বাংলা নিউজ > ময়দান > উন্নতির ধারা অব্যাহত, ১৮ মাসে ওড়িশায় তৈরি হবে ৮৯ টি অত্যাধুনিক ইন্ডোর স্টেডিয়াম
ইন্ডোর স্টেডিয়াম। ছবি- টুইটার। 

উন্নতির ধারা অব্যাহত, ১৮ মাসে ওড়িশায় তৈরি হবে ৮৯ টি অত্যাধুনিক ইন্ডোর স্টেডিয়াম

  • ৬৯৩.৩৫ কোটি টাকার বিনিময়ে তৈরি হবে স্টেডিয়ামগুলি।

আদপে অর্থনৈতিক দিক থেকে দেশের মেগা রাজ্যেগুলির মতো সক্ষম না হলেও ভারতীয় হকি দলের উন্নতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিয়ে আগেই প্রশংসা কুড়িয়েছেন নবীন পট্টনায়েকের ওড়িশা সরকার। এবার স্পোর্টসে উন্নতির ধারা অব্য়াহত রাখতে পড়শি রাজ্যে তৈরি হতে চলেছে ৮৯ টি অত্যাধুনিক ইন্ডোর স্টেডিয়াম।

ভারতীয় হকির সবথেকে খারাপ সময়ে হকি পাগল ওড়িশা দেশের পুরুষ ও মহিলা উভয় দলের জন্যই ১০০ কোটি টাকার বিনিময়ে জার্সি স্পনসরশিপের দায়িত্ব নেন। সঙ্গে সঙ্গে না হলেও তার সুফল ইতিমধ্য়েই মিলতে শুরু করেছে। খেলাধুলোর উন্নতির ধারাকে অব্যাহত রাখতে এবং রাজ্যের অ্যাথলিটদের উৎসাহ জৌগাতে ফের এক যুগান্তকারী সিদ্ধান্ত ওড়িশা সরকারের। সোমবার (৯ অগস্ট) ওড়িশা ক্যাবিনেটে, ৬৯৩.৩৫ কোটি টাকার রাজ্য ক্রীড়া পরিকাঠামো উন্নতি প্রজেক্টকে (State Sports Infrastructure Development Project) সম্মতি দেওয়া হয়।

এই প্রজেক্টের আওতায় গঠিত স্টেডিয়ামগুলিতে ব্যাডমিন্টন, টেবিল টেনিসের মতো একাধিক খেলার আয়োজন করার পাশাপাশি আঞ্চলিকভাবে বিখ্যাত বিভিন্ন খেলাও আয়োজিত হবে বলেই জানান ওড়িশার চিফ সেক্রেটারি সুরেশ চন্দ্র মহাপাত্র। তিনি দাবি করেন ওড়িশা সরকারের তরফে খেলাধুলার উন্নতি এবং সেই সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয়ে বিশেষ গুরুত্ব দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই স্টেডিয়ামগুলি ২০০ কি.মি প্রতি ঘন্টার গতিতে ধেয়ে আসা ঝড়ও প্রতিহত করতে সক্ষম হবে। ঝড়, বন্যা ও অন্যান্য প্রাকৃতিক দুর্যোগের যাতে স্টেডিয়ামগুলি ক্ষতিগ্রস্থ না হয়, সেইভাবেই এইগুলি গড়া হবে এবং এর জন্য ক্রীড়াব্যক্তিত্ব ও জন প্রতিনিধিদের উপদেশ ও নেওয়া হয়েছে।

বিগত কয়েক বছরে ওড়িশা হকি বিশ্বকাপ (২০১৮), অলিম্পিক্স হকির কোয়ালিফায়ারের মতো হকির টুর্নামেন্ট তো আয়োজন করেছেই, ২০২৩ সালের হকি বিশ্বকাপের আগে রাউরকেল্লায় বৃহত্তম হকি স্টেডিয়ামও তৈরি করছে। ২০১৭ সালে এশিয়ান অ্যাথলেটিক্স চ্যাম্পিয়নশিপের আয়োজন করে সকলকে তাক লাগিয়ে দেয় ওড়িশা। গত বছর অতিমারীর আগে প্রথম খেলো ইন্ডিয়া ইউনিভার্সিটি গেমসও এই রাজ্যেই অনুষ্ঠিত হয়। আসন্ন ফিফা অনুর্ধ্ব-১৭ মহিলা বিশ্বকাপ এবং এএফসি এশিয়ান ওয়েমেন্স কাপের (২০২২) কিছু ম্যাচও ওড়িশায় অনুষ্ঠিত হওয়ার কথা। হকির পাশাপাশি ২০২০ সালে পরবর্তী তিন বছরের জন্য ভারতীয় জাতীয় রাগবি পুরুষ ও মহিলা উভয় দলেরই জার্সি স্পনসরশিপ ও উচ্চ স্তরের ট্রেনিংয়ের দায়িত্ব নেয় ওড়িশা সরকার। 

দেশের মানচিত্রে খেলাধুলা প্রিয় এক রাজ্য হিসাবে দ্রুত শীর্ষ স্তরের দিকে এগিয়ে চলেছে নবীন পট্টানায়েকের অধীনস্থ সরকার। রাজ্যে বসবাসকারী উপজাতির ছেলে মেয়েদের খেলায় উৎসাহ জোগাতে ও তাদের উন্নতির জন্য ওড়িশা সরকার ২০১৭ সালে ট্রাইবাল স্পোটর্স মিটের আয়োজন করে। ফুটবল, আর্চারি, ভলিবলসহ মোট সাত রকমের স্পোটর্সে প্রায় ১ লক্ষ ৩০ হাজারেরও অধিক অ্যাথলিট অংশগ্রহণ করে। এমন স্কিম দেশের অন্য কোন জায়গায় নেই। প্রসঙ্গত, মূলত খেলাধুলোর জন্য ব্যবহৃত হলেও নবনির্মিত স্টেডিয়ামগুলিতে পরীক্ষা, মিটিংয়ের ইত্যাদিরও আয়োজন করা হবে। এছাড়া স্টেডিয়ামগুলিকে সাইক্লোন শেল্টার এবং অতিমারীর সময় যথাক্রমে জায়গা অনুযায়ী ৫০ এবং ১০০ বেডের হাসপাতালেও রূপান্তরিত করা হবে।

বন্ধ করুন