বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > হকির এই সাফল্যের পিছনে বড় ভূমিকা রয়েছে ওড়িশার নবীন ভাবনার প্রবীণ এই মানুষটিরও
ভারতীয় হকি দল।
ভারতীয় হকি দল।

হকির এই সাফল্যের পিছনে বড় ভূমিকা রয়েছে ওড়িশার নবীন ভাবনার প্রবীণ এই মানুষটিরও

  • ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী যে শুধু স্পনসর করেই থেমে গিয়েছেন তা কিন্তু নয়। ওড়িশা উদ্যোগ নিয়ে বহু জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরের প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে। ২০১৮ সালের হকির বিশ্বকাপ হয়েছিল ওড়িশাতেই। শুধু তাই নয়, হকির উন্নতির জন্য দেশের সব থেকে বড় স্টেডিয়ামও তৈরি করে দিয়েছেন নবীন পটনায়েক।

ভারতীয় হকি দলের স্পনসর সরে যাওয়ায় তখন টালমাটাল অবস্থা। সে সময়ে ভারতীয় হকির পাশে দাঁড়িয়েছিলেন এক বড় রাজনাতিক নেতা। রাজনীতির লোক হলেও তাঁর মনের একটা বড় অংশ জুড়ে শুধুই থাকত হকি আর হকি। তিনি ১৫০ কোটি টাকা নিয়ে হকি দলের পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। মহিলা এবং পুরুষ দুই হকি দলকেই বছরে তিনি ২০ কোটি করে টাকা দিয়ে থাকেন। তাঁর হাত ধরেই প্রথম বার কোনও রাজ্য জাতীয় দলের স্পনসর হিসেবে দায়িত্ব নিয়েছিল।

তিনি আর কেউ নন। ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী নবীন পটনায়েক। ছোট থেকেই হকি অন্ত প্রাণ ছিলেন নবীন। নিজেও ছোটবেলায় চুটিয়ে হকি খেলেছেন। স্কুলে থাকার সময় গোলরক্ষক হিসেবে খেলতে নবীন। তাঁর কাছে হকিটা শুধু খেলা নয়, জীবন ছিল। এবং তিনি মনে করেন, ওড়িশার প্রতিটা লোকই তাঁর মতোই হকি অন্ত প্রাণ।

অলিম্পিক্সের মঞ্চে ভারতের সাফল্যের অন্যতম বড় কারিগর নিঃসন্দেহে নবীন পটনায়েক। তিনি কোনও প্রচার পাওয়ার জন্য কিন্তু হকি দলের পাশে দাঁড়াননি। বরং ভালবেসে তিনি হকির পাশে দাঁড়িয়েছেন। ২০১৮-'২৩ তাঁর সময়সীমার মধ্যে তিনি ভারতের পুরুষ এবং মহিলা দুই হকি দলেরই দায়িত্ব নিয়েছেন। 

এ দিন ভারতের জয়ে স্বাভাবিক ভাবেই উচ্ছ্বসিত নবীন পট্টনায়েক। টুইটারের মাধ্যমে নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করে তিনি লিখেছেন, ‘ব্রিলিয়ান্ট ইন ব্লু। ভারতের পুরুষ হকি দলকে অনেক শুভেচ্ছা। ৪১ বছর পর এ রকম অসাধরাণ একটি জয়ের হাত ধরে আমাদের পদক এনে দেওয়ার জন্য। টোকিও-তে এই ঐতিহাসিক জয় সব জেনারেশনের ক্রীড়াবিদদের অনুপ্রাণিত করবে।’

ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী যে শুধু স্পনসর করেই থেমে গিয়েছেন তা কিন্তু নয়। ওড়িশা উদ্যোগ নিয়ে বহু জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক স্তরের প্রতিযোগিতার আয়োজন করেছে। ২০১৮ সালের হকির বিশ্বকাপ হয়েছিল ওড়িশাতেই। শুধু তাই নয়, হকির উন্নতির জন্য দেশের সব থেকে বড় স্টেডিয়ামও তৈরি করে দিয়েছেন নবীন পটনায়েক। বিরসা মুন্ডা আন্তর্জাতিক হকি স্টেডিয়ামে ২০ হাজার দর্শক একসঙ্গে বসে খেলা দেখতে পারেন। আর এই স্টেডিয়ামেই ২০২৩ সালের ছেলেদের হকি বিশ্বকাপ হওয়ার কথা। হকির আধুনিক মানের সুযোগ সুবিধের কথা মাথায় রেখেই যাবতীয় প্রচেষ্টা এখনও করে চলেছেন ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রী। তাই ভারতের হকির দলের এই কৃতিত্বের একটা বড় অংশ প্রাপ্য ওড়িশার এবং নবীন পটনায়েকেরও।

বন্ধ করুন