বাংলা নিউজ > ময়দান > দেশে ফিরতে পারেন ডাচরা, নতুন করোনা ভ্যারিয়েন্টের জন্যই অনিশ্চিত কোহলিদের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর
অনিশ্চিত কোহলিদের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। ছবি- টুইটার/গেটি।
অনিশ্চিত কোহলিদের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। ছবি- টুইটার/গেটি।

দেশে ফিরতে পারেন ডাচরা, নতুন করোনা ভ্যারিয়েন্টের জন্যই অনিশ্চিত কোহলিদের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর

  • ভারতীয়-এ দলের বেসরকারি টেস্ট সিরিজ জারি রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে খবর।

ক্রিকেটের আঙিনায় ইতিমধ্যেই করোনা মহামারির বিস্তর প্রভাব পড়েছে। যখন ভাইরাসের বাধা টপকে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ধীরে ধীরে স্বাভাবিক ছন্দে ফিরছে, ঠিক সেই মুহূর্তে দেখা দিল নতুন বিপত্তি। দক্ষিণ আফ্রিকায় করোনার নতুন প্রজাতির হদিশ মেলায় চূড়ান্ত অনিশ্চয়তায় একাধিক ক্রিকেট সিরিজ।

প্রথমত, শুক্রবার থেকেই সেঞ্চুরিয়নে শুরু হয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা বনাম নেদারল্যান্ডস ওয়ান ডে সিরিজ। তবে তিন ম্যাচের সিরিজ শেষ করা যাবে কিনা, তা নিয়ে দেখা দিয়েছে সংশয়। প্রাথমিকভাবে সিরিজ স্থগিত রাখার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। তাই প্রথম ওয়ান ডে ম্যাচ খেলেই দেশে ফেরার কথা ছিল নেদারল্যান্ডসের। তবে উড়ান সংক্রান্ত বাধা-নিষেধের জন্য ৩ ডিসেম্বরের আগে কোনওভাবেই দক্ষিণ আফ্রিকা ছেড়ে নেদারল্যান্ডসের বিমান ধরতে পারবেন না ডাচ ক্রিকেটাররা।

তাই দক্ষিণ আফ্রিকায় যখন থাকতেই হবে, ক্রিকেটারদের কাছ থেকে জানতে চাওয়া হয়েছে তাঁরা সিরিজ শেষ করতে আগ্রহী কিনা। সব মিলিয়ে চূড়ান্ত অনিশ্চয়তায় তিন ম্যাচের এই ওয়ান ডে সিরিজ। দক্ষিণ আফ্রিকা ক্রিকেট বোর্ডের তরফে বিজ্ঞপ্তি জারি করে জানানো হয়েছে যে, আগামী ২৪ থেকে ৪৮ ঘণ্টার মধ্যে সিরিজ নিজে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তবে শুধু নেদারল্যান্ডস সিরিজ নয়, বরং পরের মাসেই দক্ষিণ আফ্রিকা সফরে যাওয়ার কথা টিম ইন্ডিয়ার। ডিসেম্বর থেকে দক্ষিণ আফ্রিকায় ৩টি টেস্ট, ৩টি ওয়ান ডে ও ৪টি টি-২০ খেলার কথা ভারতীয় দলের। করোনার নতুন প্রজাতির জন্য ভারতের দক্ষিণ আফ্রিকা সফর ঘিরেও জমতে শুরু করেছে আশঙ্কার মেঘ।

ভারতীয় দল শেষমেশ দক্ষিণ আফ্রিকা উড়ে যাবে কিনা, সেই সিদ্ধান্ত এখন ভারত সরকারের হাতে। এক বোর্ড কর্তা ইতিমধ্যেই জানিয়েছেন যে, বিসিসিআই সরকারের সিদ্ধান্তের জন্য অপেক্ষা করছে।

অন্যদিকে ভারতীয়-এ দল এই মুহূর্তে তিনটি চার দিনের বেসরকারি টেস্ট খেলতে দক্ষিণ আফ্রিকায় উপস্থিত। শোনা যাচ্ছে যে, প্রয়োজনে ম্যাচ কেন্দ্র বদলে এ-দলের সেই সিরিজ শেষ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সিরিজের প্রথম টেস্ট শেষ হয়েছে শুক্রবারই।

বন্ধ করুন