বাংলা নিউজ > ময়দান > জোকার সুর চড়াতেই নরম উদ্যোক্তারা, ভ্য়াকসিন না নিয়েও খেলা যাবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন- রিপোর্ট
অস্ট্রেলিয়ান ওপেন আয়োজনের আঙিনা মেলবোর্ন পার্ক। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)
অস্ট্রেলিয়ান ওপেন আয়োজনের আঙিনা মেলবোর্ন পার্ক। ছবি- রয়টার্স। (REUTERS)

জোকার সুর চড়াতেই নরম উদ্যোক্তারা, ভ্য়াকসিন না নিয়েও খেলা যাবে অস্ট্রেলিয়ান ওপেন- রিপোর্ট

  • পরের বছর ১৩ জানুয়ারি থেকে বসতে চলেছে অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের আসর।

বর্তমান করোনা পরিস্থিতিতে অস্ট্রেলিয়া প্রবেশ নিয়ে বিশাল কড়াকড়ি। এর জেরেই আসন্ন জানুয়ারি মাসে অনুষ্ঠিত অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে খেলোয়াড়দের কড়া বিধিনিষেধের মধ্যে দিয়ে যেতে তো হবেই, পাশপাশি সম্পূর্ণ ভ্যাকসিন না হলে তাদের দেশে ঢোকার অনুমতি মিলবে না বলেই শোনা যাচ্ছিল।

তবে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে গর্জে উঠেন বিশ্ব ক্রমতালিকায় এক নম্বরে থাকা অস্ট্রেলিয়ান ওপেনের ডিফেন্ডিং চ্যাম্পিয়ন নোভাক জকোভিচ। তিনি স্পষ্ট জানিয়ে দেন, তাঁর ভ্যাকসিনের স্ট্যাটাস সম্পর্কে তিনি কাউকে জানাবেন না। প্রয়োজনে বছরের প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম থেকেও নাম তুলে নিতে রাজি তিনি। তবে সেই নিয়মে বড় বদল ঘটার সম্ভাবনা। দুই ভ্যাকসিনের বদলে অস্ট্রেলিয়ায় পৌঁছে ১৪ দিন নিভৃতবাসে কাটালেই মিলতে পারে গ্র্যান্ড স্ল্যামে অংশগ্রহনের অনুমতি। 

New York Times এবং মেলবোর্নের The Age-র রিপোর্ট অনুযায়ী WTA-র এক লিক হওয়া ইমেলে প্লেয়ার্স কাউন্সিলকে জানানো হয়েছে, ‘আসন্ন অস্ট্রেলিয়ান ওপেনে অংশগ্রহণের জন্য খেলোয়াড় যে জরুরি নিয়মকানুন পালন করতে হবে, সেই নিয়ে যে ভুল তথ্য রটেছে, তা সঠিক করতেই আপনাদের সঙ্গে যোগাযোগ করার প্রয়োজন মনে করেছি আমরা। আমরা টেনিস অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে নিরন্তর যোগাযোগ রেখে চলেছি এবং ওনারা গত শুক্রবার প্লেয়ার্স কাউন্সিলের কলে এক সুখবর দিয়েছেন। সুতরাং, আসল সত্যিটা আপনারা সকলেই জানেন।’

জানুয়ারির মধ্যে ভিক্টোরিয়ার প্রায় ৯০ শতাংশ ১৮ বছরের অধিক বয়সী ব্যক্তিদের টিকাকরণের কাজ সম্পন্ন হওয়ার কথা, যা খেলার পরিস্থিতি অনেকটা উন্নত করবে বলে শোনা যাচ্ছে। যদিও টেনিস অস্ট্রেলিয়া সোমবারই জানায় তাদের তরফে গ্র্যান্ড স্ল্য়ামে খেলোয়াড়দের পরিস্থিতির ও বিধিনিষেধের বিষয়ে সরকারের সঙ্গে আলোচনা এখনও অব্যাহত। শেষ পর্যন্ত কি সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়, এখন সেটাই দেখার।

বন্ধ করুন