুজ-মেরুণ বাহিনীর একছত্র আধিপত্যের সামনে রিয়েল কাশ্মীরের অসহায় আত্মসমর্পণ দেখে তা সাফ বোঝা গিয়েছে।

ম্যাচের গোড়ায় বিপক্ষের ডিফেন্স চিরে বক্সের ভিতর বার বার ঢুকে পড়েও কাজের কাজ করতে ব্যর্থ হচ্ছিল বাগান। কিছুতেই ফিনিশিং যথাযথ হচ্ছিল না বাংলার দলের।

দ্বিতীয়ার্ধে অবশ্য শুরু থেকেই কৌশল কিছুটা পালটে ফেলে ছন্দে ফেরেন ফ্রান গঞ্জালেসরা। বাহাত্তর মিনিটে সাইরাসের হেড-পাস থেকে ডান পায়ের ভলিতে কাশ্মীরের জালে বল জড়িয়ে দেন বেইতিয়া। তার আগেও অবশ্য তিনি গোলের সুযোগ তৈরি করেছিলেন, তবে ফিনিশিংয়ের অভাবে ফল মেলেনি।

প্রথম গোলের তিন মিনিট পরে ফের বাগানী হামলায় কেঁপে ওঠে কাশ্মীরের রক্ষণ। এবার ব্রিটোর ক্রস থেকে গোল করেন নাওরেম। বাকি ম্যাচে আর ঘুরে দাংড়ানোর সুযোগ পায়নি স্থানীয় দলটি।

প্রবল শীত অথবা রাজনৈতিক ডামাডোলে থমথমে পরিবেশের তোয়াক্কা না করে এদিন মাঠে দর্শকসংখ্যা ছিল চোখে পড়ার মতো। স্থানীয় দল হারলেও ম্যাচের আগাগোড়া উপভোগ করেছেন কাশ্মীরের ফুটবলভক্তরা।

বন্ধ করুন