বাংলা নিউজ > ময়দান > ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের নিয়ম জানলেও, কেউ তেমন গুরুত্ব দেয়নি: লকি ফার্গুসন
বিশ্বকাপ ফাইনালে লকি ফার্গুসন। ছবি- রয়টার্স।
বিশ্বকাপ ফাইনালে লকি ফার্গুসন। ছবি- রয়টার্স।

২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের নিয়ম জানলেও, কেউ তেমন গুরুত্ব দেয়নি: লকি ফার্গুসন

  • ফাইনালে সুপার ওভারও টাই হওয়ার পর, বেশি বাউন্ডারি মারার সুবাদে ইংল্যান্ড বিশ্বকাপ জিতে নেয়।

২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের কথা এখনও দর্শকদের মনে তাজা। অবিস্মরণীয় ম্যাচে ১০০ ওভারের পর সুপার ওভারেও টাই হওয়ায় বেশি বাউন্ডারি মারার সুবাদে বিশ্বকাপ ওঠে ইংল্যান্ড অধিনায়ক ইয়ন মর্গ্যানের হাতে। সেই নিয়ে কম বিতর্ক হয়নি। দুই বছর কেটে গেলেও সেই স্মৃতি যে এখনও নিউজিল্যান্ড ক্রিকেটাররও ভুলতে পারেননি, লকি ফার্গুসনের সাম্প্রতিক এক বক্তব্যে তা স্পষ্ট।

বল হাতে সেইদিন তাঁর ৫০ রানে তিন উইকেট দলের কাজে লাগেনি। শত বির্তকের মাঝে অনেকেই হয়তো ভুলেও গেছেন তাঁর সেই পারফর্ম্যান্সের কথা। তবে বিতর্ক সত্ত্বেও কিউয়ি ক্রিকেটাররা যে এই নিয়ম সম্পর্কে আগে থেকেই অবগত ছিলেন, তা স্পষ্ট করে দেন ফার্গুসন।

ইউটিউবে সাম্প্রতিক এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন,  ‘ওই নিয়ম কেন অন্যায্য ছিল সেই বিষয়ে ইতিমধ্যেই অনেক তর্ক বিতর্ক হয়েছে। বিশ্বকাপ ফাইনাল ম্যাচ টাই হওয়ার পর বাউন্ডারির বিচারে বিজয়ী দল নির্বাচন করা উচিত নয় ঠিকই। তবে ম্যাচের বহু আগে থেকেই সেই নিয়ম ঠিক করা ছিল এবং আমাদের দলের সকলেই সেই বিষয়ে অবগত ছিল।’

সুপার ওভারে কিউয়ি ব্যাটসম্যানদের ব্যাট করতে নামার আগে সাজঘরে ম্যাচ জেতা ছাড়া যে কোন উপায় নেই, তা বলে দেওয়া হয় বলেই জানান ফার্গুসন। তবে তিনি-সহ তাঁর দলের কেউই ভাবতে পারেনি এমন কোন অবস্থা তৈরি হতে পারে বলে। 

‘সত্যি বলতে বিশ্বকাপের আগেই আমাদের সব নিয়ম জানিয়ে দেওয়া হয়। তাই আমরা সকলেই সুপার ওভার, বাউন্ডারি নিয়ে নিয়ম সব বিষয়েই অবগত ছিলাম। তবে আমি যখন প্রথমে ওই নিয়মের ব্যাপারে শুনি, তখন আমি ভাবতে পারিনি যে কোন ম্যাচে ওই অবধি যেতে পারে। আমরা কেউই ভাবিনি।’ দাবি ফার্গুসনের।

বন্ধ করুন