বাংলা নিউজ > ময়দান > টোকিও অলিম্পিক্স > অসম পুলিশের নতুন ডিএসপি লভলিনা বড়গোঁহাইয়ের নামে রাজ্যে তৈরি হবে নতুন স্পোর্টস কমপ্লেক্স
অসমে রাজকীয় সম্মান দেওয়া হল লভলিনা বড়গোঁহাইকে (ছবি:টুইটার)
অসমে রাজকীয় সম্মান দেওয়া হল লভলিনা বড়গোঁহাইকে (ছবি:টুইটার)

অসম পুলিশের নতুন ডিএসপি লভলিনা বড়গোঁহাইয়ের নামে রাজ্যে তৈরি হবে নতুন স্পোর্টস কমপ্লেক্স

  • এক কোটি টাকার চেক হাতে নিয়ে অসম পুলিশের নতুন ডিএসপি পদে নিযুক্ত হলেন লভলিনা, তাঁর নামে তৈরি হবে স্পোর্টস কমপ্লেক্স।

অলিম্পিক্সে ব্রোঞ্জ পদক জেতার পরে নতুন স্বপ্ন দেখতে শুরু করেছেন অসমরে মেয়ে লভলিনা বড়গোঁহাই। নিজের রাজ্য ও দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে প্রতিভাবান ক্রীড়াবিদদের খুঁজে বের করতে চাইছেন তিনি। আগামী দিনে যাতে ভারত অলিম্পিক্সে আরও বেশি পদক জিততে পারে তার পরিকল্পনা শুরু করে দিয়েছেন লভলিনা। গুয়াহাটিতে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে অসমের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা অলিম্পিক্সে ব্রোঞ্জ জয়ী লভলিনার হাতে এক কোটি টাকার চেক তুলে দেওয়ার পাশাপাশি অসম পুলিশের ডিএসপি পদেও লভলিনাকে নিযুক্ত করেছেন। এরপরেই বড়গোঁহাই পরিবারে খুশির হাওয়া বয়ে যায়। তবে লভলিনা এখানেই থামতে চাননা। তিনি আরও কিছু করতে চান।

টোকিও অলিম্পিক্সে মহিলাদের বক্সিংয়ে ব্রোঞ্জ পদক জিতেছেন অসমের লভলিনা বড়গোঁহাই। অন্যান্য পদকজয়ীদের মতো দেশে ফিরতেই কেন্দ্র এবং রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে সংবর্ধনাও পেয়েছেন তিনি। অসম সরকারের পক্ষ থেকে শুধু সংবর্ধনা বা আর্থিক পুরস্কার নন, লভলিনা পেয়েছেন অসম পুলিশের  উঁচু পদের চাকরি। তবে লভলিনার সব থেকে বড় প্রাপ্তি হতে চলেছে তাঁর নামে তৈরি হবে নতুন একটি স্টেডিয়াম। হিমন্ত বিশ্বশর্মা জানিয়েছেন, লভলিনা বড়গোঁহাইয়ের নামে গোলাঘাট জেলার সৌপাথর এলাকায় ২৫ কোটি টাকা খরচ করে একটা স্পোর্টস কমপ্লেক্স তৈরি করা হবে। এতেই উচ্ছ্বসিত লভলিনা। কারণ তিনি জানেন এ ভাবেই ভবিষ্যৎ প্রজন্মকে তৈরি করা সক্ষম হবে। লভলিনার নামে নামাঙ্কিত করা হবে রাস্তাকেও। লভলিনাকে সংবর্ধনা দেওয়ার কথাও টুইটও করেন অসমের মুখ্যমন্ত্রী।

এ দিন লভলিনা বললেন, ‘অসম এবং গোটা দেশের আশীর্বাদেই আমি টোকিও অলিম্পিক্সে ব্রোঞ্জ পদক জয় করেছি। দেশের উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বহু প্রতিভা রয়েছে। আমি আগামী দিনে সেই প্রতিভাদেরই খুঁজে বের করার চেষ্টা করব। সরকারের কাছে আমার আবেদন, এই প্রভিভাধর অ্যাথলিটদের পাশে যেন আরও বেশি করে দাঁড়ানো হয়। পাশাপাশি রাজ্যের প্রত্যেকটা মানুষের কাছে আমার বিনীত অনুরোধ, তাঁরা যেন নিজেদের সন্তানদের আরও বেশি করে খেলাধুলোয় উৎসাহিত করেন।’

বন্ধ করুন